সর্বশেষ আপডেট : ১ মিনিট ১৩ সেকেন্ড আগে
মঙ্গলবার, ২৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৭, খ্রীষ্টাব্দ | ১১ আশ্বিন ১৪২৪ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

ছাতকে বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটি নিয়ে উত্তেজনা, ইউএনও বরাবরে অভিযোগ

01.-daily-sylhet-Chhatak-news2ছাতক প্রতিনিধি:: ছাতকের কুমনা সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটি গঠনে বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের ব্যাপক অনিয়ম ও স্বেচ্ছাচারিতার অভিযোগ পাওয়া গেছে। নির্বাচিত অভিভাবক সদস্য, জনপ্রতিনিধি ও এলাকার গন্যমান্যদের বিবেচনায় না এনে প্রধান শিক্ষক গোপনীয়তা অবলম্বন করে তার মনগড়া একটি কমিটি গঠন করা হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। এ নিয়ে এলাকায় টানা-টান উত্তেজনা বিরাজ করছে। সাংঘর্ষিক পরিস্থিতির আশংকাও করছেন স্থানীয়রা। পরিস্থিতি ক্রমেই উত্তপ্ত হওয়ায় রোববার সকালে থানা পুলিশের নির্দেশে পরিচালনা কমিটির একটি সভা বাতিল করা হয়েছে বলে জানা গেছে। গতকাল সোমবার সকালে কুমনা সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটি গঠনে অনিয়মের অভিযোগ এনে একটি লিখিত আবেদন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বরাবরে দিয়েছেন এলাকাবাসী। অভিযোগ থেকে জানা যায়, শহরের কুমনা সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আশিকুর রহমান এসএম সি গঠনে নিয়ম-নীতি উপেক্ষা করে নিজ ক্ষমতায় তার নিজস্ব মানুষ দিয়ে একটি মনগড়া পকেট কমিটি গঠন করে উপজেলা শিক্ষা কমিটি বরাবরে প্রেরন করেছেন। এলাকার কয়েক শ অভিভাবক, জনপ্রতিনিধি ও এলাকার গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গকে অজ্ঞাত রেখে অবৈধ পন্থায় বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটি গঠনের চেষ্টা করে যাচ্ছেন। ২০১৬ সালে ৫ জুন বিদ্যালয়ে রানিং কমিটির সহ-সভাপতি নেছার আহমদের সভাপতিত্বে কয়েক শ’ অভিবাবকের উপস্থিতিতে কণ্ঠভোটে ৪ জন অভিভাবক সদস্য নির্বাচিত করা হয় এবং ভুমিদাতা আব্দুল মতলিবের নাম দাতা সদস্যের তালিকায় অন্তর্ভুক্ত করার জন্য সুপারিশ করা হয়। যা বিদ্যালয়ের রেজুলেশন খাতায় লিপিবদ্ধ আছে। পুরুষ ও মহিলা বিদ্যুৎসাহী দু’ জন সদস্য এমপি কর্তৃক মনোনীত না হওয়ার কারনে দীর্ঘ এক বছর পূর্নাঙ্গ কমিটি গঠন করা সম্ভব হয়নি। এ সুযোগে প্রধান শিক্ষক গত রমজানে বিদ্যালয় বন্ধ থাকার সুবাদে ৩ জুন বিদ্যালয়ে একটি সভা দেখিয়ে একটি মনগড়া কমিটি সৃজন করে শিক্ষা কমিটি বরাবরে প্রেরন করেছেন প্রধান শিক্ষক। পাশাপাশি বিদ্যালয়ের রেজুলেশন খাতাসহ এসএমসির যাবতীয় কাগজ পত্র নিজ বাসায় নিয়ে যাওয়ারও অভিযোগ উঠেছে প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে। নির্বাচিত অভিভাবক সদস্য ও দাতা সদস্যদের অজ্ঞাত রেখে গঠিত কমিটি অবৈধ ও অগনতান্ত্রিক বলে অভিযোগে উলে¬খ করা হয়েছে। প্রধান শিক্ষক আশিকুর রহমান রেজুলেশন খাতা নিজ বাসায় রাখার কথা স্বীকার করে জানান, নিয়ম-নীতি মেনেই এসএমসি গঠন করা হয়েছে। স্থানীয় ওয়ার্ড কাউন্সিলর ধন মিয়া জানান, এসএমসি গঠনের বিষয়ে তাকে জানানো হয়নি। প্রধান শিক্ষকের গঠিত কমিটি সঠিক পন্থায় হয়নি। অবৈধ কমিটি বাতিল করে সকলের সমন্বয়ে গ্রহনযোগ্য কমিটি গঠনের পরামর্শ দেন তিনি। সাবেক কমিটির সহ-সভাপতি নেছার আহমদ অভিযোগ করে জানান, দুর্নীতগ্রস্থ প্রধান শিক্ষক তার সকল দুর্নীতি আড়াল করতেই এ অবৈধ কমিটি গঠন করেছেন। রমজান মাসে বিদ্যালয়ে কোন সভা বা পরিচালনা কমিটি গঠন করা হয়নি। যা বিদ্যালয়ের শিক্ষকবৃন্দও অবগত নন। গঠিত কমিটির সভাপতি আশরাফ উদ্দিন জানান, এলাকার লোকজন ও অভিভাবকদের উপস্থিতিতে এসএমসি গঠিত হয়েছে। ইতিমধ্যে তার সভাপতিত্বে কমিটির ৩টি সভার হয়েছে। শিক্ষা কর্মকর্তার নির্দেশে বিদ্যালয়ের ব্যাংক একাউন্টও পরিবর্তন করে নুতন কমিটির নামে করা হয়েছে। উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মানিক চন্দ্র দাস জানান, কমিটি গঠনে অনিয়মের বিষয়ে লিখিত অভিযোগ পাওয়া গেছে, তদন্তপূর্বক আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে।

এ বিভাগের অন্যান্য খবর

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭, ০১৭১৭ ৬৮ ১২ ১৪ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: