সর্বশেষ আপডেট : ৭ মিনিট ৫০ সেকেন্ড আগে
রবিবার, ১৯ নভেম্বর, ২০১৭, খ্রীষ্টাব্দ | ৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৪ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

মিরসরাই অর্থনৈতিক অঞ্চল উন্নয়নের কাজ করবে নৌবাহিনী

নিউজ ডেস্ক:: মিরসরাই অর্থনৈতিক অঞ্চল উন্নয়নের কাজ করবে নৌবাহিনী। কোনো দরপত্র ছাড়াই নৌবাহিনী সাড়ে ৯৩ লাখ ঘনমিটার মাটি সরাসরি ক্রয় করে উন্নয়নের কাজ করবে। এতে ব্যয় হবে ২১৮ কোটি টাকা।

বুধবার সচিবালয়ে অনুষ্ঠিত অর্থনৈতিক বিষয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির সভায় এ সংক্রান্ত একটি প্রস্তাব অনুমোদন দেয়া হয়েছে। অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিতের সভাপতিত্বে সভায় কমিটির অন্যান্য সদস্য ও সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ের ঊর্ধ্বতন কর্মাতারা উপস্থিত ছিলেন।

সভা শেষে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের অতিরিক্ত সচিব মো. মোস্তাফিজুর রহমান সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান।

সূত্র জানায়, মিরসরাই অর্থনৈতিক অঞ্চলের ৮৩১ একর জমি ব্লকের প্রতিষ্ঠার কাজ শুরু হয়েছে। অঞ্চলটি সমুদ্রতীরবর্তী হওয়ায় ভূমির উচ্চতা সমুদ্র থেকে ৭ মিটারে উন্নীত করতে হবে। বিশ্বব্যাংকের অর্থায়নে এ প্রকল্পের আওতায় ৪ দশমিক ১৫ মিটার ভরাটের কাজ প্রক্রিয়াধীন আছে। কিন্তু প্রকল্পের সংশোধিত ডিপিপিতে কোনো অর্থ বরাদ্দ না থাকায় বাকি উন্নয়ন কাজের ব্যয় বিশ্বব্যাংকের অর্থায়নে শেষ করা সম্ভব হচ্ছে না। ফলে এই অর্থনৈতিক অঞ্চলের বাকি উন্নয়ন কাজের ব্যয় বাংলাদেশ অর্থনৈতিক অঞ্চল কর্তৃপক্ষের (বেজা) নিজস্ব অর্থায়নে শেষ করার উদ্যোগ নেয়া হয়।

প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় থেকে এ সংক্রান্ত এক সারসংক্ষেপে বলা হয়েছে, এই উন্নয়ন কাজ প্রতিযোগিতামূলক দরপত্রের মাধ্যমে শেষ করতে সময়ের প্রয়োজন। কিন্তু আসন্ন শীত মৌসুম অর্থাৎ আগামী ২০১৮ সালের ফেব্রুয়ারির মধ্যে কাজ শেষ করতে হবে। অন্যথায় কাজ শেষ করার জন্য ২০১৯ সালের শীত মৌসুমের অপেক্ষায় থাকতে হবে। কারণ মৌসুমী বায়ু প্রবাহের সঙ্গে সঙ্গে সমুদ্র উত্তাল হয়ে পড়ে। ওই সময় সমুদ্র অঞ্চলে কাজ করা কঠিন হয়ে পড়বে। এসব বিবেচনায় জরুরি ভিত্তিতে কাজ শেষ করা প্রয়োজন।

সারসংক্ষেপে আরও বলা হয়, বাংলাদেশ নৌবাহিনী একটি সরকারি প্রতিষ্ঠান। এ প্রতিষ্ঠান ইতোমধ্যে পানি উন্নয়ন বোর্ডের একাধিক কাজ শেষ করেছে। মিরসরাই অথনৈতিক অঞ্চলটি সমুদ্রতীরবর্তী। সামুদ্রিক পরিবেশে নৌবাহিনীর কাজের বিশেষ অভিজ্ঞতা রয়েছে। ফলে এ উন্নয়ন কাজ নৌবাহিনীর পক্ষে শেষ করা সহজ হবে।

এ কাজে পানি উন্নয়ন বোর্ড (পাউবি) প্রতি ঘনমিটার মাটির ক্রয়মূল্য সর্বনিম্ন ৩১৮ দশমিক ১৪ টাকা এবং সর্বোচ্চ ৩৪০ দশমিক ৬৮ টাকা প্রস্তাব করেছে। এতে উন্নয়ন কাজের সর্বনিম্ন ব্যয় প্রায় ৩০৭ কোটি টাকা এবং সর্বোচ্চ ৩১৮ কোটি টাকা দাঁড়ায়। অপরদিকে প্রতি ঘনমিটার মাটির ক্রয়মূল্য ২২৩ দশমিক ২০ টাকার প্রস্তাব করেছে নৌবাহিনী। এতে ব্যয় দাঁড়ায় ২১৮ কোটি ৪ লাখ ২০ হাজার টাকা।

এ বিভাগের অন্যান্য খবর

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭, ০১৭১৭ ৬৮ ১২ ১৪ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: