সর্বশেষ আপডেট : ১৩ মিনিট ৩৯ সেকেন্ড আগে
শুক্রবার, ১৫ ডিসেম্বর, ২০১৭, খ্রীষ্টাব্দ | ১ পৌষ ১৪২৪ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

হকার আর ময়লার দখলে ফুটপাত,হাটতে হচ্ছে মূল সড়কে

জীবন পাল:: জল্লারপার থেকে মির্জাজাঙ্গাল হয়ে লামাবাজার সড়ক। সিলেট নগরীর অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ও ব্যস্ত এই সড়কের ফুটপাত দখল হয়ে আছে হকার আর ময়লায়। প্রয়োজনীয় ডাস্টবিন না থাকা ও থাকলেও স্থানীয়দের অসচেতনায় ফুটপাতের ওপরই নোংরা আবর্জনা ফেলে স্তুপ করে রাখা হচ্ছে। বিশেষ করে জল্লারপার থেকে মীর্জাজাঙ্গাল অংশে অন্তত চারটি জায়গায় দো যাবে এমন দৃশ্য। এছাড়া ফুটপাতের স্লাব স্থানে স্থানে ভেঙ্গে পড়ার কারণে বাকি অংশেই হাটার জো নেই। বাধ্য হয়ে পথচারীদের হাঁটতে হয় মূল সড়ক ধরে। সড়কে লেগে থাকে যানজট।

ময়লা আর ভাঙ্গা ফুটপাত দিয়ে চলাচলে বিপাকে পড়তে হচ্ছে এই পথের পথচারীদের। একদিকের ফুটপাত ঝুড়ে দোকান,তার পাশেই ময়লার স্তুপ। আর অন্যপাশের ফুটপাত ভাঙ্গা।চলছে মেরামতের কাজ। পথচারীদের হাটার মত জায়গা বলতে এখন রাস্তা। বাধ্য হয়ে রাস্তা দিয়ে পথচারীরা চলাচল করলেও এই রাস্তায় যানজট লেগে গেলে মারাত্বক দুর্ভোগে পড়তে হচ্ছে পথচারীদের। আসন্ন দুর্গাপূজা উপলক্ষে এই সড়কে যেমন বেড়েছে মানুষের আনাগোনা ঠিক তেমনি বেড়েছে যানজটের ভোগান্তিও। পুজোর সময় এই ভোগান্তি আরো চরম আকার ধারন করবে বলে মনে করছেন সাধারন মানুষসহ আশেপাশের বাসিন্দারা।

জল্লারপার এলাকার বাসিন্দা লোকমান হোসেন নকিব জানান, এখানে কোন দিনও কোন ডাস্টবিন ছিলনা। আশেপাশের বাসিন্দা,দোকানীরা ময়লা-আবর্জনা ফেলতে ফেলতে নিজেরায় এই জায়গাকে ডাস্টবিনে রুপান্তরীত করে ফেলেছে।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে ফুটপাতের উপর ৬ মাস ধরে পান সুপারীর ব্যবসা চালিয়ে যাওয়া এক ব্যক্তি জানান, যে যার মত এখানে ময়লা-আবর্জনা ফেলছে। মানুষজন এর পাশ দিয়ে নাকে হাত দিয়ে হেটে যেতে যেতে অভ্যস্থ্য হয়ে গেছে। যখন যানজট লাগে তখন পথচারীদের এই ময়লা-আবর্জনা ডিঙ্গিয়ে চলাচল করতে মারাত্বক অসুবিধায় পড়তে দেখা যায়।

৩ বছর যাবত মানুষ চলাচলের জন্য তৈরিকৃত ফুটপাতের উপর চায়ের টং বসিয়ে চা বিক্রি কওে যাওয়া চা বিক্রেতা দুলাল সরকার জানান, পুজোর সময় সন্ধ্যা ৭টা থেকে রাত ১০টা পর্যন্ত থেমে থেমে এই রাস্তায় জ্যাম লেগে থাকে। রাস্তার বিপরীতে থাকা ফুটপাত ভেঙ্গে অচল অবস্থায় পড়ে থাকায় জ্যামের সময় পথ চলাচলে মারাত্বক দুর্ভোগে পড়তে হয় পথচারীদের।
পেটের দায়ে সংসার চালাতে নিজেও সাধারণ মানুষের চলাচলে সমস্যার সৃষ্টির কথা অকপটেই স্বীকার করেন তিনি।

তিনি বলেন, সিটিকর্পোরেশন রাস্তা বড় করছেন। ড্রেনগুলো ঠিক করছেন। কাজ চলছে। কাজ শেষ হলে হয়তো এই ভোগান্তে থেকে সবাই রেহায় পাবে।

সকাল ১০টা ও বিকেল ৩টায় এই রাস্তায় বেশি যানজট হয় বলে জানান সুনামগঞ্জের বাসিন্দা রিক্সা চালক শামসুল হক। শামসুল হক জানান, ২০০৮ সাল থেকে আমি সিলেটে রিক্সা চালিয়ে জীবিকা নির্বাহ করছি। লামাবাজার থেকে জিন্দাবাজার রাস্তার সম্মুখে যে ময়লা আবর্জনা ফেলা হচ্ছে সেই রাস্তা দিয়ে যাত্রী নিয়ে যাওয়া আসার সময় পথচারীদেও গালিগালাজ শুনতে হয় আমাদের। ময়লা আবর্জনা ফেলা ঐ জায়গার সামনে গেলেই পথচারীরা চলাচলের জন্য রিক্সাগুলোকে আস্তে যেতে বলে। কেননা, সেই জায়গায় একদিকে যেমন যানজট থাকে অন্যদিকে ময়লার দূর্গন্ধে রাস্তা দিয়ে চলাচলের পথচারীদেও পড়তে হচ্ছে বিপাকে।

ঊষা রানী দাশ নামে মির্জাজাঙ্গাল এলাকার এক মহিলা জানান, কয়েক বছর যাবত এই রাস্তায় যানজট আগের তুলনায় বেড়েছে। এর কারণ জিন্দাবাজার এলাকায় বেশ কয়েকটি উন্নতমানের রেষ্টুরেন্ট। ঐসব রেষ্টুরেন্টে আসা গাড়িগুলো ভেতরে ঢুকা ও বের হওয়ার সময় তীব্র যানজট লেগে যায়। তার মধ্যে রাস্তার ধারে এই ময়লা আবর্জনা। কয়েকদিন পরেই শারদীয় দুর্গাপূজা। পুজোর সময় এই রাস্তায় মানুষের চলাচল অনেক বেড়ে যায়। রাস্তার পাশের এইসব ময়লা-আবর্জনা,ভাঙ্গা ড্রেন,ফুটপাতের বেহাল অবস্থা তখন সাধারন মানুষের চলাচল বাধাসৃষ্টিসহ মারাত্বক দূর্ঘনায় ফেলতে পারে। সেই কথা বিবেচনা কওে কর্তৃপক্ষ যথাযথ ব্যবস্থা নিবেন বলে আমি আশাবাদি।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে সিলেট সিটি কর্পোরেশনের প্রধান নির্বাহী এনামুল হাবিব জানান, ঐ রাস্তার ড্রেনগুলোর কাজ চলছে। কাজ শেষ হয়ে গেলে এই ভোগান্তি থেকে সাধারন মানুষ রেহায় পাবে। আর রাস্তার পাশে যে ময়লা আবর্জনা সেটা পরিচ্ছন্নতা কর্মী দ্বারা পরিস্কার করানোর ব্যবস্থা করছি। আর দুর্গাপূজোর সময়ও যাতে ঐ রাস্তার ফুটপাত দিয়ে মানুষ স্বাভাবিকভাবে চলাচল করতে পারে সে ব্যবস্থা নিচ্ছি।

ছবি: দীপক বৈদ্য দিপু

 

 

এ বিভাগের অন্যান্য খবর

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭, ০১৭১৭ ৬৮ ১২ ১৪ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: