সর্বশেষ আপডেট : ৩ ঘন্টা আগে
বৃহস্পতিবার, ২৪ অগাস্ট, ২০১৭, খ্রীষ্টাব্দ | ৯ ভাদ্র ১৪২৪ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

যে কীর্তি কাঁপালো বিশ্ব

1497123552স্পোর্টস ডেস্ক:: তখন গভীর রাত। উত্তর গোলার্ধ্ব তখন গভীর ঘুমের তলে। কিন্তু এর মধ্যেই দু’ চোখে ঘুম নেই বাংলাদেশের। বাড়ি বাড়ি থেকে চাপা আনন্দের আওয়াজ পাওয়া যাচ্ছিল। হঠাত্ করেই সেই চাপা আওয়াজটা বদলে গেল। সেই জায়গা নিল চিত্কার— বাংলাদেশ, বাংলাদেশ!

হ্যাঁ, মাঝ রাতে ঘুম ভেঙে বিশ্বকে জানিয়ে দিল তারা বাংলাদেশের নাম।

জানিয়ে দিলেন সাকিব আল হাসান ও মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। বিস্ময়কর এক জুটি গড়ে বাংলাদেশকে এনে দিলেন অসামান্য, অকল্পনীয় এক জয়। এক অনন্য জয়ে মাতল বাংলাদেশ। আর বাংলাদেশের কীর্তিতে সরব হয়ে উঠলেন দুনিয়া জোড়া সাবেক ক্রিকেটার ও ক্রিকেট বিশেষজ্ঞরা।

কেন? কেন এই ‘সামান্য’ এক জয় নিয়ে এতো উন্মাদনা!

বাংলাদেশ তো জয় কম পাচ্ছে না। দেশের মাটিতে পাকিস্তানকে হোয়াইট ওয়াশ করা, ভারত ও দক্ষিণ আফ্রিকাকে সিরিজ হারানো কিংবা শ্রীলঙ্কায় গিয়ে তাদের টেস্ট ও ওয়ানডেতে হারিয়ে আসা। বাংলাদেশের কীর্তি এখন কম নয়। এই নিউজিল্যান্ডকেও বাংলাদেশ দুবার হোয়াইট ওয়াশ করেছে। তাহলে কেন সেই দলের বিপক্ষে একটা জয়ে পুরো বিশ্ব কেঁপে উঠল?

এই প্রশ্নের উত্তর শোনা যেতে পারে সাবেক ইংলিশ অধিনায়ক মাইকেল ভনের কাছে। তিনি টুইটারে লিখেছেন, ‘এর চেয়ে সুন্দর ওয়ানডে পার্টনারশিপ কখনো দেখেছি বলে মনে পড়ে না। বাঁচা-মরার লড়াই, ৩৩ রানেই চার উইকেট। সর্বকালের সেরা।’

হ্যা, এটাই রহস্য।

মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ ও সাকিব আল হাসান যে ২২৪ রানের জুটি করেছেন, সেটাই মহাকাব্যিক করে তুলেছে এই ম্যাচকে। এই জুটিটি দিয়েও ব্যাপারটা ঠিক বোঝা যাবে না। এটা ঠিক যে, এটা বাংলাদেশের সর্বকালের সেরা ওয়ানডে জুটি। এটাও সত্যি যে, চ্যাম্পিয়নস ট্রফির ইতিহাসে এটি দ্বিতীয় সেরা জুটি। তারপরও বিশ্ব এর চেয়ে বড় জুটি দেখেনি। কিন্তু মাইকেল ভনরা এই জুটিকে সর্বকালের সেরা বলছেন ওই ৩৩ রানে ৪ উইকেট পড়ে যাওয়ার কারণেই।

এর চেয়ে বড় ধ্বংসস্তূপে দাঁড়িয়ে এমন স্পর্শকাতর জুটি তো দুনিয়া আগে দেখেনি।

সাবেক ওয়েস্ট ইন্ডিয়ান ফাস্ট বোলার ইয়ান বিশপ ব্যাখ্যা করে বলছিলেন, ‘৩৩ রানে চার উইকেট থেকে বাংলাদেশের ফিরে আসাটা ছিল স্রেফ অনবদ্য। তিন দিনে তিনটি ম্যাচ, আর তিন পরাশক্তির পরাজয়। দারুণ একটা টুর্নামেন্ট চলছে।’

এই জুটির কাণ্ড স্পর্শ করেছে কিছুদিন আগেই অবসরে যাওয়া ও জুটি গড়ায় কিংবদন্তী হয়ে যাওয়া মাহেলা জয়াবর্ধনে ও কুমার সাঙ্গাকারাকেও। মাহেলা বলছিলেন, ‘বাংলাদেশ সত্যিই দারুণ খেলেছে। পুরো দলটাই দারুণ পরিপক্কতা দেখাচ্ছে। আর এখন অবধি আইসিসি চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফিটা দারুণ লাগছে।’ জয়াবর্ধনের বন্ধু ও জুটির সঙ্গী, ‘অসাধারণ প্রচেষ্টা টাইগারদের। ভালো ব্যাট করেছে সাকিব ও মাহমুদউল্লাহ। দারুণ লড়াইয়ের স্পৃহা।’

বাংলাদেশের পক্ষে সবসময় উচ্চকণ্ঠ থাকা হর্ষ ভোগলে আরো একবার আনন্দে ফেটে পড়েছেন। সাকিব আল হাসানের প্রশংসায় পঞ্চমুখ হয়ে বলেছেন, ‘পৃথিবীর কয়টা দল বলতে পারে যে, তাদের শীর্ষ পাঁচ ব্যাটসম্যানের একজন রোজ ১০ ওভার করে বল করার ক্ষমতা রাখেন? সাকিব আল হাসান একারণেই বিশ্বমানের!’

বাংলাদেশের প্রশংসায়, এই রান তাড়া করার ধরনে মুগ্ধ হয়ে পাকিস্তানের সাবেক অধিনায়ক শহীদ খান আফ্রিদি বলেছেন, ‘দারুণভাবে লক্ষ্য তাড়া করল বাংলাদেশ। এক অভাবনীয় ফিরে আসা, আর সাকিব-মাহমুদুল্লাহর জুটি! চ্যাম্পিয়নস ট্রফি ২০১৭ সত্যিই এখনো বেঁচে আছে।’

সব কথার শেষ কথা, বাংলাদেশের এই জুটির অর্থ কী? বিশ্ব ক্রিকেটে এর অবদান কী?

এই বৈশ্বিক চিন্তাটাই করেছেন সাবেক ভারতীয় অধিনায়ক সৌরভ গাঙ্গুলী। তিনি বলছিলেন, ‘মাহমুদউল্লাহ ও সাকিবের এই ব্যাটিং তরুণ ক্রিকেটারদের জন্য প্রেরণার একটা ব্যাপার হবে। তারা বুঝবে, যে কোনো পরিস্থিতি থেকে লড়াই করে ফেরা যায়। এর নামই ক্রিকেট।’

হ্যাঁ, বিশ্বকে ক্রিকেট উপহার দিল বাংলাদেশ।

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭, ০১৭১৭ ৬৮ ১২ ১৪ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: