সর্বশেষ আপডেট : ২৭ মিনিট ২০ সেকেন্ড আগে
শুক্রবার, ২২ সেপ্টেম্বর, ২০১৭, খ্রীষ্টাব্দ | ৭ আশ্বিন ১৪২৪ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

জার্মানিতে স্থায়ী বসবাসের জন্য ভুয়া পিতৃপরিচয়

german-baby20170607105012আন্তর্জাতিক ডেস্ক:: জাপানে গর্ভবতী অভিবাসী নারীরা স্থায়ী বসবাসের জন্য অভিনব উপায় বের করেছে। তারা তাদের অনাগত সন্তানের ভুয়া পিতা বানাচ্ছেন জার্মান পুরুষদের। সেজন্য তাদের মোটা অঙ্কের টাকাও দিচ্ছেন সেসব অভিবাসী নারীরা। আর এই সংখ্যাটাও কম নয়। খবর বিবিসির।

জার্মান সম্প্রচার মাধ্যম আরবিবি তাদের এক অনুসন্ধানে জানিয়েছে, বার্লিনেই এমন ৭০০টি ঘটনা ঘটেছে।

এছাড়াও লোকচক্ষুর আড়ালেও এ ধরনের বেশ কিছু ঘটনার প্রমাণ রয়েছে। স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের শীর্ষ কর্মকর্তা ওলে স্ক্রোডার এমন চমকপ্রদ তথ্য দিয়েছেন।

ভিয়েতনাম, আফ্রিকা ও পূর্ব ইউরোপের বহু অভিবাসী নারী আছেন যারা জার্মানিতে আশ্রয়ের জন্য আবেদন করেছেন। তারাই মূলত জার্মান পুরুষদের তাদের সন্তানের ভুয়া পিতা বানাচ্ছেন।

আরবিবির প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ভুয়া পিতা বা অভিভাবক বানানোর এই প্রবণতা মোকাবেলা করার জন্য নতুন একটি আইনের খসড়াও অনুমোদন দেয়া হয়েছে।

যেসব অভিবাসী নারী গর্ভবতী তারা তাদের সন্তানের ভুয়া পিতা বানানোর জন্য পাঁচ হাজার ইউরো পর্যন্ত খরচ করছেন। একবার যদি ওই সন্তানের নাম রেজিস্টার হয়ে যায় তাহলে সে জার্মান নাগরিক এবং সেই সঙ্গে ওই শিশুর মাও জার্মানির নাগরিকত্ব পেয়ে যাবেন।

তবে আফ্রিকা, এশিয়া, পূর্ব ইউরোপ থেকে আসা অভিবাসীদের তুলনায় শরণার্থীরা জার্মানিতে স্থায়ী বসবাসের সুযোগ সহজেই পেয়ে যান।

২০১৫ সাল থেকেই জার্মানিতে শরণার্থীদের আশ্রয় দেবার রীতিনীতি কিছুটা কঠোর করা হয়েছে। সিরিয়া, ইরাক ও আফগানিস্তান থেকে প্রায় আট লাখ শরণার্থী জার্মানিতে আশ্রয় নেয় সেসময়।

যদিও অভিবাসন রীতিতে একটু কড়াকড়ি জারি করার পর ২০১৬ সালে আশ্রয়প্রার্থীর সংখ্যাও কমে যায়। তবে সেপ্টেম্বরের নির্বাচনের আগে জার্মানিতে অভিবাসন ইস্যুটি একটি বড় ইস্যু ।

জনমত জরিপে দেখা গেছে, ন্যাশনালিস্ট অলটারনেটিভ ফর জার্মানি বা এএফডি অভিবাসনের বিরোধিতা করে করায় জনগণের ব্যাপক সমর্থন পাচ্ছে।

স্ক্রোডার বলছেন, অভিবাসন বিষয়ক কর্তৃপক্ষের কাছ থেকে আমরা অনেক এমন ঘটনার প্রমাণ পাচ্ছি যে ভুয়া পিতা হয়ে অনেকেই টাকা উপার্জন করছে। এটা আসলে একধরনের অপরাধ। কোনোভাবেই এটা সমর্থন করা যায় না।

এআরডি টেলিভিশনকে দেয়া সাক্ষাৎকার আইনজীবী মার্টিন স্টেল্টনার বলেছেন, অনেকে এটাকে ব্যবসা হিসেবে নিয়ে নিচ্ছেন। তিনি এমন এক ব্যক্তিকে পেয়েছেন যিনি নিজেকে ১০ সন্তানের বাবা বলে দাবি করেছেন।

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭, ০১৭১৭ ৬৮ ১২ ১৪ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: