সর্বশেষ আপডেট : ৩ মিনিট ৫৫ সেকেন্ড আগে
সোমবার, ১১ ডিসেম্বর, ২০১৭, খ্রীষ্টাব্দ | ২৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৪ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

বালাগঞ্জে ২৮টি মন্ডপে পুজার প্রস্তুতি, দির্ঘস্থায়ী বন্যার প্রভাবে দুর্গোৎসব আমেজে ভাটা

400px-BalaganjUpazilaশামীম আহমদ, বালাগঞ্জ:: বালাগঞ্জে সনাতন ধর্মাবলম্বীদের প্রধান ধর্মীয় উৎসব শারদীয় দুর্গাপূজার ব্যস্থতা চলছে। উপজেলায় প্রতিমা তৈরি ও সাজসজ্জায় ব্যস্থ সময় পার করছেন আয়োজক ও কারিগররা। তবে দির্ঘ স্থায়ী বন্যা থাকায় এবার বালাগঞ্জে সনাতন ধর্মাবলম্বীদের সর্ববৃহৎ ধর্মীয় উৎসবের বাড়তি আমেজে অনেকটাই ভাটা পড়েছে। ২৬ সেপ্টেম্বর থেকে ৫ দিনব্যাপী শারদীয় দুর্গোৎসব অনুষ্ঠিত হবে। উপজেলায় দীর্ঘস্থায়ী বন্যার কারণে অনেক স্থানেই পূজা বন্ধ হয়ে গেছে। আবার পূজার স্থানে পানি থাকায় অন্যত্র পূজা মন্ডপে পুজা অনুষ্টিত হচ্ছে বলে জানা গেছে। এরপরও সব মিলিয়ে পূজার প্রস্তুতিতে থেমে নেই সনাতন ধর্মালম্বীরা। শারদীয় দুর্গোৎসব উপলে সরকারি অনুদান বৃদ্ধি ও সরকারি ছুটি ৫ দিন করার দাবি জানানো হয়। বালাগঞ্জ উপজেলায় সার্বজনীন ও ব্যক্তিগত সব মিলিয়ে এ বছর ২৮টি পূজা মন্ডপে দূর্গা পূজা অনুষ্ঠিত হবে পূজা কমিটি সূত্রে জানা গেছে।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, পূর্বে জমিদার, মহাজন তথা বিত্তবানরা আত্মীয়-স্বজন সমন্বয়ে প্রচুর অর্থ ব্যয় করে ধুমধাম করে প্রতিযোগিতার মনোভাব নিয়ে দুর্গাপূজা করতেন। সাধারণ মানুষকে তাদের প্রতিযোগিতা দেখেই সন্তুষ্ট থাকতে হতো। কিন্তু কালের বিবর্তনে রাজা নেই, জমিদার ও নেই। কিন্তু দেবী দূর্গার পূজা প্রতি বৎসরই হয়। এখন ধনী-গরিব-গোত্র-বর্ণ সবাই একসাথে প্রার্থনা করে মায়ের চরণে। অন্যদিকে এবার দীর্ঘস্থায়ী বন্যা ও প্রতিমা তৈরীতে খরচ বাড়ায় পূজার ব্যয় নিয়ে আয়োজকদের হিমশিম খেতে হচ্ছে। অন্যান্য বছরের তুলনায় এবার এটেল মাটি, বাঁশ, সুঁতলীর দামও বাজারে অনেকটা চড়া। ফলে প্রতিমা তৈরিতে প্রয়োজনীয় সামগ্রীসহ প্রতিমা ভাস্কররাও তাদের মজুরি বাড়িয়ে দিয়েছেন। তারপরও থেমে নেই হিন্দু সমপ্রদায়ের এ সর্ববৃহৎ উৎসব আয়োজন। বালাগঞ্জ উপজেলার কেন্দ্রীয় পূজা মন্ডপ সদর ইউনিয়নের মদন-মোহন আশ্রম মন্ডপে প্রতিমা তৈরীর কারিগর বিমল পাল ও শম্বু বৈদ্য বলেন, আমরা ৭ টি মুর্তির কাজ করেছি, এটা হলো তাদের শেষ মুর্তি। আরেক মৃৎ শিল্পী বিকাশ পাল বলেন, গত বছরের তুলনায় এবছর মূর্তী তৈরীর কাজ একটু বেশি থাকলেও বন্যার পানি দর্ঘিস্থায়ী হওয়ায় অনেক স্থানে পূজা বন্ধ হয়ে গেছে। আবার অনেক স্থানের মুর্তি তৈরী করা যাচ্ছেনা পানির কারনে। দুই সপ্তাহর বেশি সময় ধরে এ মন্ডপগুলোতে প্রতিমা তৈরীর কাজ করছি। প্রতিমা যাতে দৃষ্টিনন্দন হয় সেই ল্েয আমারা চেষ্ঠ চালিয়ে যাচ্ছি।

এ বিভাগের অন্যান্য খবর

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭, ০১৭১৭ ৬৮ ১২ ১৪ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: