সর্বশেষ আপডেট : ১৪ মিনিট ২২ সেকেন্ড আগে
রবিবার, ১৮ ফেব্রুয়ারী, ২০১৮, খ্রীষ্টাব্দ | ৬ ফাল্গুন ১৪২৪ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

পূন্যভুমিতে প্রথমবার খেলবে টাইগার বাহিনী, কোথাও নেই উৎসবের রঙ

হাসান মো. শামীম:: ভাষার মাস ফেব্রুয়ারি,ভালবাসার মাস ফেব্রুয়ারি। পত্রঝরা শীতের বিদায় হয়ে প্রকৃতিতে বসন্তের ছোয়া।ফাগুনের আগুন রংয়ে চারিদিকে উঠসবের রঙ। প্রকৃতির সাথে ফাগুন এসেছে সিলেটের ক্রীড়াংগনেও। প্রথমবারের মত সিলেটে পা রাখছে বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দল। প্রতিপক্ষ সাবেক বিশ্বচ্যাম্পিয়ন শ্রীলংকা। শাহজালালের মাটিতে প্রথমবারের মত লড়াই হবে দুই টেস্ট খেলুড়ে দেশের।আর মাত্র ৪ দিন পরেই সিলেট আন্তর্জাতিক স্টেডিয়াম মাঠে জমঅবে ব্যাট বলের লড়াই। সিলেটের ক্রিকেটপ্রেমীদের দীর্ঘদিনের স্বপন হবে পুরন।কিন্তু ঐতিহাসিক এই ক্ষনের অন্তিম মুহুর্তে দাঁড়িয়ে বড্ড বেমানান রকম নিশ্চুপ চারিদিক। বোঝার উপায় নেই এই শহরে মাত্র দিন কয়েকের ব্যবধানে হতে যাচ্ছে একটি আন্তর্জাতিক ম্যাচ,তাও প্রথম বারের মত। যেখানে বয়সভিত্তিক দল কিংবা স্থানীয় টুর্নামেন্ট উপলক্ষে শহর ছেয়ে যায় ব্যানার ফেস্টুনে,সেখানে বাংলাদেশের ম্যাচ উপলক্ষে কোথাও নেই কোন চিহ্ন ।এখনো পর্যন্ত শহরের কোন জায়গাতেই লাগানো হয়নি কোন ধরনের ব্যানার ফেস্টুন। বিপিএল উপলক্ষে শহরের নতুন ব্রিজ,ক্বীন ব্রিজ,কাজিরবাজার সেতু নিয়ন বাতির আলোয় আলোকিত করা হলেও এবার নেই এমন কোন উদ্যোগ।আধুনিক ক্রিকেটের সেরা বিনোদন টি টুয়েন্টির আবেশ তাই এখনো ছুতে পারেনি সিলেটের মানুষ কে।

নয়নাভিরাম চা বাগান আর উচু নিচু টিলার কোলে অবস্থিত সিলেট আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়াম।নির্মানের ১০ বছরে এখানে অনুষ্ঠিত হয়েছে অনেকগুলো আন্তর্জাতিক ক্রিকেট ম্যাচ।হয়েছে২০১৪ সালের টি টূয়েন্টি বিশ্বকাপের ছয়টি ম্যাচ। সর্বশেষ বিপিলে যেখানে অন্যান্য ভেন্যু ধুকেছে দর্শক শুন্যতায় সেখানে সিলেট ভেসে গিয়েছিল দর্শক উন্মাদনায়। জাতীয় দলের প্রায় সব খেলোয়াড় বিপিএল উপলক্ষে পা রেখেছেন এই মাঠে। এসেছেন নামিদামী অনেক বিদেশী খেলোয়াড়। কিন্তু এতসব প্রাপ্তির মাঝেও ছিল একটি অস্বস্তির কাটা।পাওয়া যাচ্ছিল না বাংলাদেশ জাতীয় দলের শিডিউল।সিলেটের মাঠে বাংলাদেশ দলের খেলা দেখার জন্য মুখিয়ে ছিলেন সিলেটের ক্রিকেটপ্রেমী মানুষজন। নিজেদের মাঠে নিজের দেশের খেলা দেখা এক পর্যায়ে যেন হয়ে উঠেছিল অসম্ভব কল্পনা।বিসিবিও দিচ্ছি দেব করে করে পার করছিল সময়। বিভিন্নবার খেলার শিডিউল করেও শেষ পর্যন্ত পাও্য়া হয়নি ম্যাচ। তবে অবশেষে হচ্ছে স্বপ্নপুরন। চলমান বাংলাদেশ শ্রীলংকা সিরিজের শেষ টি টুয়েন্টি ম্যাচ অনুষ্ঠিত হবে সিলেট আন্তর্জাতিক স্টেডিয়ামে। এর মধ্য দিয়ে প্রথমবারের মত বাংলাদেশ জাতীয় দলের খেলা সরাসরি উপভোগ করবেন সিলেটের মানুষ। কিন্তু স্বপ্ন পুরনের এই শেষ সিলেট আছে আগের মতোই। খেলা নিয়ে নেই কোন মাতামাতি। ক্রিকেটকুড়ে মানুষ ছাড়া অনেক সাধারন মানুষ ই জানেন না খেলার কথা। বাংলাদেশের ম্যাচ সিলেটে হবে জেনেও অনেকেই প্রকাশ করছেন বিস্ময়।
প্রশন শহর সাজানোর দায় আসলে কার। যেহেতু বিভাগীয় ক্রিড়া সংস্থার সাধারন সম্পাদক প্রতিনিধিত্ব করেন বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের এবং খেলাটিও হবে বিভাগীয় ক্রীড়া সংস্থার মাঠে, সেহেতু দায় কিছুটা হলেও বর্তায় বিভাগীয় ক্রীড়া সংস্থার উপর। তবে নিজেদের দায় এড়িয়ে শহর সাজানো কিংবা প্রচার প্রচারনার বিষয়টি সম্পুর্ন বিসিবির বলে জানান সংস্থার একজন কর্মকর্তা। তার মতে সিটি কর্পোরেশন প্রথম আন্তর্জাতিক ম্যাচ উপলক্ষে শহরে সাজসজ্জা করতে পারে।সেটা তাদের ব্যাপার নয়।তবে আগামীকাল বাংলাদেশ শ্রীলংকা ম্যাচ উপলক্ষে একটি সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়েছে। এর পর হয়ত সিসিক এর সাথে বসে শহর সাজানো বা প্রচার প্রচারনার বিষয়টি নিশ্চিত করা হবে।

এদিকে আগামী ১৬ ফেব্রুয়ারি সিলেট এসে পৌছাবে বাংলাদেশ ও শ্রীলংকা ক্রিকেট দল। পরের দিন বিভাগীয় স্টেডিয়ামে অনুশীলন করবে তারা। ১৮ তারিখ ম্যাচ খেলে,১৯ ফেব্রুয়ারি সিলেট ছাড়বে দুই দল। সিলেটে তাদের অবস্থান হবে হোটেল রোজভিউতে। এছাড়া এই খেলার টিকিট পাওয়া যাবে আগামী ১৬ ফেব্রুয়ারি থেকে ইউসিবিএল ব্যাংকের নির্দিষ্ট শাখায়।

সিলেট আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামের দৈর্ঘ্য ৬১৫ ফুট আর প্রস্থ ৪৮৫ ফুট। আগে এ স্টেডিয়ামে আসন সংখ্যা ছিল ১৩ হাজার ৫৩৩টি। কিন্তু বর্তমানে স্টেডিয়ামের পূর্ব দিকের গ্যালারি দ্বিতল করা হয়েছে। এ নতুন গ্যালারিতে আসন সংখ্যা থাকছে তিন হাজার ৬৬০টি। সবমিলিয়ে আসন সংখ্যা দাঁড়াচ্ছে ১৭ হাজার ১৯৩টি। ফলে বিপুল সংখ্যক দর্শক এবার উপভোগ টি টূয়েন্টির সেরা এই লড়াই।

বিসিবি সংশ্লিষ্ট একটি সূত্র জানিয়েছে, বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগ (বিপিএল) ক্রিকেট নিয়ে সিলেটের ক্রীড়াপ্রেমীদের উন্মাদনা, গ্যালারিভর্তি দর্শক আর সকল সুযোগ-সুবিধাসম্পন্ন আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়াম এসব মিলিয়েই সিলেটে আন্তর্জাতিক ম্যাচ আয়োজনের সিদ্ধান্ত হয়েছে। এর পেছনে অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদু মুহিতের প্রচ্ছন্ন ইশারাও ছিল। বিপিএলের পঞ্চম আসরের উদ্বোধনী দিনে বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপনকে সিলেটে আন্তর্জাতিক ম্যাচ আয়োজন করতে বলেন অর্থমন্ত্রী।

এ বিভাগের অন্যান্য খবর

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭, ০১৭১৭ ৬৮ ১২ ১৪ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: