সর্বশেষ আপডেট : ৫১ সেকেন্ড আগে
শনিবার, ১৮ নভেম্বর, ২০১৭, খ্রীষ্টাব্দ | ৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৪ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

সিলেটে মোবাইল চুরির অভিযোগে এক কিশোরকে বর্বর নির্যাতন : একজন আটক (ভিডিওসহ)

মারুফ হাসান ::
এক কিশোরকে গাছের সাথে হাত-পা বেধে মধ্যযোগীয় কায়দায় নির্যাতন করা হয়েছে। তার বিরুদ্ধে অভিযোগ, সে জনৈক ব্যক্তির মোবাইল চুরি করেছে। শুধু তাই নয় এই কিশোরকে দেয়া হয়েছে পুলিশের কাছে। পুলিশ তাকে ইয়াবা মামলায় ঢুকিয়ে দিয়েছে। বিচার না পেয়ে স্বজনরা ঘুরছেন দ্বারে দ্বারে।

২৯ অক্টোবর এই ঘটনাটি ঘটেছে সিলেটের গোয়াইনঘাট উপজেলার মানাউরা পূর্বপাড়া গ্রামে। ঘটনার দুটি ভিডিও ক্লিপ ডেইলি সিলেটের কার্যালয়ে আসে। একটি ভিডিওতে হাত-পা বাধা অবস্থায় এক কিশোরকে মাটিতে পড়ে থাকতে দেখা যায়। সাদা দাড়িওয়ালা একজন মুরব্বি হাতে কঞ্চি দিয়ে ঐ কিশোরকে বেধড়ক পেটাচ্ছেন । কিশোরটি ‘ও মাই, মাই গো…’ বলে চিৎকার করছিল এবং ক্ষমা চাইছিল বলছিল ‘দাদাগো আর ইতা করতাম নায়’।
অপর একটি ভিডিওতে দেখা যায় কিশোরটি মাটিতে পড়ে আছে এবং ঐ মুরব্বি অকথ্য ভাষায় গালাগাল করছেন। এক সময় কিশোরটিকে কান ধরে ওঠবস করিয়ে পুলিশের কাছে সোপর্দ করা হয়। বিচারের এই কায়দাটি স্থানীয় গ্রামবাসীর চোখের সামনেই হয়েছে।

নির্যাতনের শিকার দিনমজুর ঐ কিশোরের নাম সোহেল আহমদ (১৬)। সোহেল আহমদের মা বেবাই বেগম বাংলাদেশ মানবাধিকার ফাউন্ডেশন সিলেট জেলা শাখা বরাবরে ৩ ব্যক্তির নাম এবং অজ্ঞাত কয়েকজন উল্লেখ করে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। অভিযোগ থেকে জানা যায়, ২৮ অক্টোবর রাত ৮টার দিকে দোকানের কথা বলে সোহেল বাড়ি থেকে বের হয়। রাত সাড়ে ১০টার দিকে তিনি জানতে পারেন একই গ্রামের মর্তুজ আলীর পুত্র মো. আজিজুল (৪০) চুরির অভিযোগে সোহেলকে তার বাড়িতে আটকে রেখেছেন। পরে গ্রামের অপর এক মুরব্বি ইছবর আলী (৬৫) বিষয়টি সকালে দেখে দেয়া হবে বলে সোহেলকে নিজের জিম্মায় নেন।

অভিযোগে সোহেলের মা বেবাই বেগম আরো বলেন, পরদিন আমাদের কিছু না জানিয়েই গ্রামের মুরব্বি ইছবর আলী, মো. আজিজুল এবং মো. আব্দুল্লাহসহ কয়েকজন আমার ছেলেকে হাত-পা বেধে মারপিট করেন। পরে পুলিশের কাছে সোহেলকে দিলে পুলিশ ১২ পিস ইয়াবা তার কাছে পাওয়া গেছে উল্লেখ করে মাদক আইনে মামলা করে। মামলা নং ১৬। বর্তমানে সোহেল কারাগারে আছে।

পুলিশ মামলার বিবরণে উল্লেখ করে, গোয়াইনঘাট থানাধীন সালুটিকর বাজারে ডিউটি করা কালীন সময়ে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে জানতে পারে একজন মাদক ব্যবসায়ী নন্দিরগাঁও সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের উত্তর পাশে মো. আজিজুল রহমানের বাড়ির পিছনে রাস্তার উপর দাড়িয়ে ইয়াবা ট্যাবলেট বিক্রি করছে। তখন পুলিশ ফোর্স নিয়ে সেখান থেকে মো. সোহেল আহমদ প্রকাশিত রাসেল (১৮)কে আটক করে। সোহেলকে তল্লাশী করে তার পকেটে ১২ পিস লালচে রঙের ইয়াবা ট্যাবলেট পায়।

বিষয়টি নিয়ে কথা হয় ৭ নম্বর নন্দিরগাঁও ইউনিয়ন পষিদের চেয়ারম্যান এইচ এম কামরুল হাসান আমিরুলের সাথে। তিনি বলেন, ঘটনাটি পত্রপত্রিকার মাধ্যমে আমি জেনেছি। আমার কাছে এ বিষয়ে কেউ বিচার নিয়ে আসেনি। তিনি বলেন আমি ভিডিওটি দেখেছি এভাবে নির্যাতন করাটা অবশ্যই অন্যায়।

বাংলাদেশ মানবাধিকার ফাউন্ডেশন সিলেট জেলা শাখার সচিব মো. বিল্লাল উদ্দিন বলেন, নির্যাতীত কিশোর সোহেল আহমদের মা একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। ফাউন্ডেশনের সহসম্পাদক দুর্গেশ সরকার বাপ্পি বিষয়টি তদন্ত করে কিছু ভিডিও ফুটেজ সংগ্রহ করেন। সেখানে কিশোর সোহেলকে নির্যাতনের প্রমাণ পাওয়া গেছে। এছাড়াও স্থানীয় গ্রামবাসীও এমন ঘটনার সুষ্ঠ তদন্ত এবং বিচার দাবি করেছেন।
তিনি আরো বলেন, মোবাইল চুরি ঘটনাটি সাজানো। মূলত ২০১৬ সালে সোহেলের মা গরু চুরির দায়ে অভিযুক্তদের আসামী করে একটি মামলা করেছিলেন সেই মামলার জের থেকে ঘটনাটি ঘটানো হয়েছে।

কিশোর সোহেল নির্যাতনের ঘটনায় ইছবর আলী নামের একজনকে সোমবার আটক করা হয়েছে বলে নিশ্চিত করেছেন গোয়াইনঘাট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. দেলোয়ার হোসেন। নির্যাতীত কিশোর সোহেল এখন মাদক মামলায় কারাগারে রয়েছে বলেও তিনি উল্লেখ করেন।




এ বিভাগের অন্যান্য খবর

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭, ০১৭১৭ ৬৮ ১২ ১৪ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: