সর্বশেষ আপডেট : ৪ ঘন্টা আগে
শুক্রবার, ১৮ অগাস্ট, ২০১৭, খ্রীষ্টাব্দ | ৩ ভাদ্র ১৪২৪ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

ধর্ষণের পর প্রেমিকাকে হাসপাতালে রেখে প্রেমিক উধাও

Razshahe-medicale20170528182407নিউজ ডেস্ক:: ধর্ষণের পর রক্তাক্ত অবস্থায় প্রেমিকাকে (২৫) হাসপাতালের বারান্দায় রেখে পালিয়েছে কথিত প্রেমিক। এমনকি তরুণীর মোবাইল ফোন ও স্বর্ণালংকারও নিয়েছে গেছে ওই যুবক।

গতকাল শনিবার বিকেলে ধর্ষণের শিকার ওই তরুণীকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতলের ওয়ানস্টপ ক্রাইসিস সেন্টারে (ওসিসি) ভর্তি করা হয়েছে। তার বাড়ি চাঁপাইনবাবগঞ্জে।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, মোবাইল ফোনে পরিচয়ের মাধ্যমে কুয়েত প্রবাসী এক যুবকের সঙ্গে ওই তরুণীর প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। শুক্রবার বিকেলে ওই প্রেমিক দেশে ফিরছে বলে তাকে ফোন করে দেখা করার জন্য বলে। প্রেমিকের সঙ্গে দেখা করতে গিয়ে ধর্ষণের শিকার হন ওই তরুণী।

অতিরিক্ত রক্তক্ষরণ হওয়ায় প্রতারক প্রেমিক তাকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ২৮ নং ওয়ার্ডে রেখে রক্ত সংগ্রহের কথা বলে পালিয়ে যায়। এ সময় তরুণীর কাছে থাকা স্বর্ণালংকার ও তার মোবাইল ফোন নিয়ে যায় ধর্ষক।

ধর্ষণের শিকার তরুণীর মামি বলেন, হাসপাতাল থেকে খবর পেয়ে তারা এখানে আসেন। মেয়েটির বাবা নেই। তাকে নিয়ে তার মা মামার বাসায় থাকেন। মা মানসিক প্রতিবন্ধী। মেয়েটিও খানিকটা বুদ্ধিপ্রতিবন্ধী। কয়েকদিন ধরেই সে ফোনে কারও সঙ্গে বেশি বেশি কথা বলছিল। তাকে বারণ করার পরও কিছুটা মানসিক প্রতিবন্ধী হওয়ায় বোঝানো যাচ্ছিল না।

তিনি আরও বলেন, তাদের মেয়েটি জানিয়েছে, যে ছেলের সঙ্গে কথা বলতো সে কুয়েতে চাকরি করে। সেখান থেকে এসেছে। তাই শুক্রবার বিকেলে বাড়ির সবার নজর এড়িয়ে সে দেখা করতে যায়।

ধর্ষণের শিকার তরুণী তার মামা-মামীকে জানিয়েছে, ছেলেটি নগরীর রাজপাড়া থানার লক্ষ্মীপুরের কোনো এক জায়গায় নিয়ে এসে রাতে তাকে ধর্ষণ করা হয়। এরপর প্রচুর রক্তক্ষরণ হতে থাকলে তাকে হাসাপাতালে নিয়ে আসে। রক্ত সংগ্রহের কথা বলে সে তার মোবাইলফোন ও স্বর্ণালংকার নিয়ে পালিয়ে গেছে।

রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল এএফএম রফিকুল ইসলাম বলেন, শনিবার দুপুর আড়াইটার দিকে মেয়েটিকে হাসপাতালের ওয়ানস্টপ ক্রাইসিস সেন্টারে (ওসিসি) ভর্তি করা হয়েছে। সেখানে তার চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে। ওসিসি থেকেই তাকে আইনগত সহযোগিতা দেয়া হবে।

এ বিষয়ে রাজপাড়া থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আমান উল্লাহ বলেন, পুলিশ খোঁজ নিয়ে জানতে পেরেছে মেয়েটি বিবাহিত। তার সন্তানও রয়েছে। মোবাইল ফোনে পরিচয়ের সূত্র ধরে অজ্ঞাত ব্যক্তির সঙ্গে দেখা করে গোদাগাড়ীতে। এরপর সেখান থেকে চলে যায় চাঁপাইনবাবগঞ্জের আমনুরায়। তারপরে হাসপাতালে। এখন কোথায় এ ঘটনা ঘটেছে সে বলতেও পারছে না। তবে এখনো মামলা হয়নি। অভিযোগ পেলে মামলা নেয়া হবে।

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭, ০১৭১৭ ৬৮ ১২ ১৪ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: