সর্বশেষ আপডেট : ১২ মিনিট ৩৩ সেকেন্ড আগে
শুক্রবার, ১৯ জানুয়ারী, ২০১৮, খ্রীষ্টাব্দ | ৬ মাঘ ১৪২৪ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

সৌরভের মহানুভবতাতেই ধোনি গ্রেট ক্রিকেটার!

স্পোর্টস ডেস্ক:: মহেন্দ্র সিংহ ধোনির নামের আগে কতো বিশেষণই তো জুড়ে দেওয়া হয়। যোগ্যও তিনি। ভারতের সর্বজয়ী এক অধিনায়ক। ‘ক্যাপ্টেন কুল’ উপাধি পেয়েছিলেন। এখন অবশ্য নেতৃত্বভার ছেড়ে দিয়েছেন সব ফরম্যাটেই। টেস্ট থেকে অবসর নিয়েছেন আগেই। পরে ওয়ানডে ও টি-টুয়েন্টিতে নেতৃত্ব দিয়ে গেলেও বেশ কিছুদিন আগেই তা কোহলির কাঁধে সপে দিয়েছেন। ধোনির নেতৃত্বে টি-টুয়েন্টি বিশ্বকাপে শিরোপা জিতেছে ভারত। হয়েছে আইসিসি চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি ও ওয়ানডে বিশ্বকাপের চ্যাম্পিয়ন। টেস্টে নাম্বার ওয়ানের মুকুটও পেয়েছি ধোনির ভারত। সেই ধোনি এখন এক কথায় ভারতের গ্রেট ক্রিকেটার। কিন্তু ধোনির এই গ্রেট ক্রিকেটার হওয়ার ক্ষেত্রে সবচেয়ে বড় অবদান নাকি সৌরভ গাঙ্গুলীর। দাদার মহানুভবতার। কথাটা এলেবেলে কারো নয়, ধোনিরই সাবেক টিমমেট বিরেন্দর শেবাগের।

সৌরভ ভারতকে দেখিয়েছেন আত্মবিশ্বাসী-আগ্রাসী-ভয়হীন ক্রিকেটের পথ। নিজের সময়ে ভারতে ইতিহাসের সফল অধিনায়কও ছিলেন। ট্রফি জয়ের ক্ষেত্রে অবশ্য ধোনির চেয়ে পিছিয়ে। কিন্তু কলকাতার মহারাজের হাত ধরেই গড়ে ওঠে ‘টিম ইন্ডিয়া’। ব্যাটসম্যান হিসেবে যেমন, তেমনি নেতৃত্বেও। নতুনদের সুযোগ দেওয়াটা ছিল যার অধিনায়কত্বের দর্শন। আর সে কারণেই ভারত পয়েছে শেবাগ, মহেন্দ্র সিং ধোনি, যুবরাজ সিং, হরভজন সিং, ইরফান পাঠানের মতো খেলোয়াড়। শনিবার ধোনিকে নিয়ে কথা বলতে গিয়ে ইন্ডিয়া টিভিকে সেই কথাটা আরেকবার জানালেন শেবাগ।
এক সময় ওপেনিংয়ে নিজের জায়গাটা শেবাগের জন্য ছেড়ে দেন সৌরভ। পরে তিন নম্বর জায়গাটা ছেড়েছিলেন ধোনির জন্য, ‘গাঙ্গুলী একটা সময় সিদ্ধান্ত নিলেন তিন নম্বর পজিশনে তিন-চারটি ম্যাচে ধোনিকে সুযোগ দেবেন। খুব কম অধিনায়কই আছেন যিনি প্রথমে বিরেন্দর শেবাগের জন্য নিজের ব্যাটিং পজিশন ছেড়ে দিয়েছেন। পরে ধোনির জন্য নিজের তিন নম্বর পজিশনটাও ছেড়ে দিয়েছেন। যদি দাদা (গাঙ্গুলী) এমন না করতেন তবে ধোনি গ্রেট খেলোয়াড় হতে পারতো না। গাঙ্গুলী সব সময় বিশ্বাস করতেন নতুনদের সুযোগ দিতে হবে।’
২০০৫ সালে সৌরভ ভারতের অধিনায়কত্ব ছাড়ার পর রাহুল দ্রাবিড় নেতৃত্ব পান। শেবাগ বলতে ভোলেন নি দ্রাবিড়ের অবদানের কথাও। দ্য ওয়ালের অধিনায়কত্বের সময় ধোনি কমপ্লিট ক্রিকেটারে পরিণত হয়েছেন এবং পারফেক্ট একজন ফিনিশারে পরিণত হয়েছেন। শেবাগ সেটি জানিয়েই বলছেন, ‘রাহুল দ্রাবিড়ের অধিনায়কত্বের সময় ধোনি ফিনিশারের ভূমিকা পেয়েছিল। অনেকবারই সে খারাপ শট খেলে আউট হয়েছে। যে জন্য দ্রাবিড়কেও সমালোচিত হতে হয়েছে। কিন্তু সেই পরিস্থিতিতে সে (ধোনি) তার অ্যাপ্রোচ বদলে ফেলে এবং ভালো ফিনিশারে পরিণত হয়।’
২০০৪ সালে সৌরভের নেতৃত্বে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অভিষেক হয় ধোনির। এক বছরের মধ্যেই ওয়ানডেতে পাকিস্তানের বিপক্ষে ১৪৮ ও শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ১৮৩ রানের ইনিংস খেলে নিজেকে প্রমাণ করেন ধোনি। ভারতের হয়ে ৯০টি টেস্ট, ৩০৬টি ওয়ানডে ও ৭৯টি টি-টুয়েন্টি খেলেছেন ধোনি। ৩৬ বছর বয়সেও ২০১৯ বিশ্বকাপ খেলার স্বপ্ন চোখে ওয়ানডে ও টি-টুয়েন্টি খেলে চলেছেন তিনি।

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭, ০১৭১৭ ৬৮ ১২ ১৪ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: