সর্বশেষ আপডেট : ২ মিনিট ৩৩ সেকেন্ড আগে
মঙ্গলবার, ২৫ জুলাই, ২০১৭, খ্রীষ্টাব্দ | ১০ শ্রাবণ ১৪২৪ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

আইন না মেনে সবক্ষেত্রে এনআইডি বাধ্যতামূলক

1498707707নিউজ ডেস্ক:: আইনে না থাকলেও জাতীয় পরিচয়পত্রের ব্যবহার এক প্রকার বাধ্যতামূলক করা হয়েছে। ইতোমধ্যে বিভিন্ন সেবামূলক প্রতিষ্ঠান লিখিতভাবে জাতীয় পরিচয়পত্র প্রদর্শন বাধ্য করেছে। ফলে যাদের জাতীয় পরিচয়পত্র নেই তারা পড়ছেন বিপাকে। ভুক্তভোগীরা এ বিষয়ে নির্বাচন কমিশনে লিখিত আবেদনও করেছেন। কমিশনও পরিপত্র জারি করে এনআইডি বাধ্যতামূলক না করার নির্দেশনা দিয়েছে। কিন্তু কোনো সেবা প্রতিষ্ঠান মানছে না কমিশনের নির্দেশনাও। নির্বাচন কমিশন (ইসি) সংশ্লিষ্টরা বলছে, জাতীয় পরিচয়পত্রের ব্যবহার বাধ্যতামূলক আইনসম্মত নয়।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে নির্বাচন কমিশনার ব্রিগেডিয়ার জেনারেল (অব.) শাহাদাত হোসেন চৌধুরী ইত্তেফাককে বলেন, আইনগতভাবে এনআইডি বাধ্যতামূলক না থাকলেও অনেক প্রতিষ্ঠান তা বাধ্যতামূলক করেছে। এখন রাষ্ট্রের বেশিরভাগ কাজকর্মে এনআইডি লাগে। কিন্তু রাষ্ট্রের সব নাগরিকের জন্য এনআইডি বাধ্যতামূলক করা সমীচীন নয়।

চলতি বছরের জানুয়ারি পর্যন্ত পরিসংখ্যান ব্যুরোর সর্বশেষ হিসাব অনুযায়ী দেশের জনসংখ্যা ১৬ কোটি ১৭ লাখ ৫০ হাজার। এর মধ্যে ভোটার ১০ কোটি ১৮ লাখ। যারা ভোটার তারাই কেবল পান জাতীয় পরিচয়পত্র (এনআইডি)। অথচ ৫ কোটি নাগরিক এখনো এনআইডি বঞ্চিত। যদিও এই ৫ কোটির অধিকাংশ অপ্রাপ্তবয়স্ক নাগরিক। কিন্তু সেবামূলক প্রতিষ্ঠানগুলো সেবা পেতে সব নাগরিকের জন্য এনআইডি বাধ্যতামূলক করেছে। ব্যাংকে হিসাব খোলা বা পরিচালনা করা বা ঋণ গ্রহণ অথবা বিভিন্ন সংস্থা/দপ্তর সেবা প্রদান সংক্রান্ত যে কোনো কাজে জাতীয় পরিচয়পত্র প্রদর্শন বা এর অনুলিপি দাখিল বাধ্যতামূলক করা হয়েছে। জাতীয় পরিচয়পত্র না থাকায় প্রায়শই বিপাকে পড়ছে মানুষ। ইতোমধ্যে বিসিএস পরীক্ষার আবেদন, যে কোনো সরকারি-বেসরকারি চাকরিতে আবেদন, পাসপোর্ট তৈরি, মোবাইলের সিম ক্রয়, শেয়ার বাজারের বিও একাউন্ট খোলা, বীমা প্রতিষ্ঠানে পলিসি খোলা, ড্রাইভিং লাইসেন্স, জমি-ক্রয়-বিক্রয়, মোবাইল ব্যাংকিংয়ে লেনদেন সম্পন্ন, ভিসার আবেদনের ক্ষেত্রে জাতীয় পরিচয়পত্র বাধ্যতামূলক করা হয়েছে। এছাড়াও অন্যান্য নিত্যনৈমিত্তিক কাজে লাগছে জাতীয় পরিচয়পত্র। কোথায়, কোন ক্ষেত্রে এই পরিচয়পত্র ব্যবহার করা হবে তার সুনির্দিষ্ট কোনো নীতিমালা করেনি নির্বাচন কমিশন (ইসি)। যার জন্য ভোগান্তিতে পড়তে হচ্ছে পরিচয়পত্র নেই এমন লোকেদের।

এনআইডি ব্যবহার বাধ্যতামূলক করার ক্ষেত্রে রাষ্ট্র বা সরকারি প্রতিষ্ঠান এগিয়ে রয়েছে। সাংবিধানিক প্রতিষ্ঠান হিসেবে সরকারি কর্মকমিশন (পিএসসি), পাসপোর্ট অধিদপ্তর, রাজধানী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ, স্থানীয় সরকারের বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান, সাব-রেজিস্ট্রি অফিস, বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান-মন্ত্রণালয় এবং সরকারি ব্যাংকও রয়েছে। সরকারের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে বিভিন্ন মোবাইল কোম্পানি, বেসরকারি ব্যাংক, শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ভর্তির ক্ষেত্রে জাতীয় পরিচয়পত্র ব্যবহারের শর্ত জুড়ে দেয়া হয়েছে।

স্বয়ং ইসির অভিযোগ, অধিকাংশ ব্যাংকে নতুন হিসাব খোলা বা ঋণ বিতরণসহ নানা কাজে কোনো বিকল্প ব্যবস্থা না রেখেই জাতীয় পরিচয়পত্র প্রদর্শন বা এর অনুলিপি দাখিলের শর্তারোপ করা হচ্ছে। তাছাড়া পাসপোর্ট অধিদপ্তর, রাজধানী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষসহ বিভিন্ন সংস্থা সেবা প্রদানের ক্ষেত্রেও বিকল্প ব্যবস্থা ছাড়াই জাতীয় পরিচয়পত্রের অনুলিপি সংযোজন বাধ্যতামূলক করা হয়েছে। এতে নাগরিকরা ভোগান্তির শিকার হচ্ছেন। এ জন্য ব্যাংকে হিসাব খোলা বা পরিচালনা করা বা ঋণ গ্রহণ অথবা বিভিন্ন সংস্থা/দপ্তর সেবা প্রদান সংক্রান্ত কোনো কাজে জাতীয় পরিচয়পত্র প্রদর্শন বা এর অনুলিপি দাখিলের বিষয়টি এ সংক্রান্ত গেজেট বিজ্ঞপ্তি না হওয়া পর্যন্ত বাধ্যতামূলক না করার জন্য অনুরোধ করা হয়েছে।

২০১০ সালে ‘জাতীয় পরিচয় নিবন্ধন এবং তদসংশ্লিষ্ট অন্যান্য বিধানাবলী প্রণয়নকল্পে প্রণীত আইনের ১১ ধারায় বলা আছে, ‘সরকার, সরকারি গেজেটে এবং তদতিরিক্ত ঐচ্ছিকভাবে ইলেকট্রনিক গেজেটে প্রজ্ঞাপন দ্বারা, উহাতে উল্লিখিত যে কোন সেবা বা নাগরিক সুবিধা প্রাপ্তির ক্ষেত্রে, নাগরিকগণকে জাতীয় পরিচয়পত্র প্রদর্শন ও উহার অনুলিপি দাখিলের ব্যবস্থা চালু করিতে পারিবে। তবে শর্ত থাকে যে, বাংলাদেশের সমগ্র এলাকায় নাগরিকগণের অনুকূলে জাতীয় পরিচয়পত্র প্রদান কার্যক্রম সম্পন্ন না হওয়া পর্যন্ত এইরূপ প্রজ্ঞাপন জারি বা ব্যবস্থা চালু করা যাইবে না। (২) উপ-ধারা (১) এর অধীন প্রজ্ঞাপন জারি না করা পর্যন্ত, জাতীয় পরিচয়পত্র প্রদর্শন, কিংবা ক্ষেত্রমত, জাতীয় পরিচয়পত্রের অনুলিপি দাখিল করিবার জন্য কোন নাগরিককে বাধ্য করা যাইবে না এবং জাতীয় পরিচয়পত্র না থাকিবার কারণে কোন নাগরিককে নাগরিক সুবিধা বা সেবা পাইবার অধিকার হইতে বঞ্চিত করা যাইবে না।’

এ বিষয়ে নির্বাচন কমিশনার মোহাম্মদ আবদুল মোবারক ইত্তেফাককে বলেন, আইন অনুযায়ী জাতীয় পরিচয়পত্র ব্যবহার বাধ্যতামূলক নয়। আইনের বিপরীত কিছুই করা ঠিক নয়। তবে যেসব প্রতিষ্ঠান জাতীয় পরিচয়পত্র ব্যবহার বাধ্যতামূলক করেছে সেই সিদ্ধান্তের বিষয়ে জনগণ চ্যালেঞ্জ করতে পারে।

এ বিভাগের অন্যান্য খবর

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭, ০১৭১৭ ৬৮ ১২ ১৪ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: