সর্বশেষ আপডেট : ৬ মিনিট ৫১ সেকেন্ড আগে
বৃহস্পতিবার, ২২ জুন, ২০১৭, খ্রীষ্টাব্দ | ৮ আষাঢ় ১৪২৪ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

মৌলভীবাজার সরকারি কলেজে শিক্ষক সংকটে পাঠদান ব্যাহত

unnamed (16)মৌলভীবাজার প্রতিনিধি:: শিক্ষার্থী অনুপাতে শিক্ষক ও শ্রেণীকক্ষ নাই। নাই প্রয়োজনীয়সংখ্যক ছাত্রাবাস ও ছাত্রীনিবাসও। শিক্ষার্থীদের চলাচলের জন্য বাস প্রয়োজন ৩টি, কিন্তু আছে ১টি। এ রকম নানামুখী সংকটে একদিকে শিক্ষার্থীরা দুর্ভোগ পোহাচ্ছে অন্যদিকে ব্যাহত হচ্ছে পাঠদান। এ চিত্র মৌলভীবাজার জেলার সবচেয়ে বড়ো শিক্ষা প্রতিষ্ঠান মৌলভীবাজার সরকারি কলেজের।
কলেজের অধ্যক্ষ সৈয়দ মহিবুল ইসলাম জানান, কলেজে নানা ধরণের সংকট আছে। কিছু বিষয়ে অনার্স ও মাস্টার্স কোর্স চালু করা প্রয়োজন। দর্শন ও ইসলামের ইতিহাসে মাস্টার্স কোর্স না থাকায় অনেক শিক্ষার্থীর পক্ষে উচ্চতর শিক্ষা গ্রহণ করা সম্ভব হচ্ছে না। বিশেষ করে শিক্ষক ও শ্রেণীকক্ষ সংকটে পাঠদান ব্যাহত হচ্ছে। শিক্ষার্থী অনুপাতে কলেজে ৯০টি শ্রেণীকক্ষ প্রয়োজন, কিন্তু আছে মাত্র ৪২টি। এসব সমস্যা সমাধানের জন্য ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের কাছে আবেদন করেছি।

কলেজ কর্তৃপক্ষ ও শিক্ষার্থী সূত্র জানায়, ১৯৫৬ সালে প্রতিষ্ঠিত এই কলেজে শিক্ষার্থীর সংখ্যা ১৬ হাজার। ২০০১ সাল থেকে এখানে বাংলা, ইংরেজি, ইতিহাস, হিসাববিজ্ঞান, ব্যবস্থাপনা, পদার্থবিজ্ঞান, রসায়ন, গণিত, প্রাণিবিদ্যা, উদ্ভিদবিজ্ঞান ও রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগে স্নাতক (সম্মান) এবং স্নাতকোত্তর (মাস্টার্স) কোর্স চালু আছে। দর্শন ও ইসলামের ইতিহাস বিভাগে স্নাতক (সম্মান) কোর্স চালু থাকলেও শিক্ষক সংকটের কারণে স্নাতকোত্তর কোর্স চালু করা যায়নি। শিক্ষা ব্যবস্থাকে যুগোপযোগী ও এর মানোন্নয়নের জন্য গঠিত এনাম কমিশনের সুপারিশ অনুযায়ী, স্নাতক পর্যায়ের প্রতিটি বিভাগে ৭জন এবং স্নাতকোত্তর পর্যায়ে ১২জন করে শিক্ষকের পদ থাকার কথা। কিন্তু স্নাতকে ৪টি ও স্নাতকোত্তরে ৭টি করে পদ আছে। ফলে শিক্ষক সংকট লেগেই আছে এখানে।

কলেজ কার্যালয় সূত্র জানায়, কলেজে ৮০টি শিক্ষকের পদ আছে। এর মধ্যে বাংলা বিভাগে অধ্যাপকের ১টি, সহযোগী অধ্যাপকের ১টি ও প্রভাষকের ২টি, রাষ্ট্রবিজ্ঞানে প্রভাষকের ১টি, দর্শনে প্রভাষকের ২টি, ইতিহাসে প্রভাষকের ১টি, ইসলামের ইতিহাসে প্রভাষকের ২টি, পদার্থবিজ্ঞানে প্রভাষকের ১টি, রসায়নে প্রভাষক ও প্রদর্শকের ১টি করে পদ শূন্য।

কলেজ সূত্র আরও জানায়, এখানে শ্রেণীকক্ষ সংকট তীব্র হয়ে উঠেছে। এ কারণে ডিগ্রি পাস কোর্সের শিক্ষার্থীদের জন্য সুনির্দিষ্ট কক্ষ নাই। বিভিন্ন বিভাগের কক্ষে ক্লাস নেওয়া হচ্ছে। অনার্সের জন্য পর্যাপ্ত শ্রেণীকক্ষ নাই। শ্রেণীকক্ষের অভাবে পাঠদান কার্যক্রম ব্যাহত হচ্ছে। শিক্ষার্থীদের জন্য পর্যাপ্ত শৌচাগার নাই। কলেজের শিক্ষার্থীরা জানায়, ছাত্রী মিলনায়তনের শৌচাগার অনেক সময়েই ব্যবহার উপযোগী থাকে না। মিলনায়তনটিও জরাজীর্ণ হয়ে পড়েছে। ছাত্র মিলনায়তনের শৌচাগার ব্যবহারের অনুপযোগী। ছাত্ররা প্রয়োজনে বিভাগের শৌচাগার ব্যবহার করছেন। বর্তমানে ২টি ছাত্রীনিবাস ও ১টি ছাত্রাবাস থাকলেও তাতে সবাইকে আসন দেওয়া সম্ভব হয় না।
বিএসএস শেষ পর্বের ছাত্র একেএম সুমন জানান, কলেজে ক্লাসরুম সংকট মারাত্মক। উচ্চ মাধ্যমিক ক্লাসে গিয়ে ডিগ্রির ক্লাস করতে হয়। ডিগ্রির জন্য নির্দিষ্ট কোনো ক্লাসরুম নাই। বছরে ডিগ্রির তিন-চারটা ক্লাস হয় কি-না সন্দেহ। ক্লাসরুম না বাড়ালে এ সংকট কাটবে না।
স্নাতক (সম্মান) উদ্ভিদবিজ্ঞান বিভাগের ছাত্র বাপন কান্তি জানান, শিক্ষক ও ক্লাসরুমের সংকটে নিয়মিত ক্লাস হয় না। দু-তিন মাস যায় ক্লাসের খবর নাই। অনেক সময় কলেজে গিয়ে ফেরত আসি। কলেজের প্রাণিবিদ্যা বিভাগের স্নাতক (সম্মান) শেষবর্ষের শিক্ষার্থী সুবিনয় রায় শুভ জানান, শিক্ষক কম থাকায় একজন শিক্ষককে অনেক ক্লাস নিতে হচ্ছে। এতে অনার্সের ক্লাস কম হচ্ছে। এক-দু’জন শিক্ষকের পক্ষে সব ক্লাস নেওয়া সম্ভব হচ্ছে না। ফলে যতোটা ক্লাস হওয়ার কথা, তা হচ্ছে না। এছাড়া সেমিনারে বই সংকট আছে। একাদশ দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র কনক কান্তি ভৌমিক জানান, ক্লাসরুমের সমস্যা আছে। ছাত্রসংখ্যা অনেক। মাইক ছাড়া ক্লাসে কথা শোনা যায় না। অনেক সময় ক্লাসে মাইকও থাকে না।

শ্রেণীকক্ষ সংকট দূর করতে কলেজের পক্ষ থেকে মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদপ্তরে দু’টি ৮তলা একাডেমিক ভবন নির্মাণের জন্য আবেদন করা হয়েছে। আর শিক্ষক সংকট নিরসনে এনাম কমিশনের সুপারিশ অনুযায়ী, এখানে ১০ জন অধ্যাপক, ২৪ জন সহযোগী অধ্যাপক, ৩৪ জন সহকারী অধ্যাপক, ১৭ জন প্রভাষক ও ২জন প্রদর্শকসহ আরও ৮৭টি পদ সৃষ্টির জন্য একই অধিদপ্তরে আবেদন পাঠানো হয়েছে। এছাড়া তারা এখানে ফিন্যান্স, পরিসংখ্যান, ট্যুরিজম অ্যান্ড হসপিটাবিলিট, গার্হস্থ্য অর্থনীতি ও সমাজকর্ম বিষয়ে স্নাতক ও স্নাতকোত্তর কোর্স চালুর আবেদন করেছে।

এ বিভাগের অন্যান্য খবর

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭, ০১৭১৭ ৬৮ ১২ ১৪ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: