সর্বশেষ আপডেট : ৮ মিনিট ৭ সেকেন্ড আগে
বুধবার, ২১ ফেব্রুয়ারী, ২০১৮, খ্রীষ্টাব্দ | ৯ ফাল্গুন ১৪২৪ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

অনূর্ধ্ব-২০ নারী বিশ্বকাপে চোখ সালাউদ্দিনের

স্পোর্টস ডেস্ক:: এক দিন আগে জেতা ট্রফিটি বাফুফে সভাপতি কাজী মোহাম্মদ সালাউদ্দিনের হাতে তুলে দিলেন অনূর্ধ্ব-১৫ নারী দলের অধিনায়ক মারিয়া মান্দা। দুই পাশে অন্য খেলোয়াড়দের হাততালিতে তখন মুখরিত বাফুফে ভবনের সভাকক্ষ। কাজী সালাউদ্দিনের ইশারায় মেয়েরা দৌড়ে এসে এক সঙ্গে ছবি তুলে স্মরণীয় করে রাখলো মুহূর্তটিকে।

কাজী সালাউদ্দিন বাফুফের পাশপাশি সাউথ এশিয়ান ফুটবল ফেডারেশনেরও (সাফ) সভাপতি। দক্ষিণ এশিয়ার ফুটবলে শীর্ষ ব্যক্তি বলেই ফেললেন, ‘সাফ সভাপতি হওয়াটা স্বার্থক হয়েছে আগের বিকেলে মেয়েরা চ্যাম্পিয়ন হওয়ায়। এ মেয়েদের ওপর আত্মবিশ্বাস ছিল, ওরা পেরেছে।’

পাশে বসা অধিনায়ক মারিয়া মান্দা বাফুফে সভাপতিকে উদ্দেশ্য করে বলছিলেন, ‘স্যার, আপনাকে কথা দিয়েছিলাম। প্রতিজ্ঞা করেছিলাম ট্রফি আপনার হাতে তুলে দেবো। আমরা পেরেছি। আপনি আমাদের অনেক অনুপ্রেরণা দিয়েছেন, আপনাকে ধন্যবাদ।’ কাজী সালাউদ্দিন মেয়েদের উদ্দেশ্যে বললেন, ‘যে ট্রফি তোমরা আমাকে দিয়েছো সেটা আমি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাতে তুলে দেব।’

Women-football

এক সপ্তাহের টুর্নামেন্ট। চারটি ম্যাচ জয়, একটি ট্রফি- এখানেই কী শেষ সবকিছু? বাফুফে সভাপতি বললেন, ‘একটা অধ্যায় শেষ। নতুন দিন শুরু। আমি মেয়েদের ফুটবলের সঙ্গে সম্পৃক্ত সবাইকে ধন্যবাদ জানাতে চাই। তবে ধন্যবাদটা বেশি মেয়েদেরকে দেবো। ওরা মাঠে খেলেছে। ৯০ মিনিটের চারটি ম্যাচ জিতে ওরা চ্যাম্পিয়ন হয়েছে। তবে ওই ৯০ মিনিটের জন্য তাদের কষ্ট করতে হয়েছে বছরের পর বছর। কষ্টটা কেমন তা আমি জানি। কারণ, আমিও এ জীবন পেরিয়ে এসেছি। ১৬ বছর ফুটবল খেলেছি। আমি সবাইকে বলবো, প্রচারের আলোতে যেন মেয়েদেরই রাখা হয়।’

গত বছর সেপ্টেম্বরে ঢাকায় এএফসি অনূর্ধ্ব-১৬ বাছাই পর্বে মেয়েরা চ্যাম্পিয়ন হয়ে চূড়ান্ত পর্বে ওঠার পর বাফুফে সভাপতি ঘোষণা অনুসারে মেয়েদের এক বছর ক্যাম্পে রেখে অনুশীলন করিয়েছেন। দক্ষিণ কোরিয়া, জাপান, চীন, সিঙ্গাপুর পাঠিয়ে মেয়েদের ম্যাচ খেলিয়েছেন। দীর্ঘ মেয়াদি সেই প্রশিক্ষণ এবং প্রস্তুতি ম্যাচের ফলও পেয়েছে মেয়েরা। কোনো ম্যাচ না জিতলেও থাইল্যান্ডে এএফসি অনূর্ধ্ব-১৬ চ্যাম্পিয়নশিপের চূড়ান্ত পর্বে দুর্দান্ত খেলেছেন কৃষ্ণারা।

Women-football

অনূর্ধ্ব-১৫ মেয়েরা সাফ শিরোপা জয়ের পর নতুন ঘোষণা দিয়েছেন বাফুফে সভাপতি। ২০২০ সালে অনুষ্ঠিতব্য ফিফা অনূর্ধ্ব-২০ নারী বিশ্বকাপে চোখ রেখে চার বছরের পরিকল্পনার কথা বলেছেন কাজী মো. সালাউদ্দিন, ‘আমাদের মেয়েদের অনূর্ধ্ব-১৬ দল এশিয়ার সেরা আটের মধ্যে আসতে পেরেছে। তাহলে কেন সেরা তিনে নয়? আমরা সে লক্ষ্য নিয়েই পরিকল্পনা সাজিয়েছি। ১০ জানুয়ারি মেয়েরা আবার ক্যাম্পে উঠবে। এই ২৩ জনের সঙ্গে যোগ হবে আরো ২৭ জন। ৫০জন মেয়েকে নিয়ে আমরা টানা চার বছর ক্যাম্প চালাবো।’

চার বছরের জন্য টানা ক্যাম্প চালাতে ১২ কোটি টাকা প্রয়োজনের কথা বলেছেন বাফুফে সভাপতি, ‘প্রতি বছর আমার প্রয়োজন হবে ৩ কোটি টাকা। আমি এখন চার বছরের জন্য ১২ কোটি টাকা সংগ্রহের চেষ্টা করছি। একা এটা পারব না। সরকার ও কর্পোরেট হাউসগুলোকে এগিয়ে আসার আহবান জানাচ্ছি। আমি মেয়েদের বেতনের আওয়াতায়ও নিয়ে আসতে চাই, যাতে তারাও স্বচ্ছল থাকে।’

রোববার ভারতকে হারিয়ে চ্যাম্পিয়ন হওয়ার পুরস্কারও পাবে মারিয়া মান্দারা। বাফুফে সভাপতি মেয়েদের ১০ দিনের ছুটি দিয়ে বলেছেন, ‘তোমরা পরিবারের সঙ্গে সময় কাটিয়ে আসো। ১০ জানুয়ারি ক্যাম্পে ফিরবা। ফেরার পর তোমাদের সংবর্ধনা দেবো এবং তোমাদের যা প্রাপ্য সেটা পাবে।’

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭, ০১৭১৭ ৬৮ ১২ ১৪ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: