সর্বশেষ আপডেট : ৩৩ সেকেন্ড আগে
শুক্রবার, ২০ অক্টোবর, ২০১৭, খ্রীষ্টাব্দ | ৫ কার্তিক ১৪২৪ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

শ্রীমঙ্গলে ‘মেটাল উইল নেভার ডাই’ : আসছে ‘পাওয়ারসার্জ’

18492648_10213206884356400_1018717760_nজীবন পাল:: শ্রীমঙ্গল মেটাল অ্যালায়েন্স এর আয়োজনে দ্বিতীয় বারের মত অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে ‘মেটাল উইল নেভার ডাই’। এতে হেডলাইনার হিসেবে থাকছে ‘পাওয়ারসার্জ’। সাথে থাকছে থ্রীল,ইনফেডেল, ক্রনিকেল রেফসোডি,এক্স-৭১, প্রহর, প্রাচীন, জেনোসাইড।

১৮ মে বৃহস্পতিবার বিকাল থেকে শ্রীমঙ্গল ডাকবাংলো অডিটোরিয়ামে শুরু হওয়া এই প্রোগ্রামটি চলবে রাত ১০টা পর্যন্ত ।

প্রোগ্রাম সম্পর্কে জানতে চাইলে শ্রীমঙ্গল ব্যান্ড এসোসিয়েশনের সভাপতি সুজয় রায় জানান, শ্রীমঙ্গল মেটাল অ্যালায়েন্স এর আয়োজনে গত বছর ছিলো “মেটাল উইল নেভার ডাই” এর প্রথম প্রোগ্রাম। সেই ধারাবাহিকতায় এটা হচ্ছে দ্বিতীয় আয়োজন।

তিনি বলেন, প্রথম বারের আয়োজিত মেটাল ব্যান্ড অনুষ্ঠানে সকলের অংশগ্রহন ও সহযোগিতায় যথার্থই স্বার্থক হয়েছে বলে মনে করছি। গতবারের মত এইবারও আমাদেরকে আয়োজন থেকে শুরু করে প্রচারে সহযোগিতা করার জন্য সিলেটের জনপ্রিয় পত্রিকা ডেইলি সিলেটকে মিডিয়া পার্টার হিসেবে আমাদের পাশে পেয়েছি । সেজন্য ডেইলি সিলেটকে আন্তরিক ভাবে ধন্যবাদ জানাচ্ছি। আশাকরি ভবিষ্যতেও আমরা আমাদের আয়োজনে সকলকে পাশে পাবো।

এই অনুষ্ঠানের উদ্দেশ্য সম্পর্ক জানতে চাইলে সুজয় বলেন, মূলত স্কিল ডেভেলপের জন্যই এরকম অনুষ্ঠানের আয়োজন করা। এই অনুষ্ঠানে গত বারও বাইরের দুটি ব্যান্ড ছিলো। এইবারও থাকছে ঢাকার দুটি ব্যান্ড। শ্রীমঙ্গল সাধারনত মেটাল ব্যান্ড প্রোগ্রাম হয় না। যার কারনে এখানের মেটাল ব্যান্ডগুলো তাদের মিউজিক ডেভেলপের তেমন একটা সুযোগ পায়না বললেই চলে। এর ফলে মেটাল দর্শকের সংখ্যাটাও নগন্য।
এরকম মেটাল ফেস্ট হলে একদিকে যেমন মেটাল ব্যান্ডগুলো তাদের পারফরমেন্স দেখাতে পারে অন্য দিকে বাইরে থেকে আসা মেটাল
ব্যান্ডগুলো থেকে এখানের ব্যান্ডগুলো নিজেদের মিউজিক স্কিল ডেভেলপ করতে পারে। এতে করে মেটাল ব্যান্ডের প্রতি আগ্রহ বাড়ে। দশর্কও সৃষ্টি হয়।

শ্রীমঙ্গল ব্যান্ড এসোসিয়েশন’র উপদেষ্টা, শ্রীমঙ্গল মিউজিকেল একাডেমীর পরিচালক সংগীতশিল্পী সুমিত পাল বলেন, গান মানুষের কথা বলে, মানুষকে বাঁচতে শেখায়,সমাজের শৃঙ্খলা বজায় রাখে। এক কাপ চা যেমন মানুষের ক্লান্তি দূর করতে সক্ষম ঠিক তেমনি একটি গানও সক্ষম হয় সেই ক্লান্তিকে ঝেড়ে মনের সাথে সাথে দেহটাকে মুহুর্তের মধ্যে চাঙ্গা করতে। গানের বয়সের কোন মাফজোক নেই,নেই কোন বাছবিচার। গানের নেই কোন ধর্ম,নেই জাতি-প্রথার বিভেদ। গান ভালবাসেনা এমন মানুষ খোঁজে পাওয়া দূর্লভ। তবে গানের শ্রোতার মধ্যে রয়েছে পার্থক্য। একেক বয়সী মানুষ একেক রকম গান শুনতে ভালবাসেন। মধ্যপ্রাচে ব্যান্ড সংগীতের শ্রোতা সব বয়সী হলেও সাধারণত আমাদের দেশের তরুণ-তরুণীরাই এই  গানের অধিকাংশ শ্রোতা। বলতে হয় আমাদের দেশের তরুন-তরুনীরাই টিকিয়ে রেখেছে এই ব্যান্ড সংগীতটাকে। আর শ্রীমঙ্গলের মত উপজেলা শহরে এই সংগীতকে আলোর পথে পথ দেখাতে অন্ধকারে যারা আলোক মশাল জ্বালিয়ে যাচ্ছে তারা হলেন শ্রীমঙ্গল ব্যান্ড এসোসিয়েশনর মেম্বাররা। যাদের সহযোগিতায় শ্রীমঙ্গলে প্রতিবছর এরকম একটা ব্যান্ড প্রোগ্রাম করা সম্ভব হচ্ছে। শ্রীমঙ্গল একটা উপজেলা শহর। আর কোন উপজেলা শহরে এতটা ব্যান্ড আছে বলে আমার জানা নেই। জানা নেই আর কোন উপজেলা শহরে এরকম বড় পরিসরে মেটাল প্রোগ্রামের আয়োজন করা হয় কিনা।

তিনি বলেন, শ্রীমঙ্গল ব্যান্ড এসোসিয়েশনের মেম্বার হয়ে আমিও নিজেকে ধন্য মনে করছি। অনেকে না জেনেই ব্যান্ডটাকে অপসংস্কৃতি হিসেবে আখ্যায়িত করে থাকেন। আসলে এটা তাদের ভুল না। এই ভুলটা তাদের জানার। এই কথা না বললেই নয় যে, বাংলাদেশে একটি কনসার্ট করতে এসে ঢাকার শাহজালাল আর্ন্তজাতিক বিমানবন্দরে দশ ঘন্টা আটকে পড়েছিল ব্রাজিলের দুই রক ব্যান্ড ক্রিসিউন এবং নার্ভোকেয়স। এরপর অনুষ্ঠান না করেই ফিরে গেছে তারা।
গত ৮ই মে ঢাকার টিসিবি ভবনে ‘দ্য মেটাল মর্গ’ শিরোনামে তাদের শো করার কথা ছিল। তবে এই অনুষ্ঠানের জন্য পুলিশের স্পেশাল ব্র্যাঞ্চের অনুমতি না মেলায় তাদেরকে প্রায় দশ ঘন্টার মত এয়ারপোর্টে আটকে থাকতে হয়। তবে এসবির পক্ষ থেকে নির্দিষ্ট কোন কারণ দেখানো হয়নি বলে জানান আয়োজক ইভেন্ট ম্যানেজমেন্ট প্রতিষ্ঠান।
তবে এই দুটো ব্যান্ডের সদস্যরা এসে এয়ারপোর্টে দীর্ঘ সময় আটকে থাকার ছবি সামাজিক মাধ্যমে প্রকাশ করা হলে, এ নিয়ে ভক্তদের মাঝে তীব্র প্রতিক্রিয়া দেখা যায়। বিদেশি শিল্পীদের গ্রেপ্তার করা হয়- এমন খবরও সামাজিক মাধ্যমে ঘুরতে থাকে।
বেসরকারি একটি রেডিও স্টেশনের সঙ্গে পার্টনারশিপে এই প্রোগ্রামের উদ্যোক্তা র‍্যাপটর এন্টারটেইনমেন্ট নামে একটি প্রতিষ্ঠান। এই প্রতিষ্ঠানের প্রধান রাফিউদ্দীন খান রুশো বলেছেন, গ্রেপ্তার নয়, তাদের ডিটেইন (জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক) করা হয়েছিল।

এটা দু:খজনক যে অনুমতি না থাকায় শেষমুহূর্তে অনুষ্ঠানটি বাতিল করতে হয়েছে। অনুষ্ঠান হওয়ার কথা যেখানে ৯ই মে মঙ্গলবার, সেখানে সোমবারও অনুমতি না মেলায় অনুষ্ঠান বাতিলের ঘোষণা দিতে হয়। কিন্তু শিল্পীরা নির্ধারিত সময়মতোই এয়ারপোর্টে পৌঁছে যান ৯ তারিখ রাত একটার পর। তখন তাদের ইমিগ্রেশনে আটকে দেয়া হয়। নয়জন শিল্পীর পাসপোর্টেও তারা নিয়ে যায়”।
“এসবির পক্ষ থেকে ভ্যালিড কারণ বলা হয়নি, পরবর্তী ডেটের(তারিখের) জন্য আবেদন করতে বলা হয়েছে”।
ক্রিসিউন এবং নার্ভোকেয়স বিভিন্ন দেশে সফরের অংশ হিসেবে বাংলাদেশে এসেছিল শো করতে। পরে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের হস্তক্ষেপে শোয়ের অনুমতি পাওয়া যায় বলে জানান র‍্যাপটরের কর্মকর্তারা। তবে অনুষ্ঠানটি আর করা সম্ভব হয়নি। বেশকিছু শর্তে অঙ্গীকারনামা দেয়ার পর ব্রাজিলের ব্যান্ডের শিল্পীদের ইমিগ্রেশন থেকে মুক্তি মেলে। বুধবার সকালে ফেরত যায় ক্রিসিউন এবং নার্ভোকেয়স ব্যান্ডের সদস্যরা।

এসব কারণে নিশ্চয় তাদের সামনে আমাদের মাথাটা উচু থাকার কথা নয়। সবশেষ এইটুকুই বলবো, অন্যান্য সংগীতের মত ব্যান্ড সংগীতও সংস্কৃতির একটা অংশ। এটাকে সংস্কৃতির বাইরের কিছু মনে করলে হবেনা। শ্রীমঙ্গল মেটাল অ্যালায়েন্স এর আয়োজনে দ্বিতীয় বারের মত অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে “মেটাল উইল নেভার ডাই”। অনুষ্ঠানটি সফলভাবে শেষ করতে সকলের সহযোগিতা কামনা করছি।

এ বিষয়ে প্রথমবারের মত উপজেলা শহরে পারফর্ম করতে আসা “পাওয়ারসার্জ” ব্যান্ডের গীটারিষ্ট সাইমুম হাসান নাহিয়ান ডেইলি সিলেটকে জানান, গত ১০ বছরে বাংলাদেশে মেটাল,আন্ডারগ্রাউন্ড মেটাল বা ঢাকার বাইরেও মেটাল মিউজিকের যে চর্চাটা আমরা দেখছি তা দিনে দিনে অনেক বাড়ছে। এটা আমাদের জন্য অনেক ভাল একটা খবর বলতে পারেন। কেননা, ঢাকার সাথে সাথে মেটালটা এখন চট্রগ্রাম,সিলেট এবং এখন শ্রীমঙ্গলের মত উপজেলা শহরেও ছিটিয়ে পড়েছে। যত মানুষ মেটাল মিউজিকের প্রতি ইন্টারেষ্ট দেখাবে বা এরেঞ্জমেন্ট দেখাবে মেটালের মান ও মেটাল শ্রোতাদের মান ততটাই উন্নত হবে। সেই সাথে লোকাল মিউজিশিয়ানদের স্টেন্ডারিটি ততটাই রীচ হবে।

উপজেলা শহরে মেটাল ব্যান্ডের এরকম একটা প্রোগ্রামের আয়োজনের এরকম একটা উদ্যোগ নেওয়া সম্পর্কে জানতে চাইলে নাহিয়ান বলেন, শ্রীমঙ্গল ব্যান্ড এসোসিয়েশন ও শ্রীমঙ্গল মেটাল অ্যালায়েন্স’র উদ্যোগটা আসলেই প্রশংসনীয়। একটা উপজেলা শহরে এরকম একটা মেটাল প্রোগ্রাম করার যে সাহস তারা রাখছে সেটাকে আমি দু:সাহস বলবো। অবশ্যই তারা অনেক রিস্ক নিয়ে এই প্রোগ্রামটির আয়োজন করছে। কেননা, মেটালটা তো আসলে গতানুগতিক সংগীতের ন্যায় না। তারপরও তারা আমাদের সব চাহিদা,সাউন্ড রিকোয়ারমেন্ট প্রভাইড করছে। এর জন্য,we are very happy.

আয়োজকদের জন্য, ওদের এই আয়োজনের জন্য অনেক অনেক শুভ কামনা রইলো। ওরা যেন সামনে এরকম আরো উদ্যোগ নিতে পারে। ওদের “মেটাল উইল নেভার ডাই” ইভেন্টটি সুন্দর ও সফল হউক এটাই আমাদের প্রত্যাশা,এটাই আমাদের কামনা।

শ্রীমঙ্গলে এ ধরনের ব্যান্ড প্রোগ্রামের আয়োজনে আইনী সহযোগিতা প্রদান সম্পর্কে জানতে চাইলে শ্রীমঙ্গল থানার অফিসার ইনচার্জ কে এম নজরুল ডেইলি সিলেটকে জানান, এ ধরনের প্রোগ্রামের জন্য আয়োজকরা যদি এসপি বরাবর লিখিত আবেদন করে থাকে এবং সেই সাপেক্ষে যদি  প্রোগ্রামের অনুমতি থাকে তাহলে অবশ্যই আমাদের পক্ষ যথেষ্ট আইনী সহযোগিতা পাবে।

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭, ০১৭১৭ ৬৮ ১২ ১৪ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: