সর্বশেষ আপডেট : ১২ মিনিট ৩০ সেকেন্ড আগে
মঙ্গলবার, ২৪ অক্টোবর, ২০১৭, খ্রীষ্টাব্দ | ৯ কার্তিক ১৪২৪ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

রোহিঙ্গা এবং ঘুমিয়ে থাকা বিশ্ব বিবেক

চৌধুরী ভাস্কর হোম::

১৯৭১। আমি দেখিনি ! তবে খুব বেশি পুরনো সময় নয়। মাত্র ৪৬ বছর আগের কথা। সেই সময়ে মহান মুক্তিযুদ্ধে অংশগ্রহণকারী অনেকেই এখনও বেঁচে আছেন। তাঁরা কেউ না কেউ আপনার আমার পরিবারেরই সদস্য। ভারতে শরণার্থী হিসেবে যারা আশ্রয় নিয়েছিলেন, তাদেরও অনেকেই এখনও আছেন। দেশে অধিকাংশ আলোচনাতেই ঘুরে-ফিরে মুক্তিযুদ্ধের চেতনা নিয়ে কথা হয়। পক্ষ-বিপক্ষ নিয়ে বিভক্তি ঘটে।

একটু ভেবে দেখুন তো ? একাত্তরে নির্যাতিত জাতি হিসেবে আমাদেরকে ভারত যদি জায়গা না দিত! তাহলে আমাদের কি অবস্থা হতো? কিংবা শুধু মাত্র মাথা গোজার ঠাঁই আর একবেলা খাবার দিতো ! আর যদি আমাদের প্রশিক্ষণ ও প্রাসঙ্গিক সহায়তা বন্ধ থাকতো, তাহলে কি আজকের বাংলাদেশ আমরা পেতাম? স্বাধীন দেশের নাগরিক হিসেবে বিশ্বে মাথা উঁচু করে দাঁড়াতে পারতাম! আমার কাছে একাত্তরে আমাদের প্রেক্ষাপট আর আজ মায়ানমারে রোহিঙ্গাদের অবস্থা এক মনে হচ্ছে । আমাদের যেখানে অন্যের সহায়তা নেয়ার ইতিহাস রয়েছে, আমরা কেন একই ইতিহাসের পুনরাবৃত্তি ঘটিয়ে অসহায় মানুষগুলোর পাশে দাঁড়াতে পারছি না!

আমাদের দ্বিধা কোথায়? কেন বিশ্ববাসীর কাছে রোহিঙ্গাদের প্রকৃত অবস্থা তুলে ধরতে পারছি না? পৃথিবীর সর্বাপেক্ষা নিপীড়িত এবং বৃহত্তর স্টেটলেস এই জনগোষ্ঠীর একমাত্র পরিচয় হয়ে উঠেছে মুসলমান। এ কারণে একদিকে তারা বাংলাদেশ ও ভারতের বাঙালিদের কাছ থেকে জাতিগত ঐক্যের সহায়তা থেকে বঞ্চিত, অন্যদিকে সারা দুনিয়ার অমুসলিম জনগোষ্ঠীর কাছ থেকেও প্রাপ্য সমর্থন আদায় করতে পারছে না। তাহলে কি বিপন্ন হবে মানবতা? তাহলে কি এভাবেই বিশ্ব রাজনীতির কাছে পরে থাকতে হবে ? আমাদের কি কিছুই করার নেই!

রোহিঙ্গা নির্যাতনের ছবি হাজারো শব্দের চেয়ে বেশি কথা বলে। একটি ছবি হাজার লাইনের চেয়েও শক্তিশালী। ছবি যখন কথা বলে, বিবেক তখন নির্বাক। শব্দের চেয়ে ছবি বেশি কথা বললেও ঘুমিয়ে আছে বিশ্ব মানবতা। ধিক্কার বিশ্ব বিবেককে! এই কয়দিনে ৩ লাখেরও বেশি রোহিঙ্গা বাংলাদেশে আশ্রয় নিয়েছে। একাত্তরের দিনগুলো সাদাকালো ছিল, আর এখন রঙিন। এর বাইরে আমি অন্তত কোন পার্থক্য খুঁজে পাই না। ৪৬ বছর আগের নিজেকে ভাবুন, তারপর দ্রুত সিদ্ধান্ত নিন…। আরেকটা কথা, যে কোন অন্যায়কে ধর্মীয় আদলে না দেখে মানবিক বিবেচনায় নিলে অনেক বেশি হৃদয়¯পর্শী হয়। সিদ্ধান্ত নেয়াও সহজ হয়।

লেখক:- সাংবাদিক ও সাংস্কৃতিক কর্মী

 

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭, ০১৭১৭ ৬৮ ১২ ১৪ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: