সর্বশেষ আপডেট : ১০ মিনিট ৪১ সেকেন্ড আগে
রবিবার, ২৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৭, খ্রীষ্টাব্দ | ৯ আশ্বিন ১৪২৪ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

“ইমরান আহমদ মহিলা কলেজের সরকারিকরণের বিরুদ্ধে রীট পিটিশন ও কিছুকথা”

newspic24ইমরান আহমদ মহিলা কলেজের সরকারিকরণের বিরুদ্ধে গতকাল মহানান্য হাইকোর্ট এ জৈন্তিয়া ডিগ্রি কলেজের পক্ষ থেকে একটি রীট পিটিশন করা হয়। তাঁরা মনে করেছেন তাদের অধিকার ক্ষুন্ন হয়েছে এ জন্য রীট করতেই পারেন। এ ব্যাপারে সচেতন জৈন্তাবাসীর কাছে কয়েকটি প্রশ্ন। জৈন্তা কলেজ কর্তৃপক্ষ আসলে কি চান? তাদের কলেজ সরকারিকরণ না কি ইমরান আহমদ মহিলা কলেজ সরকারিকরণে বাধা সৃষ্টি?

ইমরান আহমদ মহিলা কলেজ সরকারিকরণ নীতিমালার সকল ক্রাইটেরিয়ায় ই পড়ে বিধায় তা সরকারিকরণ করতে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী সদয় সম্মতি প্রদান করেন। সে লক্ষ্যে সকল আনুষ্ঠানিকতা শেষে কলেজের সকল সম্পত্তি সরকার বরাবরে রেজিস্ট্রি করে দেয়া হয়েছে। ঠিক সেই মুহুর্তে রীট করে বাধা সৃষ্টি করার উদ্দেশ্য কি?

জননেতা ইমরান আহমদ যখন জৈন্তা-গোয়াইনঘাট-কোম্পানিগঞ্জ এর শিক্ষা ব্যবস্থাকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্চেন তখন একটি কুচক্রী মহল এই ষড়যন্ত্রে লিপ্ত হয়েছে।

জৈন্তিয়া কলেজ কি তাদের কে সরকারি করনের জন্য কোন সময় এম,পি মহোদয়ের কাছে গিয়েছিল বা মাননীয় প্রধান্মন্ত্রীর দপ্তরে আবেদন করেছিল? আমার জানামতে তাঁরা সে পথে যাননি। কারন সরকারিকরণের ক্রাইটেরিয়ায় তাদের ঘাটতি আছে।

একটি পুরনো কলেজ হিসেবে এখানে অনার্স কোর্স চালু হওয়ায় কথা কিন্তু সেটার জন্য আবেদন না করেই এরা গতবছর রাস্তায় নেমে আন্দোলন করে যা বর্তামান সরকার ও এম,পি মহোদয়ের ভাবমুর্তি নষ্ট করার ষড়যন্ত্র।

এই কলেজের অধ্যক্ষের চাকুরীর মেয়াদ শেষ হওয়ার পরও কার স্বার্থে প্রতিবছর কলেজের প্রায় তিন লক্ষ টাকা ব্যায় করে তাকে রাখা হয়। নতুন অধ্যক্ষ নিয়োগ কেন দেওয়া হুয়না ? এই দূর্নীতিবাজ অধ্যক্ষকে কোন স্বার্থে রাখা হয়?

এই অদক্ষ অধ্যক্ষ বি,এন,পি জামাতের লোক দিয়ে গভর্নিং বডি গঠন করে ঐতিহ্যবাহী এ প্রতিষ্ঠান ধংস করছেন।

কলেজের ফলাফল এর দিকে এটি প্রায়ই জৈন্তার সব কলেজের নীচে অবস্থান করছে। কারণ অধক্ষ্য দূর্নীতিবাজ হওয়ায় শিক্ষকরাও তাদের খেয়াল খুশীমত ক্লাস নেন।

এই অধ্যক্ষ জামাত শিবিরের ক্যাডারদের নিয়োগ দিয়ে এই প্রতিষ্ঠানকে একটি জংগী তৈরীর কারখানায় পরিণত করেছেন।
তাহলে আপনারা বলেন এই রীট করার উদ্দেশ্য কি?
আমরাও চাই জৈন্তিয়া কলেজ সহ সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান জাতীয়করণ হোক। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা ক্রমান্বয়ে দেশের শিক্ষা ব্যাবস্থা জাতীয়করণ করার ব্যাপারে আগ্রহী। নারী শিক্ষার উন্নয়নের লক্ষ্যে ইমরান আহমদ মহিলা কলেজ যখন সরকারিকরন এর চুড়ান্ত পর্যায়ে ঠিক সেই মুহুর্তে যখন এই কুচক্রী মহল বাধা সৃষ্টি করছে তাদের মুখোশ উন্মোচন হওয়া দরকার। ইনশাআল্লাহ আইনগত প্রক্রিয়ায় ইমরান আহমদ মহিলা কলেজ সরকারি হবে।

newspic24-1প্রাক্তন সাংবাদিক ও শিক্ষক সাহেদ আহমেদের ফেসবুক স্ট্যাটাস থেকে সংগৃহীত

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭, ০১৭১৭ ৬৮ ১২ ১৪ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: