সর্বশেষ আপডেট : ১ মিনিট ৭ সেকেন্ড আগে
রবিবার, ২৭ মে, ২০১৮, খ্রীষ্টাব্দ | ১৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

‘সবে এক ডেগো রান্দি খাই’

unnamed (10)মৌলভীবাজার জেলা প্রতিনিধি:: বাড়িঘরে পানি ওঠায় প্রায় এক সপ্তাহ ধরে তারা আশ্রয় কেন্দ্রে অবস্থান করছেন। কয়েকটি পরিবারে ভাগ হয়ে এক ডেকচিতে রান্না করে খাচ্ছেন। মৌলভীবাজারের জুড়ী উপজেলার জায়ফরনগর উচ্চ বিদ্যালয় আশ্রয় কেন্দ্রে আশপাশের বিভিন্ন এলাকার ৫৪টি বন্যাদুর্গত পরিবার আশ্রয় নিয়েছে। ওই বিদ্যালয়ে গিয়ে দেখা যায়, চারটি শ্রেণীকক্ষে দুর্গত পরিবারগুলো থাকে। রাতে শোয়ার জন্য ডেস্ক-বেঞ্চ জোড়া লাগিয়ে খাটের ব্যবস্থা করা হয়েছে। একটি শ্রেণীকক্ষের সামনের বারান্দায় টিনের চুলায় খিচুড়ি রান্না করছিলেন পশ্চিম জায়ফরনগর গ্রামের সায়রা খাতুন (৩৫)। তিনি জানালেন, ইনো (এখানে) হিন্দু-মুসলিম সব আছইন। ধর্মের কোনো বিচার নাই। রিলিফ আইলে সবে (সবাই) এক ডেগো (ডেকচি) রান্দি খাই। এ সময় পাশে দাঁড়ানো পশ্চিম গোবিন্দপুর গ্রামের মঙ্গলা বিশ্বাস (২৫) মাথা নেড়ে সায় দেন। তবে আশ্রয় কেন্দ্রে সরকারি ত্রাণ জুটছে খুবই কম। দুর্গতরা জানান, এক সপ্তাহে প্রত্যেক পরিবার ১০ কেজি করে চাল ও ১০ কেজি করে আটা পেয়েছে। এর বাইরে আর কিছু পাননি। এছাড়া ব্যক্তি উদ্যোগে অনেকে চাল, চিড়া, গুড় ও খিচুড়ি দিয়েছেন। এসব দিয়েই কোনোমতে চলছে।

এ বিষয়ে ভারপ্রাপ্ত উপজেলা নির্বাহী অফিসার সহকারী কমিশনার (ভূমি) বর্ণালী পাল জানান, জেলা প্রশাসন থেকে বন্যার্তদের জন্য আরও ৩৫ মেট্রিক টন চাল ও ১ লাখ ৪০ হাজার টাকা পাওয়া গেছে। ইতোমধ্যেই তা ক্ষতিগ্রস্ত ইউনিয়নগুলোতে বিতরণ করে দেওয়া হয়েছে। এ ক্ষেত্রে জায়ফরনগরকে বেশি গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে। বন্যার পানি কমতে শুরু করেছে। তাতে মানুষের দুর্ভোগ আরও কমে আসবে।




এ বিভাগের অন্যান্য খবর

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭, ০১৭১৭ ৬৮ ১২ ১৪ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: