সর্বশেষ আপডেট : ৪ মিনিট ২২ সেকেন্ড আগে
রবিবার, ২০ মে, ২০১৮, খ্রীষ্টাব্দ | ৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

কুলাউড়ায় রেহানা হত্যাকান্ড: পিতাই হত্যা করলো মেয়েকে

unnamed (13)মৌলভীবাজার জেলা প্রতিনিধি:: মৌলভীবাজারের কুলাউড়া উপজেলার টিলাগাঁও ইউনিয়নের বাগৃহাল গ্রামের আছকর আলীর মেয়ে রেহানা বেগম (১৭) হত্যাকান্ডের রহস্য উন্মোচন করেছে থানা পুলিশ। মেয়ের প্রেমিকের সাথে বিয়ে না দিতে এবং নিজের কিছু প্রতিপক্ষকে ঘায়েল করতেই পরিকল্পিতভাবে মেয়েকে হত্যা করেন নিজ পিতা। শেষ পর্যন্ত মেয়েকে হত্যার কথা পুলিশসহ জনপ্রতিনিধিদের কাছে স্বীকার করেন পিতা আছকর আলী।

টিলাগাঁও ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল মালিক ও মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই কানাই লাল চক্রবর্ত্তী জানান, রেহানা বেগমের সাথে একই ইউনিয়নের আশ্রয় গ্রামের লাল মিয়ার প্রেমের সম্পর্ক চলছিলো। এরই সুবাদে লাল মিয়া বিয়ের প্রস্তাব পাঠায় রেহানার বাড়িতে। কিন্তু বিষয়টি মেনে নেননি রেহানার পিতা আছকর আলী। উল্টো মেয়েকে হত্যা করে দায় চাপানোর চেষ্টা চালান লাল মিয়া ও তার সহযোগিদের ওপর। কিন্তু বিষয়টি পুলিশের কাছে সন্দেহ হলে আছকর আলীকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করে থানায় নিয়ে যায়। গত ০৯ জুলাই দিনভর জিজ্ঞাসাবাদ ও আছকর আলীকে নিয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে একাধিকবার তদন্ত করে। শেষ পর্যন্ত রাতে পুলিশের কাছে হত্যার ব্যাপারে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেন আছকর আলী। এরপর আবারও ঘাতককে নিয়ে অভিযানে নামে পুলিশ। অভিযানে হত্যাকান্ডে ব্যবহৃত ছুরি ও রক্তমাখা জামা উদ্ধার করা হয়।

আছকির আলী স্থানীয় জনপ্রতিনিধি ও পুলিশের কাছে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দিতে বলেন, মেয়ের প্রেমিকসহ কয়েক প্রতিপক্ষকে ফাঁসাতেই হত্যার পরিকল্পনা করেন তিনি। পরিকল্পনা অনুযায়ী আছকর আলী তার স্ত্রী, ১ ছেলে ও ১ মেয়েকে শ^শুরবাড়ি পাঠিয়ে দেন। ঘটনার দিন রাত আনুমানিক ৩টায় পূর্ব পরিকল্পনা অনুযায়ী মেয়ে রেহানা বেগমকে ছুরি দিয়ে উপর্যুপরি কুপিয়ে হত্যা করে। রেহানার মৃত্যু নিশ্চিত হলে রক্তমাখা জামা ছুরি লুকিয়ে ব্লেড দিয়ে নিজের মাথায় ও বাম পিঠে কেটে ফেলেন। এরপর আমারে মারি লাইলারে-বলে চিৎকার শুরু করে। তার চিৎকারে আশপাশের লোকজন এগিয়ে আসলে নাটক সাজায় আছকর আলী। টিলাগাঁও ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল মালিক, স্থানীয় ৩জন ইউপি সদস্য, নয়াবাজার কমিটির ব্যবসায়ী সমিতির সেক্রেটারীসহ এলাকার শত লোকের সামনে পুরো ঘটনার স্বীকারোক্তি প্রদান করেন। এমনকি লুকিয়ে রাখা হত্যার কাজে ব্যবহৃত ছুরি ও ব্লেড বের করে দেন।

এ বিষয়ে কুলাউড়া থানা পুলিশের পরিদর্শক (তদন্ত) বিনয় ভূষণ রায় জানান, নিহত রেহানার মা শাহানা বেগম বাদী হয়ে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। ঘাতক পিতাকে ১০ জুলাই আদালতে সোপর্দ করা হয়।




এ বিভাগের অন্যান্য খবর

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭, ০১৭১৭ ৬৮ ১২ ১৪ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: