সর্বশেষ আপডেট : ২ মিনিট ৫১ সেকেন্ড আগে
রবিবার, ২৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৭, খ্রীষ্টাব্দ | ৯ আশ্বিন ১৪২৪ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

সুনামগঞ্জে গ্রামীন অবকাঠামো উন্নয়নের তালিকা জনসম্মুখে প্রকাশিত না হওয়ায় হচ্ছে পুকুর চুরি

2.-daily-sylhet-666-2তাহিরপুর সংবাদদাতা:: সুনামগঞ্জের হাওর বেষ্টিত ১১টি উপজেলায় গ্রামীন অবকাঠামো উন্নয়নের নামে হচ্ছে পুকুর চুরি। সরকার কাবিখা,কাবিটা,টিআর,কর্মসৃজন প্রকল্পের মাধ্যমে বরাদ্ধ দেওয়া লাখ লাখ টাকা নাম মাত্র খরচ করে সংশ্লিষ্ঠ কতৃপক্ষের সাথে আতাত করে সমুদয় টাকা তুলে নিচ্ছে প্রকল্প কর্মকর্তারা। ফলে কাজের কাজ কিছুই হয় না। প্রকল্পের তালিকা ওয়েব সাইটে থাকলেও সর্ব সাধারনের জন্য এই ওয়েব সাইট সহজ মাধ্যম নয়। জনসম্মুক্ষে তালিকা প্রকাশিত না হওয়ায় উন্নয়ন কর্মকান্ড সম্পর্কে অবহিত হতে পারছে না উপকার ভোগীরা। জেলা প্রশাসকের ওয়েব সাইটে প্রকল্পের তালিকা থাকলেও জেলার সকল উপজেলা ও ইউনিয়ন অফিসেও টানানোর নিয়ম থাকলেও তা কেউ মানছে না। পুকুর চুরির জন্যই এই সব প্রকল্পের তালিকা জনসম্মুখে প্রকাশ করা হয় নি আজও অভিযোগ সচেতন মহলের। জনসম্মুখে ঐসব প্রকল্পের তালিকা প্রকাশ করার দাবী উঠেছে সর্ব সাধারনের মাঝে।
জানাযায়,জেলার ১১টি উপজেলার মধ্যে দক্ষিন সুনামগঞ্জ উপজেলায় অর্থ প্রতিমন্ত্রী এমএ মান্নান দক্ষিন সুনামগঞ্জে প্রকল্পের তালিকা টানানোর নির্দেশ দিলে গ্রামীন উন্নয়ন অবকাঠামো প্রকল্প (কাবিটা,কাবিখা,টিআর,কর্মসৃজন) এর তালিকা দেওয়ালে টাঙ্গিয়ে জনসম্মুখে প্রকাশ করা হয়েছে। প্রতিদিন লোকজন নিজ নিজ এলাকার কাজের খবর নিতে প্রকল্প অফিসের সামনে ভীড় করছেন। ভাল মন্দ বলতে ও কাজ সা হওয়ার বিষয়েও বলতে পারছেন। কিন্তু জেলার তাহিরপুর,জামালগঞ্জ,ধর্মপাশা,বিশ্বম্ভরপুর সহ ১০টি উপজেলায় সংশ্লিষ্ট কার্য্যালয়ে টানানো নেই প্রকল্পের নামের তালিকা। ফলে নিজ নিজ এলাকার কাজ আছে কি না খবর জানতেও পারছেন না স্থানীয় সাধারন। প্রকল্পের নাম ও বরাদ্ধের পরিমান না জানার কারনে কেউ সঠিক ভাবে অভিযোগ করতে পারছে না। অনেক প্রকল্পের কাজ না করেই সমুদয় টাকা তুলে নিয়ে গেছেন প্রকল্পের চেয়ারম্যানগন। এমনও প্রকল্প আছে পাকা রাস্তার মাটি ভড়াট করে নাম দিয়ে প্রকল্প করা হয়েছে। অকাল বন্যায় জেলার সকল প্রকল্পের কাজ পানির নিচে অথছ কাজ চলমান দেখিয়ে টাকা তুলার পায়তারা করছে। এখন ত যারা প্রকল্প কাজের দায়িত্ব আছে তারাই ত সব লুটেপুটে নিচ্ছে সুযোগ বুজে।

তাহিরপুর উপজেলার সাদেক আলী সহ জেলার বিভিন্ন প্রকল্প এলাকার লোকজন জানান,সরকারী সকল কাজের ভাল মন্দ জানার অধিকার জনগনের আছে। আমাদের এলাকায় কাজ হচ্ছে আমাদের স্বার্থেই তাই সঠিক ভাবে কাজ হচ্ছে কি না তা আমরা বলতেও পারি না ঐসব প্রকল্পের বিষয়ে না জানার কারনে। জনসম্মুখে প্রকাশ করা হলে কোন কাজে কত টাকা সহ সব বিষয়ে সবাই জানতে পারতাম এবং ভাল মন্দ বলতে পারতাম। পরিবেশ ও হাওর উন্নয়ন সংস্থার সাধারণ সম্পাদক পিযুস পুরকাস্থ টিটু সহ সচেতন মহলের দাবী,প্রকল্পের নাম,কোন প্রকল্পের কি কাজ,কত টাকা বরাদ্ধ উল্লেখ্য করে অফিস ভবনের সামনে টানানো হউক। যারা কাজ করে নি তাদের বিল বন্ধ করা প্রয়োজন না হলে দূর্নীতি বাড়বে। তাহিরপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সাইফুল ইসলাম জানান,গ্রামীন উন্নয়ন অবকাঠামো প্রকল্প (কাবিখা,টিআর,কর্মসৃজন) এর তালিকা দেওয়ালে টাঙ্গিয়ে জনসম্মুখে প্রকাশ করার জন্য আমি নির্দেশ দিয়েছি।

তাহিরপুর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান কামরুজ্জামান কামরুল জানান,আমার উপজেলায় কোন দূর্নীতি ছাড় পাবে না। গ্রামীন উন্নয়ন অবকাঠামো প্রকল্পের কাজ না করে যে বিল উঠাবে আর তার সাথে যারা জরিত থাকবে তাদের কেও ছাড় দেওয়া হবে না। সুনামগঞ্জ জেলা ত্রান ও পূর্নবাসন কর্মকর্তা মাহবুবুর রহমান জানান,জেলা প্রশাসকের ওয়েব সাইর্ডে সব উপজেলার প্রকল্পের তালিকা দেওয়া আছে।

এ বিভাগের অন্যান্য খবর

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭, ০১৭১৭ ৬৮ ১২ ১৪ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: