সর্বশেষ আপডেট : ১ ঘন্টা আগে
শুক্রবার, ২৩ জুন, ২০১৭, খ্রীষ্টাব্দ | ৯ আষাঢ় ১৪২৪ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

সরকারি হাজিদের জন্য মক্কা মদিনায় বাড়ি ভাড়া সম্পন্ন

haz-420170611171851নিউজ ডেস্ক:: হাজিদের জন্য সৌদি আরবের মক্কা-মদিনায় বাড়ি ও ক্লিনিক ভবন ভাড়া নিয়েছে সরকার। আসন্ন হজ মৌসুমে সরকারি ব্যবস্থাপনায় তিন হাজার ৭০০ হজযাত্রীর জন্য মোট আটটি ভবন ভাড়া নেয়া হয়েছে। এর মধ্যে সরকারি প্যাকেজ ‘এ’র জন্য তিনটি, প্যাকেজ ‘বি’র জন্য চারটি ও মেডিকেল সেন্টারের জন্য একটি ভবন রয়েছে। ধর্ম মন্ত্রণালয় সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

সূত্র জানায়, বাড়ি ও ক্লিনিক ভবন ভাড়া নেয়ার জন্য ধর্ম মন্ত্রণালয়ের যুগ্ম সচিব (হজ) মো. হাফিজ উদ্দিনকে আহ্বায়ক ও বাংলাদেশ হজ অফিস জেদ্দা, সৌদি আরবের কনসালকে (হজ) সদস্য সচিব করে ৯ সদস্যের কমিটি গঠন করা হয়। এই কমিটির পাঁচ সদস্য সম্প্রতি মক্কা ও মদিনায় সরেজমিন পরিদর্শন করে ওই আট ভবন ভাড়া করেন। কমিটির সদস্যরা ইতোমধ্যেই দেশে ফিরেছেন।

সরকারি হাজিদের জন্য বাড়ি ও ক্লিনিক ভবন ভাড়া নেয়ার অগ্রগতি সম্পর্কে রোববার সচিবালয়ে ধর্মমন্ত্রী অধ্যক্ষ মতিউর রহমানের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, আল্লাহর রহমতে বাড়ি ভাড়ার কাজ সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন হয়েছে। হেরেম শরিফের কাছাকাছি স্থানে ভবন পাওয়া গেছে। পাহাড়ের উপর কোনো বাড়ি ভাড়া করা হয়নি।

জানা গেছে, যুগ্ম সচিব (হজ) হাফিজ উদ্দিনের নেতৃত্বে বাংলাদেশ থেকে পাঁচ সদস্যের প্রতিনিধি দল গত ২৫ মে সৌদিতে যান। এ দলে অন্য সদ্যরা হলেন- উপ সচিব শরাফত জামান, ধর্মমন্ত্রীর এপিএস মো.শফিকুল ইসলাম শফিক, পিও মো. আবু সাইদ ও সহকারী সচিব মো. শহীদুল্লাহ তালুকদার।

এছাড়া সৌদি আরব থেকে তাদের সঙ্গে যোগ দেন বাংলাদেশ হজ অফিস জেদ্দা, সৌদি আরবের কাউন্সিলর (হজ) মো. মাকসুদুর রহমান, কনসাল জেনারেল, কনসুলেট জেনারেল অব বাংলাদেশ, জেদ্দা কর্তৃক মনোনীত দুই প্রতিনিধি ও রাষ্ট্রদূতের একজন প্রতিনিধি।

বাড়ি ও ক্লিনিক ভবন ভাড়া কমিটির একাধিক সদস্য জানান, বিভিন্ন দেশের হাজির সংখ্যা বৃদ্ধি পাওয়ায় মক্কা ও মদিনাতে বাড়ি ভাড়া গত বছরের তুলনায় বৃদ্ধি পেয়েছে। ফলে জনপ্রতি যে ভাড়া ধরা হয়েছে সেই টাকায় ভালো ভবন পাওয়া যাচ্ছিল না।

তারা জানান, কমিটির সদস্যরা সৌদি আরবে ৫০ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রার গরমেও ঘুরে ঘুরে হাজিদের জন্য ভবন দেখেন। বরাদ্দকৃত অঙ্কের টাকার মধ্যেই বাড়ি ও ক্লিনিক ভবন ভাড়া করেন। কোনো পাহাড়ের ওপর বাড়ি ভাড়া করা হয়নি। সরকারি হাজিদের জন্য যে বাড়ি ভাড়া করা হয়েছে সেখান থেকে হেরেম শরিফে পৌঁছতে ৮ থেকে ১০ মিনিট লাগতে পারে।

ধর্ম মন্ত্রণালয় প্রণীত বাড়ি ও ক্লিনিক ভবন ভাড়া কমিটির কার্যপরিধিতে বলা হয়, প্রতি চার থেকে ছয়জন হজযাত্রীর জন্য সংযুক্ত টয়লেটসহ একটি কক্ষ অনুপাতে বাড়ি বা হোটেল ভাড়া করতে হবে। মক্কায় পাহাড়ের উপর বাড়ি ভাড়া করা যাবে না। সমতল ভূমিতে মিসফালাহ এলাকার ইব্রাহিম খলিল রোডে কিংবা এরূপ সমতল এলাকা হারামে যাতায়াত সহজ এলাকায় বাড়ি বা হোটেলকে অগ্রাধিকার ভিত্তিতে বিবেচনায় আনতে হবে।

এছাড়া মক্কা ও মদিনার হারাম এলাকার কাছাকাছি সরকার ঘোষিত প্যাকেজভিত্তিক হজ প্যাকেজে বর্ণিত দূরত্ব অনুসারে মক্কা ও মদিনায় প্রয়োজনীয় সংখ্যক বাড়ি বা হোটেল ভাড়ার ব্যবস্থা করবে কমিটি। প্রকৃত মালিকের বাড়ি বা হোটেলগুলো সরেজমিন পরিদর্শন করে নির্ধারিত দূরত্ব ও সমতল এলাকায় উত্তম সুযোগ সমৃদ্ধ চিহ্নিত ও আলোচনা করে যৌক্তিক দরে ভাড়া করতে নির্দেশনা দেয়া হয়।

এসব নির্দেশনা মেনেই হাজিদের জন্য বাড়ি ও ক্লিনিক ভবন ভাড়া করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন কমিটির এক শীর্ষ কর্মকর্তা।

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭, ০১৭১৭ ৬৮ ১২ ১৪ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: