সর্বশেষ আপডেট : ২৮ মিনিট ৩৩ সেকেন্ড আগে
মঙ্গলবার, ২৪ অক্টোবর, ২০১৭, খ্রীষ্টাব্দ | ৯ কার্তিক ১৪২৪ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

পাথর খেকোদের হিংস্র থাবার কবলে কানাইঘাটের বাংলাটিলা

আমিনুল ইসলাম, কানাইঘাট:: সীমান্তবর্তী খাসিয়া পাহাড়ের পাদদেশে কানাইঘাট উপজেলার ১নং লক্ষীপ্রসাদ পুর্ব ইউপির অসংখ্য ছোট বড় টিলার মধ্যে ঐতিহ্যবাহী সু-উচ্চ বাংলা টিলা পাথর খেকোদের হিংস্রর থাবায় আজ ক্ষতবিক্ষত হতে চলছে। বর্ষা মৌসুমে নদীতে পানি বেশী থাকায় পাথর খেকোদের লুলুপ দৃষ্টি পড়ে বাংলা টিলা সহ ঐ এলাকার শতাধিক টিলার উপর। বিশেষ করে প্রচীনতম সৌন্দর্যের লিলাভুমি প্রাকৃতি কন্যার আচলে ঢাকা বিশাল সু-উচ্চ বাংলা টিলা দানব নামের মানবের হাতে আজ ক্ষতবিক্ষত। এক সময় ত্রাণ ও পুর্ণবাসন অধিদপ্তর বিশাল এক জনগোষ্টিকে এ এলাকায় পুর্ণবাসন করেছিল। কিন্তু যে মা ও মাটি তাদের গ্রহন করেছিল। আজ তাদের দ¦ারা সে ধ্বংসের মুখে পতিত হচ্ছে। বাংলা টিলায় বসবাসরত অর্ধশতাধিক পরিবারের মধ্যে জকিগঞ্জের ঘর জামাই নজমুল ইসলাম,ইসলাম উদ্দিন, নাজিম উদ্দিন, সুলাতান আহমদ, কামাল উদ্দিন, হেলাল আহমদ, কালা মিয়া, কুটিলাই, হুসন আহমদ, আবুল হোসেন, আমির আলী সহ প্রতিটি পরিবার প্রাচীন এ টিলার বুকের উপর পুকুরের মত শত শত গর্ত করে হাজার হাজার ফুট পাথর উত্তোলন করে টিলাকে ধ্বংসের মুখে ঢেলে দিচ্ছে। এ টিলাকে রক্ষা করতে স্থানীয় প্রশাসন একাধিকবার বাধা প্রদান করলেও তারা চুপি চুপি প্রতিদিন লাল পাথর উত্তোলন করছে।

এ ছাড়াও বন বিভাগের কর্মকর্তা শহীদুল ইসলাম এ এলাকার বেশ কিছু চিহিৃত পাথর খেকোদের বিরুদ্ধে সাধারণ ডায়রী ও অভিযোগ দায়ের করায় অধিকাংশ গর্তে পাথর উত্তোলন বন্ধ রয়েছে। তবে চুপিচারে পাথর উত্তোলন বন্ধ হচ্ছে না। গত মঙ্গলবার প্রাকৃতির টানে কানাইঘাট থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ আব্দুল আহাদ ক্ষতবিক্ষত বাংলাটিলাটি পরিদর্শন করেন। এ সময় পাথর উত্তোলনের বড় বড় গর্ত গুলো দেখে তিনি আক্ষেপ প্রকাশ করেন। এবং টিলায় বসবাসরত লোকজনকে পাথর উত্তোলন না করতে নিষেধ প্রদান করেন। বাংলা টিলা রক্ষায় তিনি একাধিকবার সেখানে গিয়ে বসবাসরত মানুষকে বুঝাতে চেয়েছেন কিছুতেই টিলা কেটে পাথর উত্তোলন করা যাবে না, এটি বিধাতার সৃষ্টি প্রাকৃতিক সম্পদ। এটি রক্ষা করা সকলের কর্তব্য।

তবে স্থানীয় একাধিক সূত্রে জানা গেছে এ পাহাড় কাটার মুল হোতা যুবনেতা আশরাফুল আম্বিয়া গংরা। এই পাড়ারের নিচেই তার বাসস্থান। স্থানীয় সচেতন মহল জানিয়েছেন প্রসাশন শুধু বাঁধা দিয়ে চলে গেলে চলবে না। ঘন ঘন টহল না দিলে বাংলা টিলা রক্ষা করা সম্ভব নয়।

এ বিভাগের অন্যান্য খবর

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭, ০১৭১৭ ৬৮ ১২ ১৪ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: