সর্বশেষ আপডেট : ১১ মিনিট ২৫ সেকেন্ড আগে
রবিবার, ১৯ নভেম্বর, ২০১৭, খ্রীষ্টাব্দ | ৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৪ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

মৌলভীবাজারে অটোরিকশা চালকদের সংঘর্ষে আহত ১৫

কমলগঞ্জ প্রতিনিধি ::
মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ উপজেলার শমশেরনগর সিএনজি অটোরিকশা চালকদের স্ট্যান্ডের রোটেশনের টাকা নিয়ে দু’পক্ষের সংঘর্ষে ১৫ জন আহত হয়েছেন। সিএনজি অটোরিকশা চালকদের সংঘর্ষে শরীফপুর থেকে আসা জেএসসি পরীক্ষার্থীরা দুর্ভোগে পড়ে। পরিস্থিতি উত্তপ্ত হলে পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা ঘটনাস্থলে আসলে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আসে। গতকাল বুধবার সকাল পৌনে দশটায় শমশেরনগর চৌমুহনাস্থ চাতলাপুর সড়কে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।
অটোরিকশাচালকরা বলেন, স্ট্যান্ডের রটেশনের ১০ টাকা ও ১৫ টাকা নিয়ে কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে শমশেরনগর চৌমুহনা অটোরিকশাচালক সমিতি ও কুলাউড়া উপজেলার শরীফপুরের তেলিবিল অটোরিকশাচালক সমিতির চালকরা কাঠের টুকরো, লাটি ও ইট নিয়ে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়েন। সংঘর্ষে উভয় পক্ষের ১৫ জন আহত হন। পরিস্থিতি উত্তপ্ত হয়ে উঠলে শরীফপুর তেলিবিল উচ্চবিদ্যালয় থেকে আসা জেএসসি পরীক্ষার্থীরা দুর্ভোগে পড়ে। আহতদের বিভিন্ন চিকিৎসা কেন্দ্র ও হাসপাতালে চিকিৎসা প্রদান করা হয়েছে। এরপরও চাতলাপুর সড়কের দু’পাশে দু’পক্ষের অবস্থান নিলে উত্তেজনা দেখা দেয়। খবর পেয়ে মৌলভীবাজারের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আনোয়ারুল হক, সহকারী পুলিশ সুপার আশফাকুজ্জামান ও কমলগঞ্জ থানার ওসি বদরুল হাসান ঘটনাস্থলে আসলে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আসে।
তেলিবিল অটোরিকশাচালক সমিতির সভাপতি সুরুক আলী বলেন, অটোরিকশা গাড়ি রাখার নির্দিষ্ট স্থান না দিয়েও অন্যায়ভাবে শমশেরনগর সমিতির সদস্যরা ১০ টাকার পরিবর্তে ১৫ টাকা দাবি তোলেছেন। এই দাবি নিয়ে শমশেরনগর চৌমুহনা সতিতির সদস্যদের আক্রমনে সায়েদ আলী, মোহিত মিয়া, কয়সর মিয়া, সফিক আলী, তসলিম মিয়া, মেহের উদ্দীনসহ অন্ততপক্ষে দশ জন গুরুতর আহত হয়েছেন।
শমশেরনগর চৌমুহনা চালক সমিতির সাধারণ সম্পাদক সারফিন মিয়া বলেন, তেলিবিল সমিতির সদস্যরা কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে আক্রমণ চালিয়ে আমাকে এবং আমাদের সমিতির কাসরুল, হুরমত মিয়া, জামাল মিয়া, শাহিন মিয়া, শামীম মিয়া, সোহেল মিয়া, রায়হান ও বারিকসহ দশ, বারোজনকে আহত করেছেন।
সংঘর্ষের পর পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা ঘটনাস্থলে এসে দু’পক্ষের সঙ্গে আলোচনা করে পরিস্থিতি স্বাভাবিক করেন। শমশেরনগর পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ সৈয়দ নাসির উদ্দীন বলেন, তারা আমাদের কথা না শুনে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। তবে ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের উপস্থিতিতে দু’পক্ষকে শান্ত থেকে চিকিৎসা প্রদান করতে বলা হয়েছে। স্থানীয়ভাবে একটি সামাজিক বৈঠক অনুষ্ঠিত হবে। বৈঠকে সমস্যার সমাধান না হলে আইনি ব্যবস্থা নেয়া হবে।

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭, ০১৭১৭ ৬৮ ১২ ১৪ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: