সর্বশেষ আপডেট : ২৭ মিনিট ১০ সেকেন্ড আগে
সোমবার, ২৩ অক্টোবর, ২০১৭, খ্রীষ্টাব্দ | ৮ কার্তিক ১৪২৪ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

পর্যটনে হোলি আর্টিজানের ধাক্কা

নিউজ ডেস্ক:: বিশ্বের দীর্ঘতম সমুদ্রসৈকতে অস্তগামী সূর্য। প্রকৃতির এই সৌন্দর্য উপেক্ষা করা কঠিন। প্রতিবছর লাখো পর্যটকের ভিড় জমে পর্যটন শহর কক্সবাজারে।
২০১৫ সালের ২৭ অক্টোবর ২০১৬ সালকে পর্যটন বর্ষ হিসেবে ঘোষণা করা হয়। পর্যটনশিল্পকে এগিয়ে নিতে সরকার ২০১৬ থেকে ২০১৮ সাল পর্যন্ত (তিন বছর) দেশ-বিদেশে ব্যাপক প্রচারণার ঘোষণা দেয়। তিন বছরের প্রায় দুই বছর শেষ হতে চললেও এখন পর্যন্ত প্রচারণায় দৃশ্যমান কোনো কার্যক্রম নেই। কর্মকর্তারা এখনো বলছেন কার্যক্রম ‘শুরু হবে’। যদিও এই সময়ে দেশের বিভিন্ন স্থানে দেশীয় পর্যটকদের ভ্রমণ আগের তুলনায় বেড়েছে।
এ ছাড়া এই তিন বছরে ১০ লাখ পর্যটক আনার একটি লক্ষ্যমাত্রাও ঘোষিত হয়। ভিজিট বাংলাদেশ নামের একটি ক্যাম্পেইনও শুরু হয়। কিন্তু গত বছরের জুলাইয়ে গুলশানের হোলি আর্টিজান বেকারিতে জঙ্গি হামলায় পর্যটন খাত ধাক্কা খায়।
দ্য বেঙ্গল ট্যুরস লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো. রফিকুল ইসলাম বলেন, গত এক বছরে তাঁদের মাধ্যমে ৪০০-৪৫০ বিদেশি পর্যটক এসেছে। যেখানে অন্যান্য বছর সংখ্যাটা হয় প্রায় ৪ হাজার।
ঘোষিত পর্যটন বর্ষে কতজন পর্যটক এসেছে, তারও কোনো হিসাব নেই বাংলাদেশ পর্যটন করপোরেশন ও ট্যুরিজম বোর্ডের কাছে। তাদের সর্বশেষ হিসাব রয়েছে ২০১৫ সালের। এ বছরের ১৯ জুন বেসরকারি বিমান পরিবহন ও পর্যটনমন্ত্রী রাশেদ খান মেনন সংসদে জানান, ২০১৫ সালে ৬ লাখ ৪৩ হাজার ৯৪ জন বিদেশি পর্যটক এসেছিল।

প্রচারণা
পর্যটন বর্ষের পরিকল্পনায় ছিল দেশ-বিদেশে বিলবোর্ড স্থাপন। বিদেশে তো দূরে থাক, দেশেই তা হয়নি। দেশে ও বিদেশে বিজ্ঞাপন প্রচারের কথাও বলা হয়। সেটাও হয়নি। ট্যুরিজম বোর্ডের ইউটিউবে সর্বশেষ ভিডিও ২০১৬ সালের জানুয়ারি মাসে, যা তৈরি হয় আরও আগে। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমেও কোনো প্রচারণা নেই।
এ ব্যাপারে বাংলাদেশ ট্যুরিজম বোর্ডের (বিটিবি) পরিচালক নিখিল রঞ্জন রায় বলেন, ‘আইটি সাপোর্ট ও প্রচারণার জন্য যে লোকবল দরকার, তা আমাদের অর্গানোগ্রামেই নেই। একজন ডিজাইনার নেই। এত দিন এজেন্ট দিয়ে চালিয়েছিলাম। এখন তারা নেই। আমরা চেষ্টা করছি এসব কাজের জন্য নিজেরাই লোকবল নিয়োগ দেব।’
বিটিবির উপব্যবস্থাপক আকতার আহমেদ বলেন, প্রচার কার্যক্রম তাঁরা শুরু করবেন। দেশে বাস, ট্রেন, লঞ্চ ও বিমানে ব্র্যান্ডিং করা হবে। একই সঙ্গে বিদেশেও তা করবেন। তিনি আরও বলেন, লন্ডনসহ বিভিন্ন দেশে বাংলাদেশ ব্র্যান্ডিং, বাংলাদেশ শো ও ফুড ফেস্টিভ্যালসহ বিভিন্ন কার্যক্রমের চিন্তাভাবনা করা হচ্ছে। ঘোষণার দুই বছর পেরিয়ে গেলেও এখনো কার্যক্রম ‘শুরু হবে’ পর্যন্তই। এ নিয়ে তিনি বলেন, ‘হ্যাঁ, দৃশ্যমান কিছু হয়নি। তবে কাজ করছি।’

বাজেট
পর্যটন বর্ষ উদ্যাপনের কার্যক্রম পরিচালনার দায়িত্ব বিটিবির ওপর। তবে বিটিবি বলছে, ব্যাপক আকারে প্রচারণার জন্য যে পরিমাণ বাজেট প্রয়োজন, তা বিটিবির নেই। বিটিবির পরিচালক বলেন, ‘ভিজিট বাংলাদেশ ক্যাম্পেইনের সময় অর্থমন্ত্রী ২০০ কোটি টাকা দেবেন বলেছিলেন। কিন্তু সে টাকার মাত্র ৫০ কোটি টাকা এসেছে। যার মধ্যে ৪০ কোটি টাকা পর্যটন করপোরেশনের, বাকি ১০ কোটি বিটিবির। এ ছাড়া এ অর্থবছরে পেয়েছি ৩৪ কোটি টাকা। আলাদা করে বাইরের ব্র্যান্ডিংয়ের জন্য বরাদ্দ পাই না। এর মধ্য থেকেই আমরা আড়াই কোটি টাকা বরাদ্দ করেছি বিদেশে প্রচারণার জন্য।’ তিনি আরও বলেন, পুরো পর্যটনশিল্পকে গতিশীল করতে একটি মাস্টারপ্ল্যানের পরিকল্পনা চলছে, তবে সেটা এখনো অনুমোদিত হয়নি। ২০১৬ সালের কার্যক্রম নিয়ে বলেন, হোলি আর্টিজানের ধাক্কা কাটিয়ে এখন পর্যটক আসা শুরু হয়েছে।
বাংলাদেশ পর্যটন করপোরেশনের জনসংযোগ বিভাগের প্রধান জিয়াউল হক হাওলাদার প্রথম আলোকে বলেন, বিদেশি পর্যটক কমলেও দেশীয় পর্যটক বেড়েছে। গত বছর এর পরিমাণ ছিল প্রায় ৯৩ লাখ। সবচেয়ে বেশি ভ্রমণ হয় সিলেট ও চট্টগ্রামে। দেশীয় পর্যটনে তরুণদের ভূমিকা অনেক। তবে পর্যটনে বাজেট ও পরিবহন সমস্যার কথা তিনিও উল্লেখ করেন।

সূত্র:: প্রথম আলো

এ বিভাগের অন্যান্য খবর

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭, ০১৭১৭ ৬৮ ১২ ১৪ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: