সর্বশেষ আপডেট : ২৯ মিনিট ৫২ সেকেন্ড আগে
শুক্রবার, ১৯ জানুয়ারী, ২০১৮, খ্রীষ্টাব্দ | ৬ মাঘ ১৪২৪ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

মাথা খারাপ হয়ে গেছে ব্যাননের: ট্রাম্প

আন্তর্জাতিক ডেস্ক::

হিলারি ক্লিনটনের বিরুদ্ধে নির্বাচনী লড়াইয়ে প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পকে যারা সবচেয়ে বেশি সহযোগিতা করেছিলেন তাদেরই একজন স্টিভ ব্যানন। হোয়াইট হাউজে ট্রাম্পের চিফ স্ট্যাটেজিস্ট পদে দায়িত্ব পেয়েছিলেন তিনি। চাকরি থেকে বরখাস্ত হওয়ার পর কয়েক মাস পর মার্কিন নির্বাচনে রুশ সংযোগ নিয়ে মন্তব্য করেছেন স্টিভ ব্যানন। এতেই ক্ষেপেছেন ট্রাম্প। তার ‘মাথা পুরোপুরি খারাপ হয়ে গেছে’ বলে মন্তব্য করেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট।

সম্প্রতি প্রকাশিত এক বইয়ে ব্যানন নির্বাচনী প্রচারের সময় একদল রাশিয়ানের সঙ্গে ট্রাম্পপুত্র ডোনাল্ড জুনিয়রের বৈঠককে ‘রাষ্ট্রদ্রোহমূলক’ বলার পর মার্কিন প্রেসিডেন্ট এমন রূঢ ভাষায় তার সাবেক চিফ স্ট্র্যাটেজিস্টের সমালোচনা করলেন।

সাংবাদিক মাইকেল ওলফের লেখা বইতে ব্যানন বলেন, ২০১৬-র জুনে হওয়া ওই বৈঠকে রাশিয়ানরা হিলারি ক্লিনটন সম্পর্কে বিধ্বংসী তথ্য দেওয়ার প্রস্তাব করেছিল। প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের প্রচার ও হোয়াইট হাউজের শুরুর দিনগুলোতে ট্রাম্পের অত্যন্ত ঘনিষ্ঠ হিসেবে পরিচিত ব্যাননের এমন উদ্ধৃতি মার্কিন গণমাধ্যমে হইচই ফেলে দেয়। এরপরই কট্টর ডান বুদ্ধিজীবী হিসেবে পরিচিত ব্যাননের কড়া সমালোচনা করেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট।

বুধবার দেয়া এক বিবৃতিতে ট্রাম্প বলেন, ‘আমার বা আমার কাজের সাথে ব্যাননের কোনো সম্পর্ক ছিল না। ওকে যখন বরখাস্ত করা হল, কেবল চাকরিটাই গেল না ওর, মাথাটাও গেল।’

প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের প্রচারের যে পর্যায়ে ব্যানন যুক্ত হয়েছেন, তার আগেই রিপাবলিকান দলের মনোনয়নপ্রত্যাশী ১৭ জন প্রতিদ্বন্দ্বীকে হারানোর কঠিন কাজটি সম্পন্ন করতে হয়েছে বলেও মন্তব্য করেন তিনি। ‘এখন সে তার নিজের পথে আছে, স্টিভ শিখবে জয়ী হওয়া সহজ নয়, যতটা সহজ আমি দেখিয়েছি। এদেশের নাম না জানা অসংখ্য নারী-পুরুষ যে ঐতিহাসিক জয় এনে দিয়েছিল, তাতে স্টিভের অবদান ছিল সামান্যই,’ বলেন ট্রাম্প।

নির্বাচনী প্রচারে ট্রাম্পের ‘আমেরিকা ফার্স্ট’ বার্তার পেছনে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখা ব্যানন গত বছরের অগাস্টে প্রেসিডেন্টের চিফ স্ট্র্যাটেজিস্ট পদ হারিয়েছিলেন। তার বরখাস্তের সিদ্ধান্তে অনেকে অবাক হয়েছিলেন। সঙ্গে সঙ্গে প্রতিবাদ না করলেও ধীরে ধীরে মুখ খুলতে শুরু করেছেন ব্যানন। বুধবার সাংবাদিক মাইকেল ওলফের লেখা ‘ফায়ার অ্যান্ড ফিউরি: ইনসাইড দ্য ট্রাম্প হোয়াইট হাউজ’ বইটি প্রকাশিত হলে ফের ট্রাম্প-ব্যানন সম্পর্কের কথা মার্কিন গণমাধ্যমে আলোচিত হয়।

ওই বইতেই ব্যানন ২০১৬-র জুনে রাশিয়ানদের সঙ্গে ট্রাম্প জুনিয়রের বৈঠককে ‘রাষ্ট্রদ্রোহমূলক’ ও ‘দেশপ্রেমহীন’ অ্যাখ্যা দেন। কেবল ট্রাম্পের ছেলেকেই নয়, বড় মেয়ে ইভাঙ্কাকেও ‘বোকা’ বলে আখ্যায়িত করেন। ট্রাম্প তার মেয়াদ পূর্ণ করতে পারবেন কী না- সে বিষয়ে সন্দেহ লুকাননি ব্যানন।

নির্বাচনী প্রচারের সময় ট্রাম্প শিবিরের সঙ্গে রুশ সংযোগ গত বছরের পুরোটা সময়জুড়েই আলোচিত ছিল। বিষয়টি নিয়ে মার্কিন কংগ্রেস ও বিচার বিভাগেরও তদন্ত চলছে। ট্রাম্প অবশ্য শুরু থেকেই এ ধরণের কোনো সংযোগের কথা অস্বীকার করে আসছেন। মার্কিন নির্বাচনে হস্তক্ষেপের অভিযোগ অস্বীকার করে আসছে ক্রেমলিনও।

সূত্র: বিবিসি

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭, ০১৭১৭ ৬৮ ১২ ১৪ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: