সর্বশেষ আপডেট : ২৯ মিনিট ২৪ সেকেন্ড আগে
শনিবার, ২০ জানুয়ারী, ২০১৮, খ্রীষ্টাব্দ | ৭ মাঘ ১৪২৪ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

কলকাতায় ম্যাসাজ পার্লারে গিয়ে সর্বস্ব হারালেন তিন বাংলাদেশি

 নিউজ ডেস্ক:: বছর শেষে বিনোদনের উদ্দেশ্যে ভারতে ঘুরতে গিয়ে সর্বস্ব হারিয়েছেন তিনি বাংলাদেশি তরুণ। প্রথমে কলকাতায়, তার পরে দিল্লি ঘুরে দার্জিলিং যাওয়ার পরিকল্পনা ছিল তাদের। কিন্তু হঠাৎ ছন্দপতন ঘটে তাদের সেই পরিকল্পনায়। লাইট পোস্টে বিজ্ঞাপন দেখে ম্যাসাজ পার্লারে বডি ম্যাসাজ করতে গিয়ে সর্বস্ব খুঁইয়েছেন তারা।

গত ৩০ ডিসেম্বর বাংলাদেশ থেকে কলকাতায় যান চট্টগ্রামের ওই তিন তরুণ। এদের মধ্যে দু’জন কম্পিউটার ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের শিক্ষার্থী এবং অন্যজন ব্যবসায়ী।

 

কলকাতায় নিউমার্কেট এলাকার একটি হোটেলে ওঠেন তারা। পরদিন ৩১ ডিসেম্বর হোটেলের পাশেই একটি ল্যাম্পপোস্টের গায়ে ‘রিল্যাক্সিং বডি ম্যাসাজ’ সম্পর্কিত একটি বিজ্ঞাপন দেখে ইচ্ছা জাগে তিন বাংলাদেশির একজনের। এর পর বিকেলের দিকে বিজ্ঞাপনে দেয়া ফোন করেন। ফোনের ওপার থেকে ম্যাসাজ সম্পর্কিত যাবতীয় তথ্যের বিবরণ দেয়া হয়।

পার্লার কর্তৃপক্ষের কথাবার্তায় আশ্বস্ত হয়ে ওই পার্লারে যাওয়ার ব্যাপারে মনস্থ করেন তিনজন। সেই অনুযায়ী সন্ধ্যা নাগাদ গিরিশ পার্ক এলাকায় এসে একটি বস্তির ভেতর ঢুকতেই মনে প্রশ্ন জাগে তাদের। কিন্তু পার্লার থেকে পাঠানো এক ব্যক্তিকে প্রশ্ন করতেই তাদের বলা হয়, এই পার্লারটি কলকাতার বহু পুরনো, পার্লারের ভেতরে ঢুকলেই বুঝা যাবে। এরপর আর প্রশ্ন না বাড়িয়ে হানি-মেহবুবরা চুপ করে যান।

পার্লারে পৌঁছাতেই রিসিপশনে বাকি দু’জনকে বসিয়ে রেখে ম্যাসাজ করতে ইচ্ছুক বাংলাদেশি যুবককে একটি নির্দিষ্ট ঘরে যেতে বলা হয়। ওই যুবক ম্যাসাজের জন্য নির্দিষ্ট বিছানায় বসতেই জোর করে যৌনাচার করতে বাধ্য করা হয় বলে অভিযোগ। এরপর ওই যুবক বাইরে এসে যখন তার অন্য দুই বন্ধুকে ঘটনার কথা জানাতে থাকেন, ঠিক তখনই তাদের তিনজনকে ওই পার্লারের কয়েকজন ঘিরে ধরে তাদের কাছ থেকে প্রায় ৭০ হাজার টাকা কেড়ে নেয়া হয়।

বিদেশের মাটিতে এমন একটি ঘটনার সাক্ষী হবেন, তা কল্পনাও করতে পারেননি তারা। জানাজানির ভয়ে গিরিশ পার্ক কিংবা নিউ মার্কেট থানাতেও ওই ঘটনার কথা জানাতে দ্বিধাবোধ করেন তারা। মানসিকভাবেও ভেঙে পড়েন এই বাংলাদেশিরা। অবস্থা এমন পর্যায়ে পৌঁছায় যে, ওই তিনজনই বাংলাদেশে ফেরার সিদ্ধান্ত নেন।

মঙ্গলবার সকালে নিউমার্কেট এলাকায় ভারতীয় একটি গণমাধ্যমের সঙ্গে কথা বলেন তারা। সেখানে ঘটনার বিবরণ দিতে গিয়ে শিউরে উঠছিলেন তারা। লজ্জায় মুখ খুলতে রাজি না হলেও পরে একজন জানান, ‘আমাদের প্রথম থেকেই সন্দেহ হচ্ছিল, কিন্তু তারপরও কেন জানি না ওই পার্লারে যাই এবং সেখানে পৌঁছানোর পরই একটি রুমে আমাদের ওই বন্ধুকে যেতে বলা হয়। এরপর তাকে শারীরিক সম্পর্ক করতে বাধ্য করা হয়।’

তিনি আরও জানান, ‘কলকাতার পাশাপাশি দিল্লি ও দার্জিলিং ঘুরে আমাদের বাংলাদেশে ফিরে যাওয়ার কথা ছিল, এখন আমাদের কাছে কোনও অর্থ নেই। অর্থাভাবে ইতিমধ্যে এক বন্ধু আজ সকালেই বাংলাদেশে ফিরেছেন।’

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭, ০১৭১৭ ৬৮ ১২ ১৪ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: