সর্বশেষ আপডেট : ২৩ মিনিট ৪৭ সেকেন্ড আগে
রবিবার, ২২ এপ্রিল, ২০১৮, খ্রীষ্টাব্দ | ৯ বৈশাখ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

কুলাউড়ায় স্কুল পরিচালনা কমিটি গঠনে অনিয়ম-অভিভাবকদের বিক্ষোভ মিছিল

বিশেষ প্রতিনিধি : কুলাউড়া উপজেলার ভূকশিমইল ইউনিয়নের নবীগঞ্জ আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয়ের পরিচালনা কমিটি গঠনে অনিয়মের অভিযোগ উঠেছে। শিক্ষক, অভিভাবক ও স্থানীয়দের না জানিয়ে মেয়াদ শেষ হওয়ার পূর্বেই বর্তমান সভাপতি এবং প্রধান শিক্ষক গোপন আতাতের মাধ্যমে কোন সভা ছাড়াই একটি পকেট কমিটি গঠন করে শিক্ষা অফিসে জমা দেন। এ বিষয়টি জানাজানি হলে অভিভাবক ও স্থানীয়দের মধ্যে চরম ক্ষোভ ও উত্তেজনা দেখা দেয়। কমিটি বাতিলের দাবিতে তারা শনিবার দুপুরে স্কুলের সামনে বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সমাবেশ করে। গতকাল ১৫ অক্টোবর রোববার কুলাউড়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার, সিলেট শিক্ষা বোর্ড চেয়ারম্যান, জেলা ও উপজেলা শিক্ষা অফিসারের কাছে লিখিত অভিযোগ দেন। সরেজমিনে গিয়ে জানা যায়, অজ্ঞাত কারনে গত এক সপ্তাহ থেকে প্রধান শিক্ষক আব্দুস সালাম বিদ্যালয়ে আসছেন না। মুক্তাজিপুর গ্রামের প্রবীন মুরব্বি ইছহাক মিয়া বলেন, আমরা পকেট কমিটি মানিনা। তা বিলুপ্ত করে নির্বাচনের মাধ্যমে নতুন কমিটি ঘোষনা করতে হবে। এ দাবিতে আমরা অভিভাবক ও এলাকাবাসী স্কুলের সামনে বিক্ষোভ মিছিল বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সমাবেশ করেছি। বর্তমান কমিটির সদস্য মাসুক মিয়া অভিযোগ করে বলেন, বর্তমান কমিটির মেয়াদ শেষ হবে আগামী ১৬ নভেম্বর। নতুন কমিটি গঠনের লক্ষে ইতোমধ্যে ভোটার তালিকাও তৈরি করা হয়েছে। কিন্তু১২ অক্টোবর জানতে পারলাম কমিটি গঠন হয়ে গেছে। বিষয়টি জানতে প্রধান শিক্ষক ও সভাপতির সাথে একাধিকবার যোগাযোগ করলেও তারা আমাকে কিছু বলেননি। অভিভাবক ইদ্রিছ উদ্দিন, হাজী আছলম মিয়া, আছকর আলী, ইব্রাহীম আলী বলেন, নির্বাচনের মাধ্যমে আগামী মাসে নতুন কমিটি গঠনের কথা। কিন্তু কাউকে না জানিয়ে প্রধান শিক্ষক আব্দুস সালাম বর্তমান সভাপতি আব্দুল আজিজ এর সাথে গোপন আতাত করে নিয়ম বহির্ভূতভাবে শিক্ষা অফিসে মনগড়া একটি কমিটি জমা দেন। যা নিন্দনীয়।
শিক্ষক প্রতিনিধি ভানু রাম বিশ^াস, বিএসসি শিক্ষক শফিউল ইসলাম বলেন, কিভাবে কমিটি গঠন হলো আমরাও জানিনা। ১১ অক্টোবর শুনলাম যে, স্কুল পরিচালনা কমিটি হয়েছে।
জাব্দা গ্রামের আব্দুল কাদির, ফারুক মিয়া, কমিটির সাবেক সদস্য তারা মিয়া, সামাদ মিয়া, রাজা মিয়া, কাজল মিয়াসহ অনেকেই অভিযোগ করে বলেন, বর্তমান সভাপতি আব্দুল আজিজ এর আগেও বিদ্যালয়ের আয়-ব্যয়ের হিসাবে ব্যাপক অনিয়ম করেছেন। অপরদিকে প্রধান শিক্ষক সপ্তাহে দু’একদিন স্কুলে আসেন। স্কুলে না এসে প্রাইভেট পড়ানো নিয়ে তিনি ব্যস্ত থাকেন। সরকারীভাবে দেয়া স্কুলের কম্পিউটারটিও প্রধান শিক্ষক নিজ বাড়িতে নিয়ে গেছেন। এবিষয়ে জানতে প্রধান শিক্ষক আব্দুস সালামের মোবাইল ফোনে একাধিকবার ফোন দিয়েও পাওয়া যায়নি।
বর্তমান সভাপতি আব্দুল আজিজ কমিটি গঠনের সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, যা হয়েছে নিয়মতান্ত্রিকভাবে হয়েছে। উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার মোহাম্মদ আনোয়ার জানান, নির্বাচনী তফসিল প্রধান শিক্ষকের মাধ্যমে নোটিশ বোর্ডে টানানো এবং ক্লাশে ক্লাশে শিক্ষার্থীদের জানিয়ে দেওয়ার কথা। কিন্তু প্রধান শিক্ষক তা করেছেন কিনা আমি জানিনা। উপজেলা নির্বাহী অফিসার চৌঃ মোঃ গোলাম রাব্বী বলেন, বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

এ বিভাগের অন্যান্য খবর

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭, ০১৭১৭ ৬৮ ১২ ১৪ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: