সর্বশেষ আপডেট : ১ মিনিট ৪০ সেকেন্ড আগে
মঙ্গলবার, ২৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৭, খ্রীষ্টাব্দ | ১১ আশ্বিন ১৪২৪ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

বিমানের বিজনেস ক্লাসে চড়ে চীনা দেবতারা গেল মালয়েশিয়ায়

1499406588আন্তর্জাতিক ডেস্ক:: দেবী মাজু, দেবতা কিয়ানলিয়ান ও দেবতা শান ফেং- এরা হচ্ছেন খুবই শক্তিশালী চীনা সমুদ্র অবতার। সম্প্রতি চীনের সংবাদমাধ্যমগুলো জানিয়েছে, চীন-মালয়েশিয়া সংস্কৃতি বিনিময় কর্মসূচির আওতায় চীনের থিয়ান হৌ মন্দির থেকে মালয়েশিয়ায় তিনটি দেবমূর্তি আনা হয়।
চীনের বন্দরনগরী শিয়ামেন থেকে বিমানের প্রথম শ্রেণীতে অর্থাৎ বিজনেস ক্লাসের আসনে চড়ে মালয়েশিয়ার রাজধানী কুয়ালালামপুর পৌঁছে এই তিনটি চীনা দেবমূর্তি। বিমানের বিজনেস ক্লাসে চীনা এই দেবতাদের ছবি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ইতোমধ্যে ভাইরাল হয়ে গেছে।
জানা গেছে, বিমানে চড়া দেবমূর্তিগুলোর মধ্যে প্রথমটি হচ্ছে চীনের সমুদ্রের দেবী মাজু (মাতসু নামেও পরিচিত এই দেবী)। দক্ষিণ চীনে এবং মালয়েশিয়া, ভিয়েতনাম ও তাইওয়ানের বৌদ্ধ ও তাও ধর্মাবলম্বীরা এগুলোর পূজা করে থাকে। মনে করা হয় দেবী মাজু সমুদ্রের জেলে ও নাবিকদের রক্ষা করে।
দ্বিতীয় মূর্তিটি হচ্ছে দেবতা কিয়ানলিয়ানের। তাকে হাজার বছর দূরের বস্তু দেখতে সক্ষম দেবতা বলা হয়। আর তৃতীয়টির নাম হচ্ছে শান ফেং। তাকে বলা হয় হাজার মাইল দূরের জিনিস শুনতে সক্ষম দেবতা। চীনাদের ভাষায় তারা উভয়েই স্বর্গে দেবতাদের রক্ষক।
সমুদ্রের এই দেবতাদের প্রতি শ্রদ্ধা ও সম্মান দেখাতে তাদেরকে বিমানের বিজনেস ক্লাসের তিনটি টিকিট কাটা হয়। প্রতিটি টিকিটের দাম ছিল প্রায় ২ হাজার ৯১ ইয়ান (২৩৭ পাউন্ড)। মূর্তিগুলো সোমবার মেলাকা নিয়ে যাওয়ার আগে কুয়ালালামপুরে একটি শোভাযাত্রা হয়েছে। মেলাকায় এগুলো নিয়ে শোভাযাত্রা শেষে সিঙ্গাপুর ও পরে চীনে ফিরিয়ে নিয়ে যাওয়া হবে বলে জানানো হয়েছে। বিবিসি।
নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭, ০১৭১৭ ৬৮ ১২ ১৪ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: