সর্বশেষ আপডেট : ৪ মিনিট ৫২ সেকেন্ড আগে
বুধবার, ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৭, খ্রীষ্টাব্দ | ২৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৪ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

বড়লেখায় স্বঘোষিত মসজিদ কমিটির কাণ্ড : দেড়বছর ধরে ১২ পরিবারকে একঘরে, সামাজিক কর্মকান্ডে বাধা

আবদুর রব, বড়লেখা থেকে :

বড়লেখা উপজেলার সদর ইউনিয়নের কুতুবনগর গ্রামের স্ব-ঘোষিত মসজিদ কমিটি গত দেড় বছর ধরে গ্রামের ১২ পরিবারকে একঘরে করে রেখেছে। গ্রামের প্রভাবশালী ৬ মাতব্বর ওই ১২ পরিবারের সাথে সামাজিক আচার-অনুষ্ঠানসহ সবধরণের সম্পর্ক না রাখতে গ্রামবাসী ও মসজিদের ইমামকে নির্দেশ দিয়েছে। এব্যাপারে ভুক্তভোগীরা বুধবার প্রভাবশালীদের বিরুদ্ধে থানায় মামলা করেন। পুলিশ ঘটনা তদন্ত করতে গেলে বিবাদিরা বাদিপক্ষের বাড়ি-ঘরে হামলা চালায় বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

থানার ওসি (তদন্ত) দেবদুলাল ধর জানান, প্রচলিত আইন অনুযায়ী গ্রাম পঞ্চায়েত কোন ব্যক্তি বা পরিবারকে একঘরে করে রাখতে পারে না। এটা শাস্তিযোগ্য অপরাধ। তদন্ত সাপেক্ষে পুলিশ এব্যাপারে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেবে।

কুতুবনগর গ্রামের মুরব্বি আকমল আলীর থানায় দায়েরকৃত লিখিত অভিযোগ সুত্রে জানা গেছে, তিনিসহ ১০ মুরব্বি মসজিদ ও গ্রাম পঞ্চায়েত পরিচালনা করতেন। প্রায় দেড়বছর পূর্বে হঠাৎ গ্রামের প্রভাবশালী মস্তকিম আলী, সুনাম উদ্দিন, ছালেহ আহমদ, মাহমদ আলী, নছিব আলী, আব্দুল হান্নান বলাই, ছত্তর আলী গ্রামবাসীর মতামত না নিয়ে কমিটি চলমান থাকা অবস্থায় আরেকটি মসজিদ কমিটি ঘোষণা করেন। তাদের স্ব-ঘোষিত কমিটিকে যারা মানবে না তাদেরকে তারা একঘরে করার ঘোষণা দেয়। তারা আগের কমিটির মুরব্বি আকমল আলী, রিয়াজ উদ্দিন, আজিজুল ইসলাম, দুদু মিয়া, কলিম উদ্দিন, জামাল উদ্দিনসহ ১২ পরিবারকে একঘরে করে রাখে। গ্রামের বিয়ে-শাদিসহ বিভিন্ন আচার-অনুষ্ঠানে যাতায়াতে তাদেরকে বাধা প্রদান করে।

সম্প্রতি আব্দুস শুক্কুর নামে গ্রামের এক যুবকের বিয়ের বরযাত্রী হিসেবে গাড়ি উঠলে স্ব-ঘোষিত কমিটির সদস্যরা প্রকাশ্যে আমাদেরকে গাড়ি থেকে নামিয়ে দেয়। মসজিদে যাতায়াতে বাধা দিচ্ছে। চলাচলের রাস্তা-ঘাট বন্ধ করার হুমকি দিচ্ছে। গত শবে-বরাতের রাতে দোয়া-মিলাদ অনুষ্ঠানে গ্রামের ইমামকে এ ১২ পরিবারের কারো বাড়িতে যেতে নিষেধ করেছে।

এসব ব্যাপারে জানতে অভিযুক্ত আব্দুল হান্নান বলাই, ছত্তর আলী গংদের মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করলে রিং বাজলেও ফোন রিসিভ না করায় তাদের কোন মন্তব্য পাওয়া যায়নি।

মসজিদের ইমাম মাওলানা রিয়াজ উদ্দিন ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে জানান, নতুন কমিটির নিষেধের কারণে একঘরে করা ১২ পরিবারের কারো বাড়িতে দাওয়াত দিলেও তিনি যান না।

স্ব-ঘোষিত মসজিদ কমিটি কর্তৃক একঘরে হওয়ার শিকার রিয়াজ উদ্দিন, আজিজুল ইসলাম প্রমুখ অভিযোগ করেন থানায় অভিযোগ দেয়ায় পুলিশ তদন্তে আসলে সুনাম, ছালেহ আহমদ গংরা পুলিশের সামনে তাদের ওপর ও বাড়িঘরে হামলা-ভাংচুর চালায়।

তদন্ত কর্মকর্তা এসআই জাহাঙ্গির আলম জানান, অভিযোগ পেয়ে বুধবার বিকেলে তিনি ঘটনা তদন্তে যান। তার সামনেই অভিযুক্তরা বাদিপক্ষের ওপর হামলার চেষ্টা চালায়। পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করেছে।

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭, ০১৭১৭ ৬৮ ১২ ১৪ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: