সর্বশেষ আপডেট : ৫ সেকেন্ড আগে
সোমবার, ২০ নভেম্বর, ২০১৭, খ্রীষ্টাব্দ | ৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৪ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

ভর্তিযুদ্ধে অনিয়ম ঠেকাতে মন্ত্রণালয়ের বিশেষ দল

ডেইলি সিলেট ডেস্ক ::
শিগগিরই শুরু হতে যাচ্ছে রাজধানীর সরকারি ও বেসরকারি বিদ্যালয়গুলোর ভর্তিযুদ্ধ। কোনো কোনো বেসরকারি বিদ্যালয় ইতোমধ্যে ভর্তি ফরম বিতরণ শুরু করেছে। বেশির ভাগ বিদ্যালয়ে প্রস্তুতি সম্পন্ন। রাজধানীর ৩৫টি সরকারি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে ভর্তির ফরম বিতরণ শুরু হবে আগামী ডিসেম্বর মাসের প্রথম সপ্তাহ থেকে।

এদিকে, ভর্তি কার্যক্রমের অনিয়ম ঠেকাতে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের বিশেষ দল এবার আগে-ভাগে মাঠে থাকবে। বাড়তি ফি আদায় করলে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে বিভিন্ন শাস্তিমূলক ব্যবস্থাসহ কঠোর উদ্যোগ নেওয়ার পরিকল্পনা করছে মন্ত্রণালয়। এসব ব্যবস্থা নেওয়ার লক্ষ্যে শিগগিরই বিশেষ দলের সদস্যরা মাঠে নামছেন বলে শিক্ষা মন্ত্রণালয় সূত্র জানায়।

ভর্তির ক্ষেত্রে অনিয়ম ও দুর্নীতি অনুসন্ধান করতে দুর্নীতি দমন কমিশনও (দুদক) এবার কঠোর নজরদারি রাখবে। দুদকের সঙ্গে এ বিষয়ে সমন্বয় করছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়। ইতোমধ্যে রাজধানীর নামী শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে বিভিন্ন শ্রেণিতে শূন্য আসনে শিক্ষার্থী ভর্তির পদ্ধতি ও নীতিমালা, এ বছর ভর্তির জন্য আসনসংখ্যা কত, এসব বিষয়ে তথ্য দুদককে দেওয়া হয়েছে মন্ত্রণালয় থেকে। শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলোতে ভর্তি-বাণিজ্য সম্পর্কিত বেশ কিছু অভিযোগও দুদকে জমা পড়েছে। এসব অভিযোগও যাচাই-বাছাই করছে দুদক। শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সূত্র এসব তথ্য জানায়।

জানা যায়, চলতি সপ্তাহে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের প্রকাশিত ভর্তি নীতিমালা সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানকে মানতে বাধ্য করা হবে। এ নীতিমালার মধ্য দিয়ে ভর্তির নামে বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের মনগড়া ফি আদায় বাণিজ্যের লাগাম টেনে ধরতে চাইছে মন্ত্রণালয়। নীতিমালায় মহানগর, জেলা ও উপজেলা এলাকার বিদ্যালয়ে ভর্তির ফি নির্ধারণ করে দেওয়া হয়েছে। এ নীতিমালা অমান্য করে কোনো প্রতিষ্ঠান বাড়তি ফি নিলে তার বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেওয়া হবে। এমনকি প্রতিষ্ঠানের নিবন্ধন ও এমপিও (মান্থলি পে অর্ডার) বাতিল করার উদ্যোগ নেওয়া হবে।

অন্যদিকে এবার থেকে সরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ভর্তি ফি বাড়ছে। নতুন ফি নির্ধারণ করে ইতোমধ্যে নীতিমালাও প্রকাশ করেছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়। তবে বেসরকারি বিদ্যালয়ে ভর্তির ফি আগের মতো রাখা হয়েছে। এ ছাড়া আগামী ১৩ ডিসেম্বরের মধ্যে ভর্তির আবেদনপত্র নেওয়ার কাজ শেষ করতে শিক্ষা মন্ত্রণালয় থেকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদফতরকে (মাউশি)। এতে বলা হয়, আবেদনপত্র যাচাই-বাছাই শেষে ১৭ ডিসেম্বর থেকে শুরু করে ২০ ডিসেম্বরের মধ্যে লিখিত পরীক্ষা শেষ করতে হবে। ডিসেম্বরের শেষ সপ্তাহে প্রথম শ্রেণিতে ভর্তির লটারিসহ সব কার্যক্রম শেষ করে ১ জানুয়ারি থেকে ক্লাস শুরু করার কথাও মন্ত্রণালয়ের নির্দেশনায় উল্লেখ করা হয়েছে।

জানতে চাইলে মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদফতরের (মাউশি) মহাপরিচালক অধ্যাপক এস এম ওয়াহিদুজ্জামান এ প্রসঙ্গে প্রতিদিনের সংবাদকে বলেন, ‘বিদ্যালয়গুলোর বাড়তি ফি আদায়ের প্রবণতা এখন নেই বললেই চলে। তবে কোনো প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে বাড়তি ফি আদায়ের অভিযোগ পেলে; আর তা প্রমাণিত হলে সংশ্লিষ্ট শিক্ষক ও প্রতিষ্ঠানের এমপিও বাতিলসহ আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে। গত ১২ নভেম্বর শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে অনুষ্ঠিত এক সভায় সরকারি ও বেসরকারি বিদ্যালয়ে ভর্তির নীতিমালা চূড়ান্ত করা হয়েছে। শিগগির লটারি ও ভর্তি পরীক্ষার সময় নির্ধারণ করে বিজ্ঞপ্তি দেওয়া হবে। নীতিমালা অমান্য করার সুযোগ কোনো শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের জন্যই নেই।’

যোগাযোগ করলে রাজধানীর মতিঝিল আইডিয়াল স্কুল ও কলেজের অধ্যক্ষ শাহান আরা বেগম প্রতিদিনের সংবাদকে বলেন, ‘আজ বুধবার থেকে এ প্রতিষ্ঠানে ভর্তি ফরম বিতরণ শুরু হবে। বিতরণ চলবে দশ দিন পর্যন্ত। এ প্রতিষ্ঠানে এবার প্রথম, দ্বিতীয় ও তৃতীয় শ্রেণিতে ভর্তি করা হবে।’

তথ্যমতে, নীতিমালা অনুযায়ী সরকারি বিদ্যালয়ে ভর্তি ফি বাড়ছে। সরকারি বিদ্যালয়গুলোতে আবেদন ফরমের মূল্য ২০ টাকা বেড়ে ১৭০ টাকা হচ্ছে। তবে বেসরকারি বিদ্যালয়ে ফি বাড়ছে না। বেসরকারি বিদ্যালয়ের ভর্তি ফরমের দাম বাড়াতে মাউশির প্রস্তাব নাকচ করে ২০০ টাকায় বহাল রেখেছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের ভর্তি নীতিমালা-সংক্রান্ত কমিটি। ভর্তি নীতিমালায় ফরমের দাম বাড়াতে সুপারিশ করেছিল মাউশি। গত রোববার অনুষ্ঠিত শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে ভর্তি নীতিমালা-সংক্রান্ত কমিটি বেসরকারি স্কুলে ভর্তি নীতিমালা চূড়ান্ত করে।

নীতিমালা অনুযায়ী, বেসরকারি বিদ্যালয়ে ভর্তির ফি ধরা হয়েছে ঢাকা মেট্রোপলিটনে সর্বোচ্চ পাঁচ হাজার টাকা, অন্যান্য মেট্রোপলিটনে তিন হাজার টাকা, জেলা শহরের বিদ্যালয়ের জন্য দুই হাজার টাকা, উপজেলা পর্যায়ে এক হাজার টাকা আর মফস্বলে নির্ধারণ করা হয়েছে ৫০০ টাকা। এবার ভর্তি ফরমের সর্বোচ্চ মূল্য নির্ধারণ করা হয়েছে ২০০ টাকা।

মাউশির অধীন রাজধানীতে ৩৫টি সরকারি মাধ্যমিক বিদ্যালয় আছে। এর মধ্যে ১৪টিতে প্রথম শ্রেণি চালু আছে। নীতিমালা অনুযায়ী, প্রথম শ্রেণিতে লটারির মাধ্যমে শিক্ষার্থী ভর্তি করা হবে। ২০১৮ সালের ১ জানুয়ারিতে যেসব শিশুর বয়স পাঁচ থেকে ছয় বছর, কেবল ওরাই প্রথম শ্রেণিতে ভর্তির আবেদন করতে পারবে। নবম শ্রেণি বাদে বাকি শ্রেণিগুলোতে পরীক্ষার মাধ্যমে ভর্তি করা হবে। নবম শ্রেণিতে ভর্তি হবে জেএসসি ও জেডিসি পরীক্ষার ফলের ভিত্তিতে। ভর্তিতে আগের মতো মুক্তিযোদ্ধা, প্রতিবন্ধী, এলাকা ও শিক্ষা বিভাগের কোটা থাকবে। পাশাপাশি সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের ১০ শতাংশ আসন সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের জন্য বরাদ্দ থাকবে।

সূত্র : সংবাদপ্রতিদিন

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭, ০১৭১৭ ৬৮ ১২ ১৪ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: