সর্বশেষ আপডেট : ৩৩ মিনিট ৪৮ সেকেন্ড আগে
বুধবার, ২৫ এপ্রিল, ২০১৮, খ্রীষ্টাব্দ | ১২ বৈশাখ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

বড়লেখায় চা বাগানের বিরুদ্ধে খাসিয়াদের ৭ শতাধিক লেবু ও পান গাছ কাটার অভিযোগ

বড়লেখা প্রতিনিধি:: মৌলভীবাজারের বড়লেখায় কুমারশাইল খাসিয়া পুঞ্জির বাসিন্দা সন্তুস প্রতামের ৭ শতাধিক লেবুগাছ ও পান গাছ কাটার অভিযোগ উঠেছে কুমারশাইল চা বাগানের বিরুদ্ধে। এতে সন্তুস প্রতামের প্রায় ১০ লাখ টাকার ক্ষতি হয়েছে। খাসিয়াপুঞ্জির বাসিন্দাদের অভিযোগ তাদের ভূমি থেকে উচ্ছেদের জন্য চা বাগান কর্তৃপক্ষ তাদের বিভিন্ন মামলা দিয়ে হয়রানি করছে। তবে বাগান কর্তৃপক্ষ লেবুগাছ কাটাসহ খাসিয়াদের এসব অভিযোগ অস্বীকার করেছে। গত বুধ ও বৃহস্পতিবার রাতে পানগাছ লেবু গাছ কাটার এ ঘটনা ঘটে।

খাসিয়াদের অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, উত্তর শাহবাজপুর ইউনিয়নের কুমারশাইল মৌজার জে.এল নং-৫৫/১৫৪ এর ৩২১ নং দাগের ২২১.৫০ একর ধানী রকম ভূমিতে স্থানীয় আদিবাসি খাসিয়ারা দীর্ঘদিন থেকে বিভিন্ন ধরনের ফসল চাষাবাদ করে জীবিকা নির্বাহ করছে। কিন্তু খাসিয়াদের এ ভূমি দখলের জন্য চা বাগানের লোকজন বিভিন্ন সময় খাসিয়াদের লাগানো ফসল চুরি করা ছাড়াও কেটে নিয়ে যায়। এছাড়া মামলা মোকদ্দমা দিয়েও হয়রানি করা হচ্ছে বলে অভিযোগ খাসিয়াদের। গত বুধবার (০৪ অক্টোবর) দিবাগতরাতে চা বাগানের লোকজন দলবল নিয়ে সন্তুস প্রতামের বাগানের লেবুগাছ কাটতে থাকে। এসময় পাশের ছড়ায় মাছ শিকার করতে থাকা খাসিয়া পুঞ্জির দুইজন বাসিন্দা পুঞ্জিতে পৌঁছে বিষয়টি জানান। খবর পেয়ে পুঞ্জির লোকজন রাতের বেলায় বাগানে ঢুকলে চা বাগানের লোকজন পালিয়ে যায়। পরদিন সকালে সন্তুস লেবু বাগানে গিয়ে দেখেন তার প্রায় পাঁচশতাধিক লেবু গাছ কাটার ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনার পর বৃহস্পতিবার রাত থেকে শুক্রবার ভোররাতের যে কোন সময় আবারও খাসিয়াদের একটি পান জুমের ২’শতাধিক পানের গাছ কাটার ঘটনা ঘটেছে।

কুমারশাইল পান পুঞ্জির বাসিন্দা জেনি রাম্বাই ও লেবু বাগানের মালিক সন্তুস প্রতাম জানান, ‘জীবিকার একমাত্র উৎস লেবুগাছ কেটে ফেলায় তারা অসহায় হয়ে পড়েছেন। আমরা আদিবাসি ক্ষুদ্র-নৃ গোষ্ঠির লোকজন। আমাদের পিতৃপুরুষের এই ভূমিতে দীর্ঘদিন থেকে চাষাবাদ করে জীবিকা নির্বাহ করে আসছি। কিন্তু বাগান কর্তৃপক্ষ আমাদের ভূমি থেকে উচ্ছেদের পায়তারা করছে। তাদের টাকা পয়সার জোরে তারা সব ম্যানেজ করে নেয়। সব জায়গায় তাদের ক্ষমতার জোর। তাদের কাছে আমরা চরম অসহায়।’

কুমারশাইল চা বাগানের ম্যানেজার মুন্সি মারুফুর রহমান লেবু ও পানগাছ কাটার অভিযোগ অস্বীকার করে জানান, টি বোর্ডের নির্দেশনা অনুযায়ী লিজকৃত ভুমিতে চা চাষ সম্প্রসারণের কাজ করছেন। খাসিয়ারা এতে বাধা দিলে গত সেপ্টেম্বর মাসে খাসিয়াদের বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ করি। এ অভিযোগ ধামাচাপা দিতে উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবে তারা বাগানের বিরুদ্ধে মিথ্যা অভিযোগ দিচ্ছে।

এ বিভাগের অন্যান্য খবর

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭, ০১৭১৭ ৬৮ ১২ ১৪ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: