সর্বশেষ আপডেট : ৩ মিনিট ৫৬ সেকেন্ড আগে
মঙ্গলবার, ১৭ অক্টোবর, ২০১৭, খ্রীষ্টাব্দ | ২ কার্তিক ১৪২৪ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

বড়লেখায় নাগেশ্বরের নিচে নিসর্গসখা দ্বিজেন শর্মার অন্তিম শয্যা

আব্দুর রব,বড়লেখা:: খ্যাতিমান বিজ্ঞানী নিসর্গবিদ দ্বিজেন শর্মার শেষ ইচ্ছা অনুযায়ী মৌলভীবাজারের বড়লেখা উপজেলার দক্ষিণভাগ উত্তর (কাঁঠালতলী) ইউনিয়নের শিমুলিয়া গ্রামের বাড়িতে নাগেশ্বরী গাছের তলায় দুপুর আড়াইটায় তাঁর চিতাভস্ম সমাহিত করা হয়েছে। এরপর সেখানে ফুল দিয়ে তাঁর স্মৃতির প্রতি শ্রদ্ধা জানান নিকটজন। রবিবার (২৪ সেপ্টেম্বর) ছিল দ্বিজেন শর্মার শ্রাদ্ধানুষ্ঠান।

দুপুর সোয়া বারোটায় বড়লেখা উপজেলার কাঁঠালতলী বাজার থেকে রিকশাযোগে রওনা হলাম শিমুলিয়া গ্রামের দিকে। গন্তব্য নিসর্গবিদ দ্বিজেন শর্মার বাড়ি। যদিও এলাকার লোকজন এই বাড়িটিকে ‘কবিরাজ বাড়ি’ নামেই চেনেন। দ্বিজেন শর্মার বাবা চন্দ্রকান্ত শর্মাকে এলাকার লোকজন কবিরাজ নামেই চিনতেন। চন্দ্রকান্ত শর্মার তিন ছেলে ও তিন মেয়ে। ভাইদের মধ্যে দ্বিজেন শর্মা সবার ছোট।

আনুমানিক দশ মিনিট পর পৌঁছে যাই দ্বিজেন শর্মার বাড়ির সামনের রাস্তায়। দু’তিন মিনিট পায়ে হেঁটে দ্বিজেন শর্মার বাড়িতে ঢুকতেই গেটে চোখে পড়ল লেখা রয়েছে ‘নিসর্গ’। বাড়ির এ নামকরণটি দ্বিজেন শর্মাই করেছেন। বাড়ির ভেতরে বাঁদিকে কয়েকজন লোককে দেখা গেল অতিথিদের জন্য রান্নার কাজ করছেন। অতিথিদের বসার কক্ষে দ্বিজেন শর্মার স্মৃতিচারণমূলক ভিডিও চিত্র প্রদর্শনী চলছে। বাড়ির উঠানে চলছে শ্রাদ্ধ অনুষ্ঠানের কার্যক্রম। একপাশে বসে আছেন দ্বিজেন শর্মার ছেলে সৌমিত্র শর্মা। তিনি শাস্ত্রীয় নিয়ম অনুসারে শ্রাদ্ধ অনুষ্ঠানের কাজ সম্পন্ন করছিলেন। এসময় দ্বিজেন শর্মার স্ত্রী দেবী শর্মা, মেয়ে শ্রেয়সী শর্মাসহ আত্মীয় স্বজনরা উপস্থিত ছিলেন।

দ্বিজেন শর্মার বাড়িটি যেন একটি উদ্যান। বাড়ির চারপাশ ঘুরতেই চোখে পড়ল, কৃষ্ণচুড়া, আমলকি, জামরুল, টগর, গোলাপ, নীলকণ্ঠ, খেজুর, অর্জুনসহ নাম জানা-অজানা বিভিন্ন প্রজাতির গাছ। ভাতিজা সমর অর্জুন বললেন, এ গাছগুলো সব কাকার (দ্বিজেন শর্মার) লাগানো। সমর অর্জুন জানান, দ্বিজেন শর্মা বাড়ি এলেই তাকে সঙ্গে নিয়ে গাছগুলো ঘুরে দেখতেন। ব্যস্ত থাকতেন গাছের পরিচর্যা নিয়ে। কাউকে গাছ কাটতে দিতেন না। সবাইকে গাছ পরিচর্যার জন্য বলতেন। সর্বশেষ প্রায় আড়াই বছর আগে বাড়ি এসেছিলেন। সেবার প্রচন্ড ঝড়বৃষ্টি হয়েছিল। অনেক গাছগাছালি ঝড়ে উপড়ে পড়েছিল। সড়কের পাশে ঝড়ে উপড়ে পড়া একটি গাছের সাথে লতার মতো ফুলের গাছ দেখে তিনি আক্ষেপ করছিলেন। ফুলের গাছটি তিনি নিতে চেয়েছিলেন।

দ্বিজেন শর্মা আর কখনো তাঁর প্রিয় বাড়িটিতে পা রাখবেন না। তবু তাঁর অস্তিত্ব এই বাড়ি থেকে মুছে ফেলা যাবে না। সবুজ হয়ে বেড়ে ওঠা গাছগুলো বারবার তাঁর উপস্থিতি ঘোষণা করবে। ফিরতে ফিরতে এমনটাই মনে হয়েছে।

শ্রাদ্ধানুষ্ঠানে উপজেলার বিভিন্ন রাজনৈতিক নেতা, জনপ্রতিনিধি, সাংবাদিক, শুভাকাক্সক্ষীসহ বিভিন্ন শ্রেণিপেশার লোকজন উপস্থিত হন। প্রসঙ্গত, প্রকৃতিবিদ ও বিজ্ঞান লেখক অধ্যাপক দ্বিজেন শর্মা গত ১৫ সেপ্টেম্বর ভোরে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। তিনি ১৯২৯ সালের ২৯ মে মৌলভীবাজারের বড়লেখা উপজেলার দক্ষিণভাগ উত্তর ইউনিয়নের (কাঁঠালতলী) শিমুলিয়া গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন।

 

 

এ বিভাগের অন্যান্য খবর

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭, ০১৭১৭ ৬৮ ১২ ১৪ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: