সর্বশেষ আপডেট : ২২ মিনিট ৩৩ সেকেন্ড আগে
শুক্রবার, ২৪ নভেম্বর, ২০১৭, খ্রীষ্টাব্দ | ১০ অগ্রহায়ণ ১৪২৪ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

নগরীতে গৃহবধূর রহস্যজনক মৃত্যু

বিশেষ প্রতিবেদক ::
সিলেট নগরীর সুবিদবাজারে এক গৃহবধূর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। তাঁর নাম লিজা সুলতানা। এই গৃহবধূর মৃত্যু নিয়ে সর্বত্র রহস্যের সৃষ্টি হয়েছে। নিহতের স্বজনরা দাবি করছেন এটি আত্মহত্যা নয় পরিকল্পিত হত্যা।

জানা গেছে, নগরীর সুবিদবাজার কর্ণার ভিউ বিল্ডিং এর সপ্তমতলার প্রথম ফ্ল্যাট থেকে লিজা সুলতানার লাশ শুক্রবার সকাল ১০টার দিকে উদ্ধার করে পুলিশ। ছয় ফুট উচ্চতার বেলকনিতে ঝুলন্ত অবস্থায় লিজার লাশ পাওয়া গেছে। পুলিশ যখন লাশ উদ্ধার করে তখন লাশের হাঁটু পর্যন্ত মেঝেতে লাগানো অবস্থায় ছিলো। তাই লিজার মৃত্যু নিয়ে সর্বত্র রহস্যের সৃষ্টি হয়েছে।

নিহত লিজা সুলতানার শ্বশুরবাড়ীর লোকজন আত্মহত্যা বলে দাবি করলেও নিহতের মামা বিয়ানীবাজার চারখাই ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ইকবাল আহমদ দাবি করছেন, এটা একটি পরিকল্পিত হত্যাকাণ্ড। লিজার শ্বশুরবাড়ীর লোকজন তাকে খুন করে লাশ ঝুলিয়ে রেখেছে। তিনি দাবি করেন, পাঁচ ফুট দুই ইঞ্চি উচ্চতার একজন মানুষ ছয় ফুট বেলকনিতে কি করে আত্মহত্যা করতে পারে। কোন সুস্থ মানুষ এটাকে আত্মহত্যা বলতে পারে না।
ইকবাল আহমদ আরো জানান, গত বৃহস্পতিবার রাতে লিজার শ্বশুরবাড়ীর লোকজনের সাথে তার সমস্যা হলে লিজার ছোট ভাই রোকসান আহমাদ তাদের ফ্লাটে যান। তিনি সেখান থেকে চলে আসার পর ঐ রাতে আবারো লিজার সাথে শ্বশুরবাড়ীর লোকজনের সমস্যা হয়। এরই জের ধরে লিজাকে হত্যা করে লাশ বেলকনিতে ঝুলিয়ে দেয়া হয়েছে।

নিহতের পরিবার সুত্রে জানা যায়, লিজা সুলতানার স্বামী মাতাব উদ্দিন আগে আরো একটি বিয়ে করেছিলেন। সেই স্ত্রীর কথা তাদের জানানো হয়নি। এ নিয়ে আগের স্ত্রী বেকেঁ বসলে লিজাকে মাতাব উদ্দিন ২০ লাখ টাকা নিয়ে চলে যেতে বলেন। লিজা রাজি না হওয়াতে লিজার শ্বশুরবাড়ীর লোকজন তাঁর উপর শারীরিক নির্যাতন চালায়।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, কর্ণার ভিউ-এর ৭ম তলার ফ্ল্যাটের দরজা বন্ধ। কলিংবেল টিপলে নিহতের দেবরের স্ত্রী পাশের জানালা দিয়ে কথা বলেন। পরিচয় দিয়ে কথা বলতে চাইলে তিনি বলেন, আমরা কোন কথা বলতে পারবো না। পুলিশের পক্ষ থেকে নিষেধ আছে। তার স্বামী বাসায় আছেন কিনা জানতে চাইলে তিনি বলেন, উনি
কথা বলবেন না।

এদিকে, সিলেট মেট্রোপলিটন পুলিশ (এসএমপি) এর কোতোয়ালি থানার ওসি গোছুল হোসেন বলেন, এটা আত্মহত্যা। তবে এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, লাশের হাটু পর্যন্ত মেঝেতে লাগানো অবস্থায় ছিলো বলে তিনি শুনেছেন। মেডিকেল রির্পোট পাওয়া গেলে বিষয়টা বুঝা যাবে বলে জানান তিনি।

নিহত গৃহবধূ লিজার শ্বশুরবাড়ী বড়লেখা উপজেলার হাটবন এলাকায়। বাবাড় বাড়ী বিয়ানীবাজার উপজেলার আঙ্গুরা মহাম্মদপুর গ্রামে। তাঁর পিতার নাম জালাল উদ্দিন। ব্যবসায়ী মতিউর রহমান চৌধুরীর ফ্লাটে লিজা ও তাঁর শ্বশুরবাড়ীর লোকজন ভাড়া থাকেন।

এ ঘটনায় কোতোয়ালি থানায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে বলে জানান লিজার মামা।

এ বিভাগের অন্যান্য খবর

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭, ০১৭১৭ ৬৮ ১২ ১৪ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: