সর্বশেষ আপডেট : ১৭ মিনিট ৪৬ সেকেন্ড আগে
বৃহস্পতিবার, ২১ সেপ্টেম্বর, ২০১৭, খ্রীষ্টাব্দ | ৬ আশ্বিন ১৪২৪ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

সাজসাজ রবে শপিংমলগুলো,নিত্যনতুন সংগ্রহে ভরপুর দোকান

1. daily sylhet 0-6নিজস্ব প্রতিবেদক:: হাতে গোনা কিছু দিন পরই আসছে মুসলমানদের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব ঈদ উল ফিতর। তাই আসন্ন ঈদকে উপলক্ষ করে প্রস্তুত করা হয়েছে সিলেট শহরের শপিংমল ও বিপনীবিতানগুলো। ক্রেতাদের আকৃষ্ট করতে সাজানো হয়েছে প্রতিটি মার্কেট ও বিপনীবিতানগুলো। ব্যবসায়ীরা যাতে নিরাপদে ব্যবসা পরিচালনা করতে পারে সেজন্য আইন-শৃঙ্খলাবাহীনি নিরাপত্তও জোরদার করেছে।

এদিকে, ঈদকে সামনে রেখে নগরীর ব্যবসায়ীরা জোর প্রস্তুতি নিয়েছেন। ব্ল-ওয়াটার, ওয়াহিদ ভিউ, শুকরিয়া মার্কেট, হাসান মাকের্ট, সিলেট প্লাজা, নয়া সড়কস্থ নারী-পুরুষের বাহারি কাপড়েরর দোকান গুলোও সাজানো হচ্ছে। অনেকের দোকান বা মার্কেটের সামনে তৈরি করা হয়েছে তোরণ।
নগরীর জিন্দাবাজারের প্রধান প্রধান মার্কেটগুলো ঘুরে দেখা যায়- ক্রেতাদের আকৃষ্ট করার জন্য ব্যবসায়ীরা দোকানগুলোকে নতুন আঙ্গিকে সাজিয়েছেন। বেশিরভাগ দোকান মালামালে ভরপুর।

ব্যবসায়ীদের সাথে আলাপকালে জানা গেছে- ঈদ বাজারকে সামনে রেখে শপিংমল ও বিপনীবিতানগুলো অন্যান্য সময়ের তুলনায় ৩ থেকে ৪গুন বেশি মালামাল মজুদ রাখা হয়েছে। কর্মচারী সংখ্যাও বাড়িয়েছেন প্রতিটি দোকানের মালিক।dslt-ed bzr

বিভিন্ন বিপণি বিতান ঘুরে দেখা যায়, ঈদকে সামনে রেখে নগরীর বিপণি বিতানগুলো সেজেছে বর্ণিল সাজে। দেশি-বিদেশি পণ্যের সমাহার নিয়ে ক্রেতা আকৃষ্টে সর্বোচ্চ চেষ্টা চালাচ্ছেন বিক্রেতারা। আর সব মার্কেটে ক্রেতাদের দৃষ্টি আকর্ষনে রয়েছে কুপনের ব্যবস্থা। নিজের পছন্দের পোশাক খুঁজতে ক্রেতারাও দল বেধে ঘুরে বেড়াচ্ছেন মার্কেটে।

ব্লু ওয়াটার শপিং সিটিতে ঈদকে সামনে রেখে নির্মাণ করা হয়েছে তোরণ। এছাড়াও ব্যবসায়ীরা নতুন নতুন জামা-কাপড় তুলেছেন।
সিটি সেন্টারের ব্যবসায়ীরা জানান- ঈদকে সামনে রেখে সর্বনিম্ন ৫ হাজার থেকে ১৫ হাজার টাকা দামের শাড়ি দোকানে তুলেছি। ক্রেতারা তাদের পছন্দ ও চাহিদা অনুযায়ী শাড়ি কিনবে। তবে তার দোকানে সর্বোচ্চ ৬০ হাজার টাকা দামের শাড়িও রয়েছে।
সিলেট মিলেনিয়াম মার্কেটের ব্যবসায়ীরা জানিয়েছেন- কসমেটিকস পণ্য পুরোবছরই সমানভাবে বিক্রি হয়। তবে ঈদকে সামনে রেখে এর মাত্রাও বেড়ে যায়। এবারের ঈদ মার্কেট বেশ জমবে বলে আশা প্রকাশ করেছেন তারা।

জিন্দাবাজার পয়েন্ট সংলগ্ন কাকলী শপিং সেন্টারের ব্যবসায়ীরা জানিয়েছেন- ঈদ উপলক্ষে ক্রেতারা আসতে শুরু করেছে। অনেকে এসে পছন্দের জামা ও অন্যান্য সামগ্রি দেখে নিচ্ছে আবার অনেকে কিনে নিয়ে যাচ্ছে।

নগরীর আল-হামরা শপিং সেন্টারে এক দামে পণ্য বিক্রির নিয়ম থাকায় এ মার্কেটে ক্রেতাদের আকর্ষণ একটু বেশি।
ব্যবসায়ীরা জানিয়েছেন- এই মার্কেটের দোকানগুলোতে একদামে কাপড়সহ পণ্য বিক্রির নিয়ম চালু থাকার ফলে এখন হয়রানী হতে হয়না বিধায় ক্রেতারাও খুশি।

পোশাকের দোকানের পাশাপাশি নগরীরর জুয়েলারি দোকানগুলোতেও ভীড় বাড়তে শুরু করেছে। নগরজুড়ে দেখা যায়, সকাল থেকে গভীর রাত পর্যন্ত দোকানগুলোতে ব্যস্ত সময় কাটছে বিক্রেতা ও ব্যবসায়ীদের । বিপণী বিতান ও দর্জি পাড়ার ব্যবসায়ীরা জানান, গত বছরের তুলনায় এই বছর ক্রেতারা বেশ কেনাকাটায় নিশ্বাস নিতে পারছে। রাজনৈতিক সহিংসতায় গত বছর বাজার তেমন একটা ধরেনি। কিন্তু এবছর রোজার শুরুর আগ থেকেই ক্রেতারা রুচিশীল পোশাক যাচাই বাছাই করে যাচ্ছেন। পাশাপাশি কিনে নিচ্ছে পছন্দের পোশাকটি। ২০রোজার পর আরও ভিড় বাড়বে ক্রেতাদের।
সিলেটের নামী-দামী বিপনী বিতানগুলির পাশাপাশি ফুটপাতের দোকানগুলিতেও নানা পণ্যের পসরা সাজিয়ে বসেছেন হকাররা। নিম্ন আয়ের মানুষরা ভীড় জমাচ্ছেন ফুটপাতের এসব দোকানগুলোতে।

এ বিভাগের অন্যান্য খবর

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭, ০১৭১৭ ৬৮ ১২ ১৪ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: