সর্বশেষ আপডেট : ১৩ মিনিট ৪ সেকেন্ড আগে
শনিবার, ১৯ অগাস্ট, ২০১৭, খ্রীষ্টাব্দ | ৪ ভাদ্র ১৪২৪ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

ইহুদি গণহত্যায় উসকানিদাতা সালমান বাংলাদেশে

salman20170606161507নিউজ ডেস্ক:: ইহুদি গণহত্যায় উসকানি দেয়ার অভিযোগে কানাডার ওন্টারিও রাজ্য পুলিশের গ্রেফতারি পরোয়ানা মাথায় থাকা সালমান হোসেন নামে দেশটির এক পলাতক আসামি বাংলাদেশে আছেন বলে এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে ন্যাশনাল পোস্ট। ইন্টারপোলের রেড নোটিশও রয়েছে সালমানের নামে।

ন্যাশনাল পোস্টের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, রোববার সালমানকে এক ফটোগ্রাফার গুলশানে দেখেছেন।

প্রতিবেদনটিতে আরও বলা হয়েছে, ওই ফটোগ্রাফার যেসব ছবি পেয়েছেন সেখানে তাকে বনানীর একটি হোটেল ও উত্তরার দিয়াবাড়ীতে দেখা যাচ্ছে।

এ বিষয়ে ওন্টারিও রাজ্য পুলিশের স্টাফ সার্জেন্ট পিটার লিওঁ বলেছেন, সালমান এখনও পলাতক রয়েছে।

সালমানের বিষয়ে জানতে চাইলে পুলিশ সদর দফতরের এআইজি (কনফিডেনশিয়াল) মনিরুজ্জামান জানান, স্পর্শকাতর এ বিষয়ে গণমাধ্যমকে কিছু বলা ঠিক হবে না। আমরা বিষয়টি দেখছি।

২০১০ সালের জুলাইয়ে সালমানের বিরুদ্ধে যখন অভিযোগ আনা হয় তখন ওন্টারিও রাজ্য পুলিশ বলেছিল, তাকে বিচারের আওতায় আনতে ক্ষমতার মধ্যে রয়েছে সবকিছু করা হবে। তবে সাত বছর পরও তাকে গ্রেফতার করা যায়নি। অভিযোগ প্রমাণিত হলে সালমানের ১৬ বছর পর্যন্ত কারাদণ্ড হতে পারে।

কানাডার পত্রিকাটির প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, তাকে দেশে ফিরিয়ে বিচারের আওতায় আনতে কর্তৃপক্ষ কী পদক্ষেপ নিচ্ছে সেটি এখনও নিশ্চিত নয়। কানাডার সঙ্গে বাংলাদেশের কোনো বন্দী বিনিময় চুক্তিও নেই।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক অটোয়াতে বাংলাদেশের একজন ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা ন্যাশনাল পোস্টকে বলেছেন, সালমানের বিষয়ে তার কিছু জানা নেই। এক দেশের আসামি অন্য দেশে পলাতক থাকলে সে বিষয়ে সরকারকে জানতে হবে।

সালমানকে গ্রেফতারে কী করা হয়েছে জানতে চাইলে রয়েল কানাডিয়ান মাউন্টেন পুলিশ জানিয়েছে, কানাডীয় কর্তৃপক্ষের অনুরোধে ইন্টারপোল একটি রেড নোটিশ জারি করেছে।

ন্যাশনাল পোস্টের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, গত সেপ্টেম্বরে একটি ভিডিওতে সালমানকে দেখা গেছে, যেটিতে বাংলা ভাষাও শোনা যায়। জঙ্গিগোষ্ঠী আইএসকে উদ্দেশ করে সেটিতে কথাও বলেছেন তিনি।

প্রতিবেদনটিতে নাম উল্লেখ না করে এক ব্যক্তির বরাত দিয়ে বলা হয়েছে, তিনি ক্রেডিট কার্ড জালিয়াতির সঙ্গেও জড়িত। এ ছাড়া তিনি মালয়েশিয়া চলে যাওয়ার বিষয়েও কথা বলেছেন। সালমানের সঙ্গে ওই ব্যক্তির পরিচয় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে।

ওই ব্যক্তির কাছ থেকে পাওয়া একটি টেলিফোন নম্বরে এক প্রতিবেদকের যোগযোগ করার কথাও বলা হয়েছে ন্যাশনাল পোস্টে। তবে যিনি ফোনটি ধরেছিলেন তিনি বিশেষ কোনো কথা বলেননি এবং টেক্সটের জবাব দেননি।

এক দশক আগে প্রথম কানাডার কর্তৃপক্ষের নজরে আসেন সালমান। একটি ভিডিওতে মুসলিম জঙ্গিদের কানাডায় হামলার কথা বলেছিলেন তিনি।

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭, ০১৭১৭ ৬৮ ১২ ১৪ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: