সর্বশেষ আপডেট : ৮ মিনিট ১৩ সেকেন্ড আগে
বৃহস্পতিবার, ২৫ মে, ২০১৭, খ্রীষ্টাব্দ | ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৪ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

ভারত থেকে আসবে আরো ২ হাজার মেগাওয়াট বিদ্যুৎ : সিলেটে জ্বালানী প্রতিমন্ত্রী

17 April 2017_pic 004নিজস্ব প্রতিবেদক ::
বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজসম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ এমপি বলেছেন, আগামী দু বছরের মধ্যে ভারত থেকে আরও দু হাজার মেগাওয়াট বিদ্যুৎ দেশে আমদানি করা হবে। বিদ্যুতের দাম নির্ধারণ হবে দু দেশের মধ্যে আলাপ-আলোচনার মাধ্যমে। গতকাল রোববার দুপুরে সিলেটের একটি চার তারকামানের হোটেলের সম্মেলনকক্ষে ‘টেকসই জ্বালানি প্রসারে গ্রিন ব্যাংকিং’-এর ভূমিকা শীর্ষক কর্মশালার সমাপনী অনুষ্ঠানে বক্তৃতা শেষে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে প্রতিমন্ত্রী এ কথা বলেন।
জার্মান আন্তর্জাতিক উন্নয়ন সংস্থা (জিআইজেড), বাংলাদেশ সরকারের সাসটেইনেবল অ্যান্ড রিনিউয়েবল এনার্জি ডেভেলপমেন্ট অথরিটি (স্রোডা) এবং বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব ব্যাংক ম্যানেজমেন্ট (বিআইবিএম) যৌথভাবে এই কর্মশালার আয়োজন করে।
বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রী আরও বলেন, ইতোমধ্যে ভারত থেকে ৬০ মেঘাওয়াট বিদ্যুৎ আনা হয়েছে। আগামীতে আরও ২ হাজার মেঘাওয়াট বিদ্যুৎ আনা হবে এবং তা দুই বছরের মধ্যেই হবে। এর মূল্যও যৌক্তিক হবে বলে জানান তিনি।
দেশের সব মানুষকে বিদ্যুতের আওতায় নিয়ে আসতে সরকার আন্তরিকতার সাথে কাজ করছে জানিয়ে প্রতিমন্ত্রী বলেন, ২০১৮ সালের দেশে শতভাগ বিদ্যুতায়ন করতে পারব বলে আমরা আশাবাদী।
সৌর বিদ্যুতের চাহিদা দিন দিন কমছে জানিয়ে প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ বলেন, এখন প্রত্যন্ত গ্রাম পর্যন্ত বিদ্যুৎ সরবরাহ করা হচ্ছে। এজন্য সৌর বিদ্যুতের চাহিদা কমে আসছে। সঞ্চালন লাইনে বিদ্যুৎ পাওয়ায় মানুষ এখন সৌর বিদ্যুৎ নিতে চাইছেন না। তবে যেসব এলাকায় গ্রিড লাইন যাবে না, সেসব এলাকায় সৌর বিদ্যুতের প্যানেল বসিয়ে ওই এলাকাগুলো আলোকিত করা হবে।
এর আগে কর্মশালায় প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ বলেন, বিদু্ৎ সমস্যার সমাধানে ইতোমধ্যে এনার্জি রিসার্চ কাউন্সিল গঠন করা হয়েছে। সেখানে গবেষণা হচ্ছে কীভাবে সারাদেশে বিদ্যুৎ পৌঁছে দেওয়া যায়। বিকল্প বিদ্যুৎ নিয়েও এই কাউন্সিলর গবেষণা করছে।
এতে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন স্রোডার চেয়ারম্যান মো. হেলাল উদ্দিন, বাংলাদেশ ব্যাংকের ডেপুটি গভর্নর এস কে সুর চৌধুরী, বাংলাদেশে জার্মান দূতাবাসের ডেপুটি হেড অফ মিশন মাইকেল শুলথেই, সিলেটের জেলা প্রশাসক মো. রাহাত আনোয়ার। কর্মশালায় সভাপতিত্ব করেন বিআইবিএমের মহাপরিচালক ড. তৌফিক আহমেদ চৌধুরী।
কর্মমালায় মূল প্রবন্ধে স্রোডার যুগ্ম সচিব সিদ্দিক জোবায়ের সরকারের গৃহিত পরিবেশবান্ধব জ্বালানি বিষয়ক বিভিন্ন উদ্যোগের কথা তুলে ধরেন। অনুষ্ঠানের শুরুতে স্বাগত বক্তব্য রাখেন জিআইজেড রিনিউয়েবল এনার্জি অ্যান্ড এনার্জি এফিশিয়েন্সি (রিপ) কর্মসূচির সমন্বয়কারী আল মুদাব্বির বিন আনাম।

এ বিভাগের অন্যান্য খবর

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭, ০১৭১৭ ৬৮ ১২ ১৪ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: