সর্বশেষ আপডেট : ১৯ মিনিট ৮ সেকেন্ড আগে
বৃহস্পতিবার, ১৮ জানুয়ারী, ২০১৮, খ্রীষ্টাব্দ | ৫ মাঘ ১৪২৪ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

শ্রীমঙ্গলে ভাড়াটে সন্ত্রাসী দিয়ে জায়গা দখল করার অভিযোগে সংবাদ সম্মেলন

শ্রীমঙ্গল প্রতিনিধি:: শ্রীমঙ্গলে ৯২ লক্ষ টাকার জায়গা বিক্রির কাফ্ফারা ধার্য হয়েছে ১০ লাখ টাকা। উপজেলার রাধানগর এলাকার লেবু-আনারস চাষী আব্দুল মতিন মিয়ার কাছে এই টাকা দাবী করেছে আবু দাইয়ান চৌধুরী (টুনু চৌধুরী) নামে এক প্রভাবশালী। টাকা না পেয়ে ভাড়াটে সন্ত্রাসী দিয়ে জায়গা দখল করার অভিযোগ করেছেন মতিন মিয়া। শুক্রবার দুপুরে মতিন মিয়া (৫৫) শ্রীমঙ্গল প্রেসক্লাবে এক সংবাদ সম্মেলনে এ অভিযোগ করেন।

আব্দুল মতিন বলেন, গত ২০/২২ দিন আগে তিনি ঢাকার জনৈকা এক মহিলার নিকট তার মালিকানাধীন কিছু জায়গা বিক্রি করেন। ৯২ লাখ টাকা সাব্যস্তে ৭০ লাখ টাকায় একটি বায়নাও সম্পাদন করা হয়েছে। এখবর পেয়ে টুনু চৌধুরী তার সাথে দেখা করে ১০ লক্ষ টাকা হাওলাদ হিসেবে চায়। আব্দুল মতিন বলেন, এই টাকা না পেয়ে ভাড়াটে সন্ত্রাসীরা ২০১৩ সালে উদয় সাঁওতাল নামে স্থানীয় এক আদিবাসীর কাছ থেকে কেনা ১৫ শতাংশ জমি দখলের চেষ্টা করছে। গত ২৫ অক্টোবর দুপুরে এলাকার উদয় সাঁওতালের পুত্র রতিশ সাঁওতালের নেতৃত্বে ২৫/৩০ জনের একদল সন্ত্রাসী জমি দখল করতে হামলা করে।

এদিন সন্ধ্যার পরপরই কামাল মিয়া, হাবিব মিয়া, খলিল মিয়াসহ প্রায় অর্ধ শতাধিক সন্ত্রাসীরা দিত্বীয় দফা হামলা চালিয়ে তার জমি দখল করতে যায়। আব্দুল মতিন তাৎক্ষনিক ভাবে স্থানীয় শ্রীমঙ্গল ৩নং ইউপি ভানু লাল রায়, এলাকার সাবেক মেম্বার শফিকুল ইসলাম লিটন ও শ্রীমঙ্গল থানার ওসি কে এম নজরুলকে অবহিত করেন। রাতেই পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে। খবর পেয়ে চেয়ারম্যান ভানু লাল রায় সেখানে গিয়ে উভয় পক্ষের সাথে কথা বলেন। তিনি সংঘর্ষ এড়াতে বিবাদমান ভূমি থেকে উভয় পক্ষকে সড়িয়ে দেন। তিনি পরবর্তিতে শালিস বৈঠকের মাধ্যমে জমির মালিকানা নির্ণয় করে প্রকৃত মালিককে জমি বুঝিয়ে দেয়ার সিদ্ধান্ত দেন।

এদিকে স্থানীয় চেয়ারম্যানের এই সিদ্ধান্ত দেয়ার পর উপজাতি উদয় সাঁতালের ছেলে রতিশ সাঁওতাল আদিবাসী পরিবারকে উচ্ছেদের থানায় মিথ্যা সন্ত্রাসী হামলার অভিযোগ দায়ের করেন বলে আব্দুল মতিন সংবাদ সম্মেলনে অভিযোগ করেন।

আবু দাইয়ান চৌধুরী (টুনু চৌধুরী)’র ও সাথে মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, ‘আব্দুল মতিনের সাথে তার গত ২ বছর যাবত কথা নাই, টাকা চাইবো কেমনে। এই ব্যাপারে আমি কিছুই জানিনা। সেখানে আমার এক ভাগ্নে জামাই’র বাগান আছে, আমি সেই বাগান দেখাশুনা করি। সে সুবাদে এলাকায় আমার যাতায়াত আছে। মতিন মিয়ার জায়গা বিক্রির বিষয়ে আমার তো জানারই কথা না’।

 

এ বিভাগের অন্যান্য খবর

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭, ০১৭১৭ ৬৮ ১২ ১৪ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: