সর্বশেষ আপডেট : ৩২ মিনিট ৪৮ সেকেন্ড আগে
শুক্রবার, ২৩ ফেব্রুয়ারী, ২০১৮, খ্রীষ্টাব্দ | ১১ ফাল্গুন ১৪২৪ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

আইডিয়া-এসডিসি-সমষ্টি প্রকল্পের উদ্যোগে দোয়ারাবাজারে কারিগরি প্রশিক্ষণ অনুষ্ঠিত

আইডিয়া-এসডিসি-সমষ্টি প্রকল্পের উদ্যোগে, কেয়ার বাংলাদেশ এর সহযোগিতায় এবং এসডিসি এর অর্থায়নে ০৩নং দোয়ারাবাজার সদর ইউনিয়ন পরিষদের হলরুমে (সোম ও মঙ্গলবার) দু-দিনব্যাপী স্থানীয় সেবা প্রদানকারী (এলএসপি)-গণের কারিগরি প্রশিক্ষণ অনুষ্ঠিত হয়। আইডিয়া-এসডিসি-সমষ্টি প্রকল্পের ফিল্ড ফ্যাসিলিটেটর সুজিত কুমার দাস-এর সার্বিক তত্ত্ববধানে কারিগরি প্রশিক্ষণে রিসোর্স পারসন হিসেবে উপস্থিত ছিলেন দোয়ারাবাজার উপজেলার কৃষি কর্মকর্তা মো: এনামুল হক।

উপজেলার কৃষি কর্মকর্তা মো: এনামুল হক সমন্বিত বালাই দমন ব্যবস্থা বিষয় আলোচনা করতে গিয়ে ফেরোমন টোপ তৈরি ও ব্যবহার বিধি নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করেন। তিনি বলেন, প্রতি শতকে ০১টি ফেরোমন টোপ স্থাপন করতে হবে তবে ব্যবহৃত লিওর প্রতি মৌসুমে পরিবর্তন করতে হবে। তিনি শস্যের নিবিড়তাকরণ বা সাথী ফসল বিষয়ে আলোচনা করতে গিয়ে বলেন, একটি জমিতে বছরে কতধরণের ফসল চাষ করা হয় সেটিই হল শস্যের নিবিড়তাকরণ।

জমির ব্যবহারের বিষয় আলোচনাকালে এনামুল বলেন, দোয়ারাবাজারের জমিগুলো সর্বোচ্চ ১৬৩% ব্যবহার করা হয় যেখানে বাংলাদেশের উত্তরবঙ্গে জমির ব্যবহারের হার ৫০০% এর চেয়েও বেশী। তিনি বলেন, কোন জমিতে একটি ফসল চাষাবাদ করা হলে সেই জমি ১০০% ব্যবহার হয়েছে বলে গণ্যকরা হয়। উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মো: এনামুল হক প্রশিক্ষণ পরবর্তীতে এলএসপি-গণের মধ্যে বিটি বেগুনের প্রদর্শণী প্লটের প্রয়োজনীয় উপকরণ বিতরণ করেন।

দুই দিনব্যাপী প্রশিক্ষণকালে অন্যান্য শেসন পরিচালনা করেন দোয়ারাবাজার উপজেলার উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা বাবুল রায় ও সোহরাব হোসেন। বাবুল রায় জমিতে সারের ব্যবহার বিষয় আলোচনা প্রেক্ষিতে উল্লেখ করেন আমাদের কৃষকরা যখন জমিতে সার ব্যবহার করে তখন ইচ্ছেমতো সার প্রয়োগ করে। কোন সারের পরিমান কেমন হবে, কখন কোন সময় কোন ধরণে সার ব্যবহার করতে হবে সেবিষয় কৃষকদের মধ্যে প্রয়োজনীয় দক্ষতার অভাব রয়েছে। বেশিরভাগ ক্ষেত্রে দেখা যায় সার প্রয়োগের ক্ষেত্রে একাধিক সার একত্রে মিশিয়ে জমিতে প্রয়োগ করা হয়ে যেটির কারণে জমির মাটির গুনাগুন অনেক ক্ষেত্রে নষ্ট হয়ে থাকে। কিছু কিছু সার রয়েছে যা জমিতে পরিমানে খুবই কম দরকার হয় কিন্তু এ ধরণের সার জমিতে ছিটাতে গিয়ে সমস্যা দেখা দেয় এক্ষেত্রে মাটি/বালুর সাথে মিশিয়ে ছিটিয়ে দেয়া সম্ভব। তবে মাটি/বালুর সাথে সার মিশ্রিত করার পর বেশিক্ষণ রাখা যাবেনা।

উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা সোহরাব হোসেন বলেন, স্থানীয় সেবা প্রদানকারী (এলএসপি)-গণদের আরো দক্ষকরা সম্ভব হলে এরাই এলাকায় কৃষকদের সচেতন করে তুলতে পারবে যা সবজী উৎপাদন বৃদ্ধিতে সহায়ক ভূমিকা পালন করবে। উক্ত প্রশিক্ষণে আরো উপস্থিত ছিলেন ফিল্ড ফ্যাসিলিটেটর সুজিত কুমার দাস, খোরশেদ আলম, আব্দুল মন্নান, বজলুল মামুন, আ: জব্বার, মোজাফ্ফর হোসেন, কামাল হোসেন, আবেদ আলী ও প্রনতি রানী দাস প্রমূখ। বিজ্ঞপ্তি

এ বিভাগের অন্যান্য খবর

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭, ০১৭১৭ ৬৮ ১২ ১৪ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: