সর্বশেষ আপডেট : ৩০ মিনিট ৩৬ সেকেন্ড আগে
সোমবার, ২৩ অক্টোবর, ২০১৭, খ্রীষ্টাব্দ | ৮ কার্তিক ১৪২৪ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

কোনো সন্ত্রাসীগোষ্ঠীর সঙ্গে সম্পর্ক নেই: রোহিঙ্গা স্যালভেশন আর্মি

arsa-20170914182420আন্তর্জাতিক ডেস্ক:: বিশ্বের কোনো সন্ত্রাসী গোষ্ঠীর সঙ্গেই কোনো ধরনের সম্পর্ক নেই বলে দাবি করেছে রাখাইনের স্বাধীনতাকামী রোহিঙ্গা মুসলিমদের সংগঠন আরাকান রোহিঙ্গা স্যালভেশন আর্মি (এআরএসএ)। রোহিঙ্গা নিপীড়নের জেরে মধ্যপ্রাচ্যভিত্তিক জঙ্গিগোষ্ঠী আল-কায়েদা মিয়ানমারকে কড়া জবাব দেয়ার হুমকির একদিন পর বৃহস্পতিবার এআরএসএ এই দাবি করেছে।

এআরএসএ বলছে, বৌদ্ধ সংখ্যাগরিষ্ঠ মিয়ানমারের দীর্ঘ নিপীড়ন থেকে তারা সংখ্যালঘু রোহিঙ্গাদের সুরক্ষার চেষ্টা করছেন; যেখানে রোহিঙ্গাদের নাগরিকত্ব অস্বীকার করা হয়েছে।

তবে এই গোষ্ঠীর কার্যকলাপে ধর্মীয় ও জাতিগত উত্তেজনায় রাখাইনে গভীর সঙ্কট তৈরি হয়েছে। জাতিসংঘের শিশুবিষয়ক সংস্থা ইউনিসেফ বৃহস্পতিবার বলছে, তিন সপ্তাহ অাগে রাখাইনের সহিংসতা ছড়িয়ে পড়ার পর থেকে এখন পর্যন্ত চার লাখেরও বেশি রোহিঙ্গা বাংলাদেশে প্রবেশ করেছে। বিশ্বের সর্ববৃহৎ শরণার্থী শিবিরগুলোর অন্যতম একটিতে পরিণত হয়েছে।

কক্সবাজারের এই শরণার্থী শিবিরে আশ্রয় নেয়া রোহিঙ্গারা রাখাইনে তাদের বাড়ি-ঘরে অগ্নিসংযোগ, সেনাবাহিনীর গণহত্যা ও ধর্ষণের অভিযোগ করছেন।

বার্তাসংস্থা রয়টার্স বলছে, রাখাইনের সহিংসতায় রোহিঙ্গাদের পাশাপাশি প্রায় ৩০ হাজার বৌদ্ধ ও হিন্দুও বাস্তুচ্যুত হয়েছেন। মানবাধিকার সংস্থাগুলো বলছে, রাখাইনের ১১ লাখ রোহিঙ্গা মুসলিমকে তাড়িয়ে দেয়ার চেষ্টায় এআরএসএ’র হামলাকে ঢাল হিসেবে ব্যবহার করে অভিযান চালাচ্ছে মিয়ানমার সেনাবাহিনী।

রোহিঙ্গাদের আনা এসব অভিযোগ অস্বীকার করেছে দেশটির গণতন্ত্রপন্থী নেত্রী অং সান সু চি নেতৃত্বাধীন সরকার। গত বছরের অক্টোবরে এবং গত আগস্টে পুলিশের পোস্টে আরাকান রোহিঙ্গা স্যালভেশন আর্মির (এআরএসএ) বিদ্রোহীদের হামলার পর সহিংসতা ব্যাপকভাবে বৃদ্ধি পেয়েছে।

কয়েক দশক ধরে রোহিঙ্গাদের সঙ্গে বৌদ্ধদের সংঘাত চলে আসছে। রোহিঙ্গাদেরকে বাঙালি হিসেবে দাবি করে বৌদ্ধরা। রাখাইনের অনেক বৌদ্ধর বিশ্বাস, তারা শেষ পর্যন্ত সংখ্যালঘু হয়ে পড়বেন। এমনকি তাদের পরিচয় বিলুপ্ত হয়ে যেতে পারে বলেও শঙ্কা রয়েছে তাদের। রাখাইন জাতীয়তাবাদী পার্টি এএনপি স্থানীয় বিধানসভায় সংখ্যাগরিষ্ঠ।

বৌদ্ধদের জন্য পুলিশেরও শক্তিশালী সহানুভূতি রয়েছে। পুলিশের প্রায় অর্ধৈক কর্মকর্তাই রাখাইনের বৌদ্ধ। তবে বাংলাদেশ সীমান্তের সঙ্গে উত্তরাঞ্চলের রাখাইন রাজ্যের আসল ক্ষমতায় সেনাবাহিনী। দেশটির শক্তিশালী সেনাবাহিনীর প্রধান জেনারেল মিন অং হ্লেইং বিবিসিকে বলেছেন, রোহিঙ্গাদের জন্য তার সহানুভূতি নেই।

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭, ০১৭১৭ ৬৮ ১২ ১৪ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: