সর্বশেষ আপডেট : ২ মিনিট ৫১ সেকেন্ড আগে
সোমবার, ২১ অগাস্ট, ২০১৭, খ্রীষ্টাব্দ | ৬ ভাদ্র ১৪২৪ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

এবার আত্মহত্যা নিয়ে মুখ খুললেন জুকারবার্গ!

OilRSb_5তথ্যপ্রযুক্তি ডেস্ক::ফেসবুকের মাধ্যমে হয়রানির শিকার হয়েছে এমন মানুষের সংখ্যা নেহাত কম নয়। মানুষের বিকৃত ছবি থেকে শুরু করে, আত্মহত্যার লাইভ শো পর্যন্ত চলে এসেছে ফেসবুকে। তাই এবার টনক নড়েছে ফেসবুক প্রতিষ্ঠাতা মার্ক জুকারবার্গের। নিজের টাইমলাইনে ফেসবুকে নিরাপত্তার ব্যাপারে তার পদক্ষেপ নিয়ে আলোচনা করেছেন মার্ক।

পাঠকের সুবিধার্থে মার্ক জুকারবার্গের পোস্ট এখানে হুবহু তুলে ধরা হল-

গত কয়েক সপ্তাহ ধরে, আমরা মানুষকে ফেসবুকে নিজেদের এবং অন্যকে আঘাত করতে দেখেছি। তারা লাইভ বা ভিডিও পোস্ট করে অন্যের জীবন দুর্বিষহ করে তুলছে। এটা হতাশাজনক, এবং আমি চেষ্টা করছি কিভাবে আমাদের সম্প্রদায়ের জন্য ভাল করতে পারি।

আমরা যদি একটি নিরাপদ সম্প্রদায় তৈরি করতে চাই, তাহলে আমাদের দ্রুত প্রতিক্রিয়া জানাতে হবে। আমরা এই ভিডিওগুলিকে সহজে রিপোর্ট করার জন্য কাজ করছি যাতে আমরা সঠিক পদক্ষেপটি খুব শীঘ্রই নিতে পারি। যখন কেউ সাহায্যের জন্য রিপোর্ট করবে তখন যেন আমরা দ্রুত পোস্টটি ডিলিট করতে পারি তা চেষ্টা করব।

আগামী বছরের মাঝে, বিশ্বজুড়ে আমরা আমাদের কমিউনিটি অপারেশন টিমে আরও ৩,০০০ জন লোককে নিয়োগ দিব। আজ পর্যন্ত আমাদের সাথে ৪,৫০০ লক কাজ করে। আমরা প্রতি সপ্তাহে লক্ষাধিক প্রতিবেদন পর্যালোচনা করি এবং এটি করার জন্য প্রক্রিয়াটি উন্নত করা জরুরী।

কোন পোস্ট রিভিউ করা হলে আমাদের বুঝতে সুবিধা হয়। ফেসবুক থেকে আমরা ঘৃণাত্মক বক্তৃতা এবং শিশু শোষণের মতো জিনিসগুলিকে সরানোর জন্য প্রস্তুত, কিন্তু এক্ষেত্রে আপনাদের সহায়তাও প্রয়োজন। আমরা স্থানীয় সম্প্রদায় গোষ্ঠী এবং আইন প্রয়োগকারী সংস্থার সাথে কাজ করব, যারা সকলের প্রয়োজন হলে তাদের সাহায্য করার জন্য সর্বোত্তম অবস্থানে রয়েছে। কেউ যদি নিজেদের ক্ষতি করতে চায় বা অন্য কাউকে ক্ষতির সম্মুখীন করতে চায়, তাহলে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

আরো লোকেদের উপর নজর রাখার জন্য এবং আমাদের সম্প্রদায়কে নিরাপদ রাখতে আরও ভাল সরঞ্জাম নির্মাণ করছি। আমরা আমাদের কাছে রিভিউকারীদের পোস্ট গুলি খেয়াল করি, কোন পোস্টগুলি আমাদের মানদণ্ড লঙ্ঘন করে তা নির্ধারণ করতে এবং আইন প্রয়োগকারী সংস্থার সাথে যোগাযোগ করার জন্য যদি তাদের সাহায্যের প্রয়োজন হয় তবে এই কাজটি যেন দ্রুত এবং সহজতর করা যায় সে চেষ্টা করছি।

এটা গুরুত্বপূর্ণ। গত সপ্তাহে, আমরা একটি রিপোর্ট পেয়েছি যে কেউ লাইভে এসে আত্মহত্যা করতে চলেছে। আমরা অবিলম্বে আইন প্রয়োগকারী সংস্থার কাছে পৌঁছলাম এবং তারা সেই ব্যক্তিকে আঘাত করার জন্য বাঁধা দিতে সক্ষম হয়েছিল। অন্য ক্ষেত্রে, আমরা এত ভাগ্যবান ছিলাম না।

এই অবস্থানে কেউই থাকা উচিত নয়, তবে যদি সেগুলি হয়েই থাকে, তাহলে আমাদের উচিত একটি নিরাপদ সম্প্রদায় গড়ে তোলা যা তাদেরকে তাদের প্রয়োজনীয় সাহায্য করতে পারে।

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭, ০১৭১৭ ৬৮ ১২ ১৪ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: