সর্বশেষ আপডেট : ১৭ মিনিট ২১ সেকেন্ড আগে
বৃহস্পতিবার, ১৪ ডিসেম্বর, ২০১৭, খ্রীষ্টাব্দ | ৩০ অগ্রহায়ণ ১৪২৪ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

নারী কর্তৃক পুরুষরা যেভাবে মানসিকভাবে নির্যাতিত হন!

লাইফস্টাইল ডেস্ক ::
নারী কর্তৃক পুরুষ নির্যাতনের অভিযোগের কথা শুনলেও হাসেন অনেকেই। কিন্তু আসলে এটি হাসির ব্যাপার নয়। এটি বাস্তব এবং নিত্যদিনের ঘটনা। নারী নির্যাতন থেকে মুক্তি পেতে আইনের বাস্তবায়নের জন্য সেমিনার, আলোচনাসভা ও মানববন্ধন পর্যন্ত হচ্ছে। কিন্তু সামাজিকভাবে খুব একটা আমলে না নেয়ায় এর প্রতিকার মিলছে না।

পুরুষ নির্যাতন প্রতিরোধ আন্দোলন নামক একটি সংগঠন বলছে- সমাজে অনেক পুরুষই বউয়ের যন্ত্রণায় নীরবে কাঁদেন। লোকচক্ষুর আড়ালে গিয়ে চোখ মোছেন। কিন্তু দেখার কেউ নেই। এ ছাড়া ভিকটিম সাপোর্ট সেন্টারের ডিসি ফরিদা ইয়াসমিনও জানিয়েছেন এমন কথা।

পুরুষ নির্যাতন প্রতিরোধ আন্দোলনের সভাপতি শেখ খায়রুল আলম ও ভিকটিম সাপোর্ট সেন্টারের ডিসি ফরিদা ইয়াসমিন আলোচনায় উল্লেখ করেছেন- নারী কর্তৃক কীভাবে নির্যাতিত হন পুরুষরা। যুগান্তর পাঠকদের জন্য কিছু বিষয় উল্লেখ্ করা হল।

আসুন জেনে নিই কীভাবে নির্যাতন ও হয়রানির শিকার হন পুরুষরা।

যৌতুকের মামলা : বেশিরভাগ ক্ষেত্রে দেখা যায় সংসারে কোনো সমস্যা হলেও স্বামীর বিরুদ্ধে যৌতুকের মামলা দেয়া। অনেক ক্ষেত্রে দেখা যায় সমস্যা যৌতুক নয় পরকীয়া।

পরকীয়া : অনেক সময় দেখা যায় স্ত্রী যদি পরকীয়ায় আসক্ত হয়, এ ক্ষেত্রে সংসারে অশান্তি সৃষ্টি হয়। অনেক সংসার ভেঙে যায়।

যৌথ পরিবার ভেঙে যাওয়া : এখনকার বেশিরভাগ নারী যৌথ পরিবারে থাকতে চান না। এ ছাড়া স্বামী, বাবা-মাকে দেখভাল করবেন, তাদের বাড়তি যত্ন নেবেন- এসব নানা বিষয় সংসারে ঝামেলা ও বোঝা মনে করেন।

পুরুষ নির্যাতন আইন : পুরুষ নির্যাতনে তেমন কোনো আইন না থাকায় এটি বাড়ছে। কারণ পুরুষ নির্যাতনের কোনো জবাবদিহিতা নেই।

প্রযুক্তির অপব্যবহার : পুরুষ নির্যাতনের অরেকটি বিষয় হচ্ছে- প্রযুক্তির অপব্যবহার। প্রযুক্তির অপব্যবহার করে অনেক নারী পুরুষকে ট্রাপে ফেলেন। সামাজিকভাবে হেয়প্রতিপন্ন করেন। এ ছাড়া অর্থ হাতিয়ে নিচ্ছেন।

আইনের অপব্যবহার : অনেক ক্ষেত্রে নারী নির্যাতন আইনের অপব্যবহার হয়ে থাকে। দেখা যায়, আইনের অপব্যবহারের ফলে অনেক নির্দোষ পুরুষ শাস্তি পান।

শ্বশুর-শাশুড়ি, ননদ-দেবরকে মামলা : অনেক নারী আছেন যারা শ্বশুর-শাশুড়ি, ননদ-দেবরকে মামলা দিয়ে হয়রানি করে থাকেন। এ ক্ষেত্রে কোনো প্রতিকার না থাকায় পুরুষরা বিপদে পড়ে যান।

বৃদ্ধ পিতামাতাকে ত্যাগ : অনেক নারী আছেন যারা শ্বশুর-শাশুড়ি, ননদ-দেবরের সঙ্গে থাকতে ঝামেলা মনে করেন। এ ক্ষেত্রে আলাদা থাকতে পছন্দ করেন। আর পুরুষরা বাবা-মায়ের সঙ্গে থাকতে না পারার কষ্ট কাউকে বলতে পারেন না। সম্মানের কথা চিন্তা করে চুপ থাকেন।

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭, ০১৭১৭ ৬৮ ১২ ১৪ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: