সর্বশেষ আপডেট : ৩১ মিনিট ৩৩ সেকেন্ড আগে
শুক্রবার, ২২ সেপ্টেম্বর, ২০১৭, খ্রীষ্টাব্দ | ৭ আশ্বিন ১৪২৪ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

নিউইয়র্কে সাবেক খেলোয়ারদের সাথে বাংলাদেশ অ্যাথলেটিকস ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট মন্টুর মতবিনিময়

unnamed (2)নিউইয়র্ক সংবাদদাতা:: বাংলাদেশ অ্যাথলেটিকস ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক ও বাংলাদেশের সহকারী এটর্নী জেনারেল এডভোকেট আব্দুর রকিব মন্টু বলেছেন, আগামী তিন মাসের মধ্যে দেশের অ্যাথলেটিক্সে আমুল পরিবর্তন আনতে চ্যালেঞ্জ হিসেবে নিয়েছি। এজন্য সবার পরামর্শ চাই। অ্যাথলেটিক্সকে এগিয়ে নিতে না পারলে দায়িত্ব ছেড়ে দেব। নিউইয়র্কে জ্যাকসন হাইটসে খাবার বাড়ী রেষ্টেুরেন্টের চাইনিজে স্থানীয় সময় ৩০ এপ্রিল রোববার অপরাহ্নে যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী সাবেক খেলোয়ারদের সাথে মতবিনিময়কালে তিনি এসব কথা বলেন।
সভা থেকে আব্দুর রকিব মন্টুকে বাংলাদেশের আগামী জাতীয় নির্বাচনে মনোনয়ন দেয়ার জন্য প্রধানমন্ত্রীর নিকট দাবী জানান হয়।
এ মতবিনিময় সভায় বাংলাদেশ স্পোর্টস ফাউন্ডেশন অব নর্থ আমেরিকা, বাংলাদেশ স্পোর্টস কাউন্সিল অব নর্থ আমেরিকাসহ যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী সাবেক জাতীয় ও আন্তর্জাতিক খেলোয়ার, সাংবাদিক, বিভিন্ন পেশাজীবী ও সংগঠনের নেতর্ৃৃবৃন্দ বক্তব্য রাখেন।
বাংলাদেশ অলিম্পিক এসোসিয়েশনের কার্যকরী পরিষদের নবনির্বাচিত কার্যকরী সদস্য অ্যাডকেট আব্দুর রকিব মন্টু বলেন, ক্রিকেটের মত অ্যাথলেটিক্সকেও সামনে নিয়ে যাওয়ার জন্য বাস্তমুখী পরিকল্পনা গ্রহণ করা হচ্ছে। এর অংশ হিসেবে ইতোমধ্যে ‘ইয়ারলী ক্যালেন্ডার’ সহ বেশ কিছু উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে। তিনি বলেন, দেশের ক্রীড়াঙ্গনকে আমরা রাজনীতিমুক্ত রাখতে চাই। একজন খেলোয়ারকে মূল্যায়ন করা হবে তার মেধা ও যোগ্যতার ভিত্তিতে। রাজনৈতিক পরিচয়ে নয়। তিনি বলেন, রাজনৈতিক পরিচয়ে নয় একজন সাবেক খেলোয়ার হিসেবে সরকার আমাকে মূল্যায়ন করেছে। এজন্য আমি প্রধানমন্ত্রী ও ক্রীড়া মন্ত্রীর প্রতি কৃতজ্ঞতা জানাছি। আমি দেশের সেরা খেলোয়ারদের পাশাপশি প্রবাসী খেলোয়ারদেরও মূল্যায়িত করতে চাই। যাতে দেশের সাথে প্রবাসের সেতু বন্ধন তৈরী হবে। নতুন দায়িত্বকে চ্যালেঞ্জ হিসেবে উল্লেখ করে তিনি বলেন, সঠিকভাবে দায়িত্ব পালন করতে না পারলে প্রয়োজনে দায়িত্ব থেকে সরে দাঁড়াব। তিনি বলেন, আমি অপরাজনীতি-অপসংস্কৃতির নয়, উন্নয়নের রাজনীতিতে বিশ্বাসী।
প্রবাসের সাবেক খেলোয়ার ও ক্রীড়া সংগঠক এবং শুভাকাঙ্খীর ব্যানারে আয়োজিত সভায় সভাপতিত্ব করেন সাবেক ক্রীড়াবীদ ও সাপ্তাহিক ঠিকানা’র সিইও সাঈদ-উর রব পরিচালনা করেন বাংলাদেশ স্পোর্টস কাউন্সিল অব আমেরিকা’র সভাপতি মহিউদ্দিন দেওয়ান। সভায় অন্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন যুক্তরাষ্ট্র সফররত সাবেক আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়কমন্ত্রী অ্যাডভোকেট আব্দুল মতিন খসরু এমপি, বাংলাদেশ স্পোর্টস ফাউন্ডেশন অব নর্থ আমেরিকার সভাপতি ও স্পোর্টস কাউন্সিলের প্রতিষ্ঠাতা সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রহিম বাদশা, সাপ্তাহিক ঠিকানা’র প্রধান সম্পাদক মুহাম্মদ ফজলুল রহমান, বাংলাদেশের সাবেক দ্রুত মানব শাহজালাল মবিন ও বিমল তরফদার, বিশিষ্ট ক্রীড়া সংগঠক শমসের আলী, সাবেক শুটার এসএম ফেরদৌস, সাবেক বক্সার সৈয়দ এনায়েত আলী, স্পোর্টস কাউন্সিলের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল বাসেত খান বুলবুল, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জুয়েল আহমেদ, ডা. শাহানারা আলী, কমিউনিটি অ্যাক্টিভিস্ট আবদুস সহীদ দুদু, ফেরদৌসী বেগম প্রমুখ।
সভায় স্পোর্টস কাউন্সিলের কোষাধ্যক্ষ ওয়াহিদ কাজী এলিন, বক্সার সেলিমসহ প্রবাসে বসবাসকারী সাবেক ক্রীড়াবীদ ও সংগঠকগণ উপস্থিত ছিলেন।
উল্লেখ্য, বাংলাদেশ অ্যাথলেটিক্স ফেডারেশন-এর নব মনোনীত সাধারণ সম্পাদক ও বাংলাদেশ অলিম্পিক এসোসিয়েশনের কার্যকরী পরিষদের নির্বাচিত সদস্য হিসেবে অ্যাডকেট আব্দুর রকীব মন্ট এই প্রথম যুক্তরাষ্ট্র সফর করেন। অনুষ্ঠানে তাকে ফুলেল শুভেচ্ছা জানানো হয়।
সভায় আব্দুল মতিন খসরু বলেন, মন ভালো রাখতে, মনকে প্রফুল্ল রাখতে খেলোধুলার বিকল্প নেই। আমাদের ক্রিকেট দেশকে বিশ্ব দরবারে কল্পাতীত মর্যাদা এনে দিয়েছে। তিনি বলেন, অ্যাডভোকেট মন্টু ক্রীড়া পরিবারের সদস্য। এজন্যই তাকে ক্রীড়াঙ্গনের গুরু দায়িত্ব দেয়া হয়েছে। তিনি মন্টুর সার্বিক সাফল্য কামনা করেন।
আব্দুর রকীব মন্টু তার বক্তব্যে আরো বলেন, আমি নামেমাত্র চেয়ারে আছি। আমার ঐ চেয়ারের মালিক প্রবাসী খেলোয়ারগণসহ দেশের সকল খেলোয়ার। আমি রাজনৈতিক পরিচয়ে নয়, প্রবাসী খেলোয়ার হিসেবে নতুন দায়িত্ব পেয়েছি। আমি সবার প্রতিনিধি হিসেবে দায়িত্ব পালন করতে চাই।
সাবেক জাতীয় ও আন্তর্জাতিক পর্যায়ের এ কৃতি খেলোয়ার ও সংগঠক দেশের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে খেলোয়ারী কোটা বন্ধ সহ ক্রীড়াঙ্গনের নানা সমস্যার কথা তুলে ধরে আরো বলেন, আমরা খেলোয়াররাই আমাদের সম্মান নষ্ট করছি। আমি ক্রীড়াঙ্গনে মাসলম্যান দেখতে চাই না। আমাদেরকে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে। তিনি বলেন, ভারত সহ বিভিন্ন দেশের সাবেক খেলোয়ারদের জন্য চাকুরী সহ ইন্সুরেন্সের ব্যবস্থা রয়েছে। কিন্তু আমাদের দেশের তেমন ব্যবস্থা নেই। তিনি বলেন, দেশে অ্যাথলেটস না থাকলে অ্যাথলেটিক্স ফেডারেশনও থাকবে না। তাই আমাদেরকে খেলোয়ার তৈরী করতে হবে।
সভায় সাবেক ক্রীড়াবীদরা নতুন দায়িত্বের জন্য আব্দুর রকিব মন্টুকে শুভেচ্ছা জানিয়ে বলেন, তার সম্মান মানেই প্রবাসী খেলোয়ারদের সম্মান। কেননা তিনি একজন প্রবাসী খেলোয়ার। বক্তারা তাদের বক্তব্যে দেশের ক্রীড়াঙ্গনের বিভিন্ন সমস্যার কথা তুলে ধরে বলেন, দূর্ভাগ্য হলেও সত্য যে, দেশ-বিদেশে সুনাম অর্জনকারী অনেক খেলোয়ার আজ প্রবাসী। দেশ তাদের ধরে রাখতে পারছে না, মূল্যায়নও করছে না। তাদের অভিজ্ঞতাকেও কাজে লাগাচ্ছে না। এতে দেশের ক্রীড়াঙ্গন যেমন ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে, তেমনী প্রবাসে দেশের অনেক সাবেক খেলোয়ার নানা সমস্যার মধ্যদিয়ে জীবন-যাপন করছেন। বক্তারা অভিযোগ করে বলেন, অবসরের পর জাতীয় খেলোয়ারগণকে মূল্যায়িত করা হচ্ছে না। বক্তারা সাবেক খেলোয়ারদের আর্থিক সমস্যার সমাধানে বিভিন্ন ষ্টেডিয়াম মার্কেটে একটি করে দোকান বরাদ্দ দিয়ে সরকারকে সহযোগিতর হাত প্রসারিত করা এবং প্রবাস থেকে একটি দলকে দেশের ক্রীড়াঙ্গনের প্রতিযোগিতায় অংশ নেয়ার সুযোগ দেয়ারও দাবী জানান।
সভায় কোন কোন বক্তা দেশের ক্রীড়াঙ্গনকে রাজনীতিমুক্ত রাখা এবং স্পোর্টস মেডিসিন বিশেষজ্ঞ নিয়োগদানেরও দাবী জানান। আব্দুর রকীব মন্টুকে আগামী নির্বাচনে সংসদ সদস্য হিসেবে জাতীয় সংসদে দেখতে চান।

এ বিভাগের অন্যান্য খবর

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭, ০১৭১৭ ৬৮ ১২ ১৪ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: