সর্বশেষ আপডেট : ১৭ মিনিট ১০ সেকেন্ড আগে
রবিবার, ২১ জানুয়ারী, ২০১৮, খ্রীষ্টাব্দ | ৮ মাঘ ১৪২৪ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

কমলগঞ্জে এলজিএসপি প্রকল্পে ইউপি সদস্যের বাড়ির রাস্তায় মাটি ভরাট

কমলগঞ্জ প্রতিনিধি:: মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জের এলজিএসপি-র প্রকল্পে এক ইউপি সদস্যের বাড়ির রাস্তায় মাঠি ভরাট করার অভিযোগ উঠেছে। কমলগঞ্জ উপজেলার শমশেরনগর ইউনিয়নের ইউপি সদস্য মাসুক মিয়া ইউপি চেয়ারম্যানের যোগসাজসে গোবিন্দপুর গ্রামে নিজ বাড়িতে রাস্তায় মাটি ভরাট করেন। সোমবার স্থানীয় এলাকাবাসীর পক্ষ থেকে গণস্বাক্ষরিত একটি অভিযোগ কমলগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে দেওয়া হয়।

অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, শমশেরনগর ইউনিয়নের ১ নম্বর ওয়ার্ডের গোবিন্দপুর, শঙ্করপুর ও সারঙ্গপুর গ্রামের প্রায় দুই হাজার মানুষের চলাচলের সরকারী গ্রাম্য রাস্তার মাঝে মাঝে করুন অবস্থা দেখা দিয়েছে। কালাম মিয়ার দোকান থেকে ইউপি সদস্য মাসুক মিয়ার বাড়ি পর্যন্ত সরকারী রাস্তার কয়েকটি স্থানে গর্তের ফলে অল্প বৃষ্টিতেই সেখানে কাঁদা পানি জমে থাকে। ফলে এ রাস্তা ব্যবহারকারী শত শত শিক্ষার্থী স্কুল কলেজে যেতে পারে না। মক্তবের ছাত্ররাও কাঁদা পনি মাড়িয়ে মক্তবে যেতে হয়। মুসল্লীরা মসজিদে যেতেও কষ্ট হয়। গ্রামবাসীরা ওয়ার্ড ইউপি মাসুক মিয়াকে গ্রাম্য সরকারী রাস্তায় মাটি ভরাট করে প্রয়োজনীয় স্থানে ছোট কালভার্ট নির্মাণের জন্য দফায় দফায় আবেদন নিবেদন করেন। গ্রামবাসীর আবেদন নিবেদন উল্লেখ করে ইউপি সদস্য মাসুক মিয়া ২ লাখ টাকা ব্যয়ে এলজিএসপি প্রকল্পের আওতায় গ্রামের সরকারী রাস্তার উন্নয়নের প্রস্তাব জমা করেন ইউনিয়ন পরিষদে। পরে তিনি এ প্রকল্পের মাধ্যমে নিজের বাড়ির প্রায় ৪শ’ ফুট দৈর্ঘ্যরে রাস্তায় মাটি ভরাট করেন।

গ্রামের অভিযোগকারী ইজ্জাদুর রহমান, আব্দুল হান্নান, আব্দুল মতিন, মখলিছুর রহমান বলেন, এলজিএসপি প্রকল্পের আওতায় গ্রামের সরকারী রাস্তায় মাটি ভরাট না করে নিজের বাড়ির রাস্তায় মাটি ভরাটের প্রতিবাদ করলে ইউপি সদস্য বলেন, তোমরা নিজেরাই সরকারী রাস্তায় কাজ করে নিও। প্রয়োজনে ইউপি সদস্য ৫ হাজার টাকা দিয়ে সহায়তা করবেন।

মোবাইল ফোনে অভিযুক্ত ইউপি সদস্য মাসুক মিয়া বলেন, নির্বাচনের সময় নিজ বাড়ির লোকদের ওয়াদা করার কারনেই রাস্তায় মাটি ভরাট করা হয়েছে। ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানসহ সকল সদস্যদের সাথে কথা বলে তাদের মতামতের ভিত্তিতেই বাড়ির রাস্তায় মাটি ভরাট করা হয়েছে।
কমলগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ মাহমুদুল হক অভিযোগ গ্রহনের সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে চেয়ারম্যানকে নির্দেশ দিয়েছেন। তার পরও তিনি নিজে গিয়ে দেখবেন।

এ বিভাগের অন্যান্য খবর

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭, ০১৭১৭ ৬৮ ১২ ১৪ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: