সর্বশেষ আপডেট : ৭ ঘন্টা আগে
বৃহস্পতিবার, ২৪ মে, ২০১৮, খ্রীষ্টাব্দ | ১০ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

বিক্ষোভ থেকে খামেনির পদত্যাগের দাবি

আন্তর্জাতিক ডেস্ক:: টানা তৃতীয় দিনের মতো বিক্ষোভে ফুঁসে উঠেছে ইরানের প্রধান প্রধান কিছু শহর। অর্থনৈতিক দুরবস্থা ও দুর্নীতিতে অতিষ্ঠ ইরানিরা বৃহস্পতিবার দেশটির মাশাদ শহরে শান্তিপূর্ণ বিক্ষোভ শুরু করলেও শেষ পর্যন্ত তা সহিংস হয়ে উঠেছে। শনিবার ইরানের বিপ্লবী গার্ড বাহিনীর গুলিতে তিন বিক্ষোভকারী নিহত হয়েছেন। বিক্ষোভ ক্রমান্বয়ে রাজনৈতিক অস্থিতিশীলতার দিকে গড়াচ্ছে। শনিবার রাতে বিক্ষোভকারীরা দেশটির সর্বোচ্চ ধর্মীয় নেতা আয়াতুল্লাহ আলী খামেনির পদত্যাগের দাবি করেছেন।

এদিকে, বিক্ষোভকারীদের সতর্ক করে দিয়ে দেশটির সরকার বলেছে, আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখতে তারা অত্যন্ত কঠোর ব্যবস্থা নেবেন। একই সঙ্গে এজন্য বিক্ষোভকারীদের চড়া মূল্য দিতে হবে বলেও হুঁশিয়ারি দিয়েছে স্থানীয প্রশাসন।

khameni

শিয়া মতাবলম্বীদের পবিত্রতম স্থান হিসেবে পরিচিত মাশাদ শহরের রাস্তায় প্রথম বিক্ষোভের সূত্রপাত বৃহস্পতিবার। পরে দেশটির বেশ কিছু শহরে হাজার হাজার মানুষ বিক্ষোভ শুরু করেন। বিক্ষোভ থেকে এখন পর্যন্ত কয়েক ডজন মানুষকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

এছাড়া উত্তেজিত জনতা দফায় দফায় পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ায় জলকামান, টিয়ারগ্যাস ব্যবহার করেছে আইন-শৃঙ্খলাবাহিনী। এদিকে, দেশটির ক্ষমতাসীন সরকারের সমর্থনেও পাল্টা সমাবেশ করেছে হাজার হাজার ইরানি।

khameni

শনিবার রাতে বিক্ষোভ থেকে সহিংসতায় জড়িয়ে পড়ে বিক্ষোভকারীরা। দোরুদ শহরে গুলিতে অন্তত তিনজনের প্রাণহানি ঘটেছে। বিবিসি ফার্সির এক ভিডিওতে গুলির সত্যতা নিশ্চিত করা হয়েছে। তবে গুলির জন্য কারা দায়ী তা সনাক্ত করা সম্ভব হয়নি।

খোরামাবাদ, জানজান ও আহভাজ প্রদেশের বিক্ষোভ থেকে ইরানের সর্বোচ্চ ধর্মীয় নেতা আয়াতুল্লাহ আলী খামেনির পদত্যাগের দাবি উঠেছে।

khameni

ব্রিগেডিয়ার জেনারেল ইসমায়েল কাওসারি বার্তাসংস্থা আইএসএনএ’কে বলেছেন, রাস্তায় নেমে এলে জনগণকে কড়া মূল্য দিতে হবে। তাদের এ ধরনের স্লোগান ও সরকারি সম্পত্তি এবং গাড়িতে অগ্নিসংযোগের সুযোগ দেয়া হবে না। দেশটির স্বরাষ্ট্রমন্ত্রণালয় দায়ীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে হুঁশিয়ারি দিয়েছে।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আব্দুল রেজা রহমানি ফজলি বলেছেন, সরকারি সম্পত্তি যারা ধ্বংস করবেন, আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতির অবনতি ঘটাবেন তারা অবশ্যই এজন্য বিচারের মুখোমুখি হবেন এবং তাদের কড়া মূল্য দিতে হবে। সহিংসতা, ভয় এবং সন্ত্রাসের বিস্তার পরিষ্কারভাবে মোকাবেলা করা হবে।

সূত্র : নিউ ইয়র্ক টাইমস, বিবিসি।




এ বিভাগের অন্যান্য খবর

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭, ০১৭১৭ ৬৮ ১২ ১৪ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: