সর্বশেষ আপডেট : ১ ঘন্টা আগে
শুক্রবার, ২১ জুলাই, ২০১৭, খ্রীষ্টাব্দ | ৬ শ্রাবণ ১৪২৪ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

রাশিয়ার সঙ্গে ১৮ বার গোপন যোগাযোগ হয়েছিল ট্রাম্প শিবিরের

image-33078আন্তর্জাতিক ডেস্ক:: গতবছর যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের শেষ সাত মাসে ডোনাল্ড ট্রাম্পের প্রচারশিবিরের মাইকেল ফ্লিন ও অন্যান্য উপদেষ্টারা রাশিয়ার কর্মকর্তা ও ক্রেমলিনের অন্যান্য কর্মকর্তাদের সঙ্গে অন্তত ১৮ বার গোপনে ফোন কল এবং ইমেইল বার্তা প্রেরণ করেছেন। এই ঘটনার সঙ্গে জড়িত বর্তমান ও সাবেক মার্কিন কর্মকর্তারা বার্তা সংস্থা রয়টার্সকে এ খবর নিশ্চিত করেছেন।

বৃহস্পতিবার রয়টার্সের এক বিশেষ প্রতিবেদনে বলা হয়, মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে রাশিয়ার হস্তক্ষেপ এবং ট্রাম্পের প্রচারশিবিরের সঙ্গে রাশিয়ার আঁতাতের বিষয়টি তদন্ত করতে রেকর্ডে থাকা আগের গোপন কয়েকটি যোগাযোগই এখন গোয়েন্দা সংস্থা এফবিআই ও কংগ্রেসের তদন্তকারীরা তদন্ত করছেন।

রয়টার্সকে জানানো আগের ছয়টি গোপন যোগাযোগের মধ্যে রয়েছে, যুক্তরাষ্ট্রে নিযুক্ত রাশিয়ার রাষ্ট্রদূত সের্গেই কিসলায়াক এবং ফ্লিনসহ ট্রাম্পের উপদেষ্টাদের কাছে করা ফোন কল। বর্তমান ও সাবেক তিন কর্মকর্তা এ তথ্য জানিয়েছেন।

এ ছয়টি ফোনকলের সঙ্গে আছে দু’পক্ষের মধ্যকার আরও ১২টি ফোনকল এবং ইমেইল কিংবা টেক্সট মেসেজ চালাচালির ঘটনা। রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের ঘনিষ্ঠজনদের সঙ্গে ট্রাম্পের প্রচারশিবিরের উপদেষ্টাদের এসব যোগাযোগ হয়েছে।

বর্তমান চার মার্কিন কর্মকর্তা বলেছেন, ট্রাম্পের উপদেষ্টা ফ্লিন এবং রাশিয়ার মার্কিন রাষ্ট্রদূত কিসলায়োকের মধ্যে কথাবার্তা আরও ত্বরান্বিত হয়েছিল ৮ নভেম্বরের পর। সে সময় তারা দু’জন যুক্তরাষ্ট্রের জাতীয় নিরাপত্তা ব্যবস্থাকে এড়িয়ে যোগাযোগের জন্য একটি গোপন চ্যানেল চালু করা নিয়ে কথা বলেছিলেন। সম্পর্ক উন্নয়নের ক্ষেত্রে যেটি দুপক্ষের কাছেই বৈরি বলে গণ্য।

জানুয়ারিতে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের হোয়াইট হাউস প্রাথমিকভাবে গত বছরের নির্বাচনী প্রচারের সময় রাশিয়ার সঙ্গে কোনোরকম যোগাযোগের কথা অস্বীকার করে। এরপর থেকে হোয়াইট হাউস এবং ট্রাম্পের প্রচারশিবিরের উপদেষ্টারা ওই সময় কিসলায়াক এবং ট্রাম্প উপদেষ্টাদের মধ্যে চারটি বৈঠক হওয়ার কথা নিশ্চিত করে জানায়।

তবে রয়টার্সকে ট্রাম্পশিবির এবং রাশিয়ার মধ্যে গোপন যোগাযোগের তথ্য দেওয়া কর্মকর্তারা অবশ্য বলছেন, এ পর্যন্ত ওই যোগাযোগগুলো খতিয়ে দেখে দু’পক্ষের মধ্যে কোনও ভুল কিছু করা বা আঁতাতের প্রমাণ পাওয়া যায়নি। তবে গোপন যোগাযোগের বিষয়টি প্রকাশ পাওয়ায় এখন গতবছরের নির্বাচনের সময় রুশ কর্মকর্তাদের সঙ্গে যোগাযোগের পূর্ণ তথ্য এফবিআই এবং কংগ্রেসকে দেওয়ার জন্য প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প ও তার সহযোগীদের ওপর চাপ বাড়তে পারে।

ফোনকল এবং ইমেইলে ১৮ বার যোগাযোগটি হয়েছিল ২০১৬ সালের এপ্রিল থেকে নভেম্বরের মধ্যে। যে সময়টিতে মার্কিন নির্বাচন রুশ হ্যাকারদের কবলে পড়েছিল বলে জানুয়ারিতে উপসংহার টেনেছেন যুক্তরাষ্ট্রের গোয়েন্দারা। ওই হ্যাকিংয়ের কারণেই ভোট ট্রাম্পের পক্ষে যায় এবং প্রতিপক্ষ হিলারি ক্লিনটন তার কাছে হেরে যান বলে অভিযোগ রয়েছে।

কর্মকর্তারা বলছেন, ওইসব গোপন আলোচনায় প্রাধান্য পেয়েছিল যুক্তরাষ্ট্র-রাশিয়া সম্পর্ক মেরামত। যে সম্পর্ক মস্কোর ওপর নিষেধাজ্ঞার কারণে টানাপোড়েনের মধ্য দিয়ে চলছিল। এছাড়াও ছিল, সিরিয়ায় ইসলামিক স্টেট (আইএস) জঙ্গি গোষ্ঠীর বিরুদ্ধে লড়াই করা এবং উদীয়মান শক্তি চীনের রাশ টেনে ধরায় সহযোগিতা করা।

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭, ০১৭১৭ ৬৮ ১২ ১৪ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: