সর্বশেষ আপডেট : ১৮ মিনিট ৩৬ সেকেন্ড আগে
শনিবার, ২৪ ফেব্রুয়ারী, ২০১৮, খ্রীষ্টাব্দ | ১২ ফাল্গুন ১৪২৪ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

এ বছর বিনোদন জগতে আলোচিত বিচ্ছেদ

বিনোদন ডেস্ক ::
তারকাদের বিবাহবিচ্ছেদ নতুন কিছু নয়। আগেও হয়েছে, এখনো হচ্ছে। কিন্তু গত কয়েক বছরে এর মাত্রা কেবল বেড়েই চলেছে। আর ২০১৭ সালে সেটা দাঁড়িয়েছে অবাক করা সংখ্যায়। বিদায়ী বছরটিতে বড়পর্দা, ছোটপর্দা বা সংগীতাঙ্গন সবক্ষেত্রের তারকাদের মধ্যেই ছিল বিবাহবিচ্ছেদের সুর। তারকাদের বিচ্ছেদের খবরে মিডিয়ার মানুষ সম্পর্কে একটি নেতিবাচক ধারণাও তৈরি হয়েছে। ফলে ইমেজ সংকটে পড়েছে পুরো শোবিজ অঙ্গন। কদিন পরপরই তারকাদের বিচ্ছেদ কিংবা সংসার ভাঙার খবর শুনতে মানুষও এখন বেশ অভ্যস্ত।

বিচ্ছেদ এবং ডিভোর্স সব জায়গায় হলেও আলোচনায় আসে কেবল তারকা সেলিব্রেটিদের নাম। বিশেষ করে শোবিজ তারকাদেরটাই আগে চোখে পড়ে। গণমাধ্যমগুলোও নানা রং মাখিয়ে সে খবর প্রকাশ করে। কারণ ভক্তরা প্রিয় তারকাদের এমন খবর জানার আগ্রহ দেখায়। এই বিচ্ছেদ সবসময় নাড়া দেয় দর্শকদের। ২০১৭ সালের তারকাদের বিবাহ বিচ্ছেদ নিয়ে লিখেছেন তুহিন খান নিহাল।

হাবিব ওয়াহিদ-রেহান

২০১৭ সালটি শুরুই হয়েছে জনপ্রিয় কণ্ঠশিল্পী হাবিব ওয়াহিদের ডিভোর্স দিয়ে। চলতি বছরের জানুয়ারি মাসে হাবিব ওয়াহিদের সঙ্গে তার স্ত্রী রেহানের বিচ্ছেদ ঘটে। তাদের ঘরে আলিম ওয়াহিদ নামে এক সন্তানও রয়েছে। বিচ্ছেদের সময় উভয়ের সম্মতিতেই কোনো কারণ না জানিয়ে ডিভোর্সের ঘোষণা দিলেও মাসখানেক যেতে না যেতেই মুখ খুললেন রেহান। তানজিন তিশার সঙ্গে হাবিবের সম্পর্কের জের ধরেই বিচ্ছেদের এই ঘটনা ঘটেছেÑএমনটিই ছিল রেহানের মন্তব্য। তবে তিশা বরাবরই এটি অস্বীকার করে এসেছেন। আর হাবিব এসব বিষয়ে ছিলেন নিশ্চুপ। তবে কয়েক দিন আগে হাবিবের সঙ্গে তিশার ব্রেকআপও হয়েছে এমন মন্তব্য তিশা গণমাধ্যমে করলেও ধারাবাহিকভাবে এবারও হাবিব রয়ে গেলেন নীরবই। এ বিষয়ে কোনো মন্তব্য করেননি এই সংগীতশিল্পী।

তাহসান-মিথিলা

বছরের সবচেয়ে আলোচিত ডিভোর্স হচ্ছে তাহসান-মিথিলার। কারণ তাহসান ও মিথিলার বিচ্ছেদ মেনে নিতে পারেননি দর্শকরা। যার খবরে ফেসবুকে গ্রুপ খোলেন ভক্ত অনুসারীরা। শিরোনাম ছিল ‘তাহসান-মিথিলার ডিভোর্স চাই না’। কিন্তু শেষ পর্যন্ত বিচ্ছেদের বিষয়টি পাকাপাকি হয় তাদের। কিন্তু পর্দায় তাদের ভাবমূর্তি দর্শকরা সব সময় রোমান্টিক কাপল হিসেবেই দেখেছেন। ডিভোর্সের বিয়ষটি তাহসান ও মিথিলা দুজনই তাদের মিডিয়াকে জানান। ভক্তরা ভেঙে পড়লেও এ তারকা জুটি স্বাভাবিক জীবনযাপন

করছেন।

নিলয়-শখ

মিডিয়ার আলোচিত জুটি ছিলেন নিলয় আলমগীর ও আনিকা কবির শখ। মোবাইল অপারেটর কোম্পানি বাংলালিংকের একটি বিজ্ঞাপনে অংশ নেন এই জুটি। এই বিজ্ঞাপনের মধ্য দিয়ে দেশব্যাপী বেশ পরিচিতিও পেয়ে যান তারা। সেই থেকেই একে অপরকে ভালো লাগা। গত কয়েক বছর ধরেই মিডিয়ার আলোচিত ছিল তাদের প্রেম।

মান-অভিমানে তাদের সম্পর্কও ভেঙে গিয়েছিল। আবার জোড়াও লাগে। ২০১৫ সালে বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হন তারা। কিন্তু স্থায়িত্ব পেল না। চলতি বছর ডিভোর্স হয় তাদের।

স্পর্শিয়া- রাফসান

এ বছরই সংসার ভাঙে মডেল-অভিনেত্রী অর্চিতা স্পর্শিয়া ও নির্মাতা রাফসান আহসানের। ২০১৫ সালের ২৯ সেপ্টেম্বর স্পর্শিয়ার সঙ্গে রাফসানের বাগদান হয়। ১ অক্টোবর তারা বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হন। বিয়ের দুই বছরের মাথায় বিচ্ছেদে জড়ালেন তারা। চলতি বছরের ২১ আগস্ট আনুষ্ঠানিকভাবে দুজনের বিচ্ছেদ হয়। যার কারণ হিসেবে স্পর্শিয়া দেখিয়েছেন রাফসান একেবারে বেকার। আরো অনেক অভিযোগই রয়েছে তার মধ্যে। তাই বাধ্য হয়ে আনুষ্ঠানিক বিচ্ছেদে চলে যান। তবে স্পর্শিয়াকে নিয়ে কোনো নেগেটিভ মন্তব্য করেননি রাফসান।

মোহন খান-নোভা

প্রায় দেড় বছর প্রেম করে ২০১১ সালের ১১ নভেম্বর বিয়ে করেছিলেন জনপ্রিয় নাট্যনির্মাতা মোহন খান ও অভিনেত্রী নোভা। ছয় বছর সংসার করার পর চলতি বছর ২৬ আগস্ট ঢাকা জজকোর্ট কাজী অফিসে তারা পরস্পরকে ডিভোর্স দেন। পারিবারিক সম্মতিতেই ডিভোর্স হয় তাদের।

মিলা ও পারভেজ

১০ বছর প্রেম করার পর পারভেজের সঙ্গে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হন মিলা। সেপ্টেম্বর মাসে পপ গায়িকা মিলার ডিভোর্স হয়েছে বলে গুজব ছড়িয়ে পড়ে। কিন্তু সে সময় এ খবরকে ভিত্তিহীন বলে উড়িয়ে দেন তিনি। অবশেষে সেই গুজবই সত্যি করে ৬ অক্টোবর রাত ৩টার দিকে মিলা তার ফেসবুকে ডিভোর্সের বিষয়টি জানিয়ে একটি স্ট্যাটাস দেন। একাধিক নারীর সঙ্গে সম্পর্কে জড়িয়েছে এমন অভিযোগ এনে পারভেজ সানজারকে ডিভোর্স দেন মিলা।

শাকিব খান ও অপু

বেশ কিছুদিন ধরেই মিডিয়ায় গুঞ্জন ভাসছিল শাকিব-অপুর মধ্যে বিচ্ছেদ ঘটছে। বিশেষ সূত্রের বরাতে খবরও প্রকাশ করে গণমাধ্যম। শেষ পর্যন্ত এটি আর গুঞ্জন হিসেবে থাকেনি।

বছরের একেবারে শেষের দিকে এসে শোবিজে আলোচনার মাঠ গরম করল শাকিব খান ও অপু বিশ্বাসের ডিভোর্স।

অপু বিশ্বাসকে ডিভোর্সের চিঠি পাঠিয়েছেন শাকিব খান। অবশ্য অপু বিশ্বাস এখনো এ ডিভোর্স মেনে নেননি। তবে এই ডিভোর্স এখন সময়ের ব্যাপার মাত্র। এতে করে এ জুটির ৯ বছরের দাম্পত্য সম্পর্কের ইতি ঘটল। ২০০৮ সালের ১৮ এপ্রিল শাকিব খান ও অপু বিশ্বাস বিয়ে করেন। বিয়ের পর থেকেই দুজন বিষয়টি গোপন রাখেন। এভাবেই আট বছর কেটে যায়।

অবশেষে চলতি বছর ১০ এপ্রিল হঠাৎ করেই শিশুসন্তান আব্রামকে নিয়ে একটি বেসরকারি টিভি চ্যানেলের লাইভে এসে অপু বিয়ে এবং সন্তানের বিষয়টি ফাঁস করে দেন। অপ্রকাশ্যে আট বছর সংসার করলেও প্রকাশ্যে এক বছরও টিকল না তাদের সংসার।

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭, ০১৭১৭ ৬৮ ১২ ১৪ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: