সর্বশেষ আপডেট : ১ ঘন্টা আগে
শনিবার, ২১ অক্টোবর, ২০১৭, খ্রীষ্টাব্দ | ৬ কার্তিক ১৪২৪ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

মাকে জিম্মি করে প্রতিবন্ধী কিশোরীকে পালাক্রমে গণধর্ষণ

ডেইলি সিলেট ডেস্ক ::
পাবনার চাটমোহর উপজেলার ফৈলজানায় গরীব অসহায় পরিবারের এক প্রতিবন্ধী কিশোরী (১৪) গণধর্ষণের শিকার হয়েছে। আর এ বিষয়টি ধামাচাপা দিতে এলাকার প্রধানগণ শালিস বৈঠকের নামে চিহ্নিত ধর্ষকদের দোষী সাব্যস্থ করে এক লক্ষ টাকা জরিমানা আদায় করেছে বলেও জানা গেছে।

শালিসে জরিমানার এক লক্ষ টাকা প্রধানবর্গ ভাগ বাটোয়ারা করে ধর্ষিত মেয়েটির পরিবারকে ভয় ভীতি দেখিয়ে বাড়ি ছাড়া করে রেখেছে বলেও একাধিক সূত্রে জানা গেছে।
এলাকাবাসীর তথ্যে জানা গেছে, উপজেলার ফৈলজানা ইউনিয়নের দিঘুলিয়া গ্রামে পিতৃহীন পরিবারে মাকে নিয়ে বসবাস করেতা ঐ কিশোরী। গত ১০/১২ দিন আগে পার্শ্ববর্তী আটঘরিয়া উপজেলার সুজাপুর এলাকা থেকে ৮/১০ জন যুবক রাতের আধারে এসে অস্ত্রের মুখে কিশোরীর মাকে জিম্মি করে কিশোরীকে পাশের একটি নির্জন স্থানে নিয়ে গিয়ে পালাক্রমে ধর্ষণ করে। এসময় মেয়েটি লম্পটদের পাশবিক নির্যাতনে জ্ঞান হারিয়ে ফেললে তাকে সেখানেই ফেলে রেখে চলে যায় তারা। পরে তার মায়ের আহাজারিতে এলাকাবাসীর সহায়তায় মেয়েটিকে উদ্ধার করে চিকিৎসার ব্যবস্থা করে প্রতিবেশীরা।

ঘটনার পরের দিন কিশোরীর মা যখন আইনের আশ্রয় নিতে চাটমোহর থানার উদ্দেশ্যে আসতেছিল তখন এলাকার চিহ্নিত সন্ত্রাসী, হত্যা মামলার আসামী ও চরমপন্থীদলের সক্রীয় নেতা রেজাউল করিম তাকে সঠিক বিচার করে দেয়ার আশ্বাস প্রদান করে। এর কয়েকদিন অতিবাহিত হয়ে গেলে কিশোরীর মা এলাকার প্রধানদের কাছে বিচারের আশায় ঘুরতে থাকে। অবশেষে গত রবিবার রেজাউলের মধ্যস্থতায় এলাকার কয়েকজন প্রধানবর্গের উপস্থিতিতে শালিস বৈঠকে ধর্ষকদের এক লক্ষ টাকা জরিমানা আদায় করা হয়। যা বর্তমানে ধর্ষিত পরিবারটিকে না দিয়ে ভাগ বাটোয়ারা করার খবর মিলেছে।

বিষয়টি নিয়ে স্থানীয় ইউপি সদস্য মাসুদ হোসেন জানান, আমার ওয়ার্ডের শেষ অংশে ঘটনাটি ঘটার খবর আমি পেয়েছি। তবে এ বিষয়ে কেউ আমার কাছে আসেনি। তবে আমি লোক পাঠিয়েছিলাম ঐ মেয়ের বাড়িতে। সেই বাড়িতে কাউকে পাওয়া জায়নি।

ফৈলজানা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো. হানেফ উদ্দিন বলেন, আমি পরস্পরের মারফত জানতে পেরেছি সেখানে একটি প্রতিবন্ধী মেয়েকে কিছু বখাটেরা ধর্ষনের ঘটনা ঘটিয়েছে। তবে আমার কাছে কেউ এবিষয়ে কোন অভিযোগ নিয়ে আসেনি। এটাও শুনেছি সেখানে কিছু লোক এর একটা মিমাংশাও করে ফেলেছেন।

উক্ত শালিস বৈঠকের আয়োজক রেজাউল করিম ধর্ষনের ঘটনা ঘটেছে মর্মে স্বীকার করলেও তিনি কোন শালিস বৈঠক করেন নি বলে জানান।

এ বিষয়ে চাটমোহর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (তদন্ত) শরিফুল ইসলাম বলেন, এমন ঘটনায় কেউ থানায় কোন অভিযোগ দেয়নি। অভিযোগ পেলে অবশ্যই দোষীদের আইনের আওতায় আনা হবে।

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭, ০১৭১৭ ৬৮ ১২ ১৪ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: