সর্বশেষ আপডেট : ৭ ঘন্টা আগে
শুক্রবার, ২১ জুলাই, ২০১৭, খ্রীষ্টাব্দ | ৬ শ্রাবণ ১৪২৪ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

দোয়ারাবাজারে টেংরা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের মানববন্ধন

unnamed (6)তাজুল ইসলাম, দোয়ারাবাজার:: সুনামগঞ্জের দোয়ারাবাজারে ভাড়াটে মোটরসাইকেলের দৌরাত্ম্য বেড়েই চলছে। ফলে প্রতিনিয়ত দূর্ঘটনার খবর পাওয়া যাচ্ছে। এতে নিরাপত্তাহীনতায় ভূগছেন যাত্রীসহ সাধারণ পথচারীরা। সড়ক যোগাযোগ ব্যবস্থা নাজুক হওয়ায় এ উপজেলায় যাতায়াতের একমাত্র মাধ্যম মোটরসাইকেল। কিন্তু প্রশাসন কর্তৃক ভাড়ায় চালিত এসব মোটরসাইকেলের ক্ষেত্রে কোনো বিধিবিধান না থাকায় প্রতিনিয়তই হয়রানির শিকার হচ্ছেন যাত্রীরা। একটি অসাধু চক্র সিন্ডিকেটের মাধ্যমে যাত্রীদের নিকট থেকে মাত্রাতিরিক্ত ভাড়া আদায় করছে। এছাড়া রাস্তাঘাটে আইনের চোখ ফাঁকি দিয়ে দাপিয়ে বেড়াচ্ছে লাইসেন্সবিহীন অসংখ্য চোরাই মোটরসাইকেল। শুধু তাই নয়, রাস্তাঘাটে বখাটে যুবক ও সন্ত্রাসীদের আনাগোনাও ইদানিং বেড়েছে। এতে যাত্রীসহ রেহাই পাচ্ছেনা স্কুলগামী শিক্ষার্থীরাও।

জানা যায়, সোমবার উপজেলা সদর থেকে মহব্বতপুরগামী রাস্তায় বেপরোয়া গতির একটি যাত্রীবাহী মোটরসাইকেল মারাত্মক দূর্ঘটনার কবলে পড়ে। পরে এলাকাবাসীর ধাওয়া খেয়ে চালক দূর্ঘটনায় আহত মহিলা যাত্রীসহ মোটরসাইকেল রাস্তায় ফেলে পলায়ন করে। স্থানীয়রা আহত যাত্রীকে প্রাথমিক চিকিৎসা প্রদান করেন এবং মোটরসাইকেলটি টেংরাবাজার কমিটির সভাপতি মেজবাউল গনি সুমনের হেফাজতে রাখেন। এদিকে মঙ্গলবার একই সড়কে ঘটে আরেকটি চাঞ্চল্যকর ঘটনা। বাড়ি থেকে যাত্রীবাহী মোটরসাইকেলে চড়ে স্কুলে যাওয়ার পথে অপহরণ চেষ্টার শিকার হয় এক স্কুলছাত্রী। এ নিয়ে তার পরিবারের পক্ষ থেকে স্থানীয় গ্রাম্ আদালতে একটি লিখিত অভিযোগ দাখিল করা হয়েছে। জানা যায়, অভিযুক্ত মোটরসাইকেল চালকের নাম ইদ্রিস আলী। সে উপজেলার লক্ষীপুর ইউনিয়নের চানপুর গ্রামের আব্দুল মতিনের ছেলে। অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, স্থানীয় টেংরা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণীর শিক্ষার্থী সুমাইয়া বেগম যাত্রীবাহী মোটরসাইকেলে স্কুলে যাওয়ার পথে চালক কর্তৃক পথিমধ্যে অপহরণ চেষ্টার শিকার হন। তাকে যথাস্থানে নামিয়ে দিতে বলার পরও চালক ইদ্রিস আলী গাড়ি না থামালে একপর্যায়ে মহব্বতপুরগামী রাস্তায় রবিউলের দোকানের পাশে আত্মরক্ষার্থে ওই ছাত্রী মোটরসাইকেল থেকে লাফ দিয়ে মাটিতে পড়ে গুরুতর আহত হয়। তার শারীরিক অবস্থা আশংকাজনক হওয়ায় সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে।

এদিকে অপহরণ চেষ্টায় অভিযুক্ত মোটরসাইকেল চালকের বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নিতে, বেপরোয়া মোটরসাইকেল চলাচলসহ মোটরসাইকেলের ভাড়া নিয়ন্ত্রণ এবং শিক্ষার্থীদের নিরাপত্তা নিশ্চিতের দাবিতে টেংরা মাধ্যমিক বিদ্যালয় প্রাঙ্গনে শিক্ষার্থীরা ঘন্টাব্যাপী মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করে। টেংরা মাধ্যমিক বিদ্যালয় কমিটির সভাপতি শের মাহমুদ ভূঁইয়া জানান, বখাটে মোটরসাইকেল চালকদের কারণে শিক্ষার্থীরা স্কুলে আসাযাওয়াতে নিরাপত্তাহীনতার সম্মুখীন হয়। এব্যাপারে আইনি পদক্ষেপ নেয়া দরকার। প্রধান শিক্ষক সুরঞ্জিত দাস জানান, স্কুল ছাত্রীকে অপহরনের চেষ্টাকালে ঘটনার সাথে জড়িতদের শিগ্রই আইনের আওতায় আনা হোক। ব্যবসায়ী ও অভিভাবক কাজী মনিরুজ্জামান জানান, অদক্ষ মোটরসাইকেল চালকদের দৌড়াত্ম্যে আমরা সবাই অতিষ্ঠ। লাইসেন্স বিহীন গাড়ি, অদক্ষ চালক আর নিয়ন্ত্রণহীন ভাড়ার কারণে আমরা তাদের কাছে জিম্মি হয়ে পড়েছি। এই অবস্থা থেকে পরিত্রান চাই। শিক্ষার্থী রাকিবুর রহমান রাতুল জানান, আমরা এর বিচার চাই। আমাদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করা হোক। পশ্চিম বাংলাবাজার মোটরসাইকেল সমিতির সভাপতি রেজাউল চৌধুরী জানান, অভিযুক্ত ইদ্রিস আলী আমাদের সমিতির সদস্য নন। আহত স্কুল ছাত্রী সুমাইয়া বেগমের পিতা জয়নাল আবেদিন জানান, আমার মেয়ের অবস্থা আশঙ্কাজনক।আজ রাতে তাকে অস্ত্রোপচারে নেয়া হচ্ছে। আমি এর দৃষ্টান্ত মূলক বিচার চাই। সুরমা ইউপি চেয়ারম্যান খন্দকার মামুনুর রশীদ জানান, এব্যাপারে গ্রাম্ আদালতে অভিযোগ দায়ের হয়েছে। বিষয়টি সুরাহার ব্যাপারে যথাসাধ্য চেষ্টা করবো।

এ বিভাগের অন্যান্য খবর

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭, ০১৭১৭ ৬৮ ১২ ১৪ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: