সর্বশেষ আপডেট : ১ মিনিট ২ সেকেন্ড আগে
শনিবার, ২৪ জুন, ২০১৭, খ্রীষ্টাব্দ | ১০ আষাঢ় ১৪২৪ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

নবীগঞ্জের দেবপাড়ায় ভিজিডি‘র চাল নিয়ে চালবাজী

unnamed (6)নবীগঞ্জ প্রতিনিধি:: নবীগঞ্জ উপজেলার ১০ নং দেবপাড়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান এডভোকেট জাবিদ আলীর বিরুদ্ধে ভিজিডি চালের নামের তালিকা তৈরীতে ব্যাপক অনিয়ম, দুর্নীতি ও স্বজন প্রীতির অভিযোগ পাওয়া গেছে। নির্বাচিত সাধারণ ও সংরক্ষিত আসনের মেম্বারদের দেয়া তালিকা মুল্যায়ন না করে তিনি মনগড়া ভাবে তালিকা তৈরী করায় এমন অভিযোগ উঠেছে। আর অভিযোগটি করেছেন খোদ ইউপি মহিলা মেম্বার হোসনা বেগম। তিনি গত ১৪ এপ্রিল উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তার কাছে লিখিত অভিযোগ করেছেন। হোসনা বেগম ওই ইউনিয়নের ৭, ৮ ও ৯ নং ওয়ার্ড নিয়ে গঠিত সংরক্ষিত আসনের নব নির্বাচিত মেম্বার। এর আগে ওই ওয়ার্ডে মহিলা মেম্বার ছিলেন মায়ারুন বেগম নামের এক মহিলা। তৎকালীন সময়ে চেয়ারম্যান ও ওই মহিলা মেম্বারকে নিয়ে এলাকায় বিতর্ক দেখা দিলে মহিলা মেম্বার মায়ারুন হোসনা বেগমের কাছে গেল নির্বাচনে ধরাশায়ী হন। তবে হোসনা বেগম নির্বাচিত হলেও চেয়ারম্যান জাবিদ আলী তাকে পাশ কাটিয়ে সাবেক বির্তকিত মহিলা মেম্বার মায়ারুন বেগমকে নিয়েই ওই ওয়ার্ডের বিভিন্ন কাজ কর্ম করেন। প্রতিনিয়ত উক্ত মায়ারুন বেগমকে নিয়ে চেয়ারম্যান জাবিদ আলী সিএনজি যোগে অফিস পাড়াসহ নানা স্থানে ঘুরে বেড়ান। ফলে মহিলা মেম্বার হোসনা বেগম একজন জনপ্রতিনিধি হিসেবে অবমুল্যায়নের শিকার হচ্ছেন।

অভিযোগ সুত্রে জানাযায়, ২০১৭-২০১৮ অর্থ বছরে ভিজিডি চালের তালিকা তৈরী করা জন্য ওয়ার্ড মেম্বার ও সংরক্ষিত আসনের মেম্বারদের বলা হয়। পরিষদের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী মহিলা ও সাধারন আসনের মেম্বার মিলে প্রতি ওয়ার্ডে ১৬টি করে নাম তালিকা প্রস্তুত করে পরিষদে জমা দেন। কিন্তু চুড়ান্ত তালিকা তৈরীর সময় চেয়ারম্যান জাবিদ আলী মহিলা মেম্বার হোসনা বেগমের দেয়া নামের তালিকা থেকে অতি দারিদ্র ৬টি পরিবারের নাম পরিবর্তন করে ক্ষমতার অপব্যবহার করে অন্য ৬ জনের নাম দেয়া হয়। হোসনা বেগমের অভিযোগ চেয়ারম্যান তার তালিকা থেকে নাম বাদ দিয়ে সাবেক মহিলা মেম্বার মায়ারুন বেগমের সাথে শলামর্শ করে ৬টি নাম অন্তভুক্তি করেন। ফলে অসহায় হত দারিদ্র ৬ টি পরিবার ভিজিডি চালের কার্ড থেকে বঞ্চিত হয়েছে।

এলাকাবাসী বলেন, মায়ারুন বেগম যেন মম্বার না হয়েও মেম্বারের দায়িত্ব পালন করছেন। কারন চেয়ারম্যান জাবিদ আলী এখন মায়ারুনের মায়া’র জাল থেকে বের হতে পারেন নি। অভিযোগের বিষয়টি খতিয়ে দেখবেন বলে জানিয়েছেন ভিজিডি প্রকল্পের দায়িত্বপ্রাপ্ত মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা। এছাড়া চাল বিতরনে রয়েছে ব্যাপক অনিয়ম ও দূর্নীতি।

ভিজিডি সুবিধা ভোগী আবেদা বেগম জানান, গত শনিবার সরকারী ছুটির দিনে জানুয়ারী/ ফের্রুয়ারি মাসের চাল বিতরণ করেন। দু’ মাসের চাল একত্রে দেয়ার কারনে ৬০ কেজি চালের পরিবর্তে দেয়া হচ্ছে ৩৭/৪০ কেজি করে। গরীবের অবশিষ্ট চাল নিয়ে করা হচ্ছে নানা বানিজ্য। জাপা নেতা অলিদ আহমদও বললেন ভিজিডি চাল বিতরণে ব্যাপক অনিয়ম ও দূর্নীতির কথা। ভিজিডি চাল বিতরন নিয়ে এলাকায় আলোচনার ঝড় উঠছে বলে দাবী করেন জাপা নেতা ও বিশিষ্ট শালিস বিচারক ইলিয়াছ মিয়া।

এদিকে ভিজিডি চালের কার্ড পর্যালোচনায় দেখা যায়, উক্ত কার্ডে চালের পরিমান উল্লেখ্য করা হয়নি। গত শনিবার ( ১৫/০৪/২০১৭ ) তারিখে বিতরণ করা হলেও কার্ডে ২৭ ও ২৮ ফেব্রুয়ারি তারিখ লিখা হয়েছে। এনিয়েও নানা প্রশ্নের সৃষ্টি হয়েছে। জানুয়ারী ও ফেব্রুয়ারি মাসের চাল যথা সময়ে না দিয়ে দু’ মাস বিলম্বে কেন ? এ ব্যাপারে চেয়ারম্যান জাবিদ আলীর মোবাইল নম্বারে ফোন দিলে তিনি রিসিভ করেন নি। অপর দিকে মহিলা মেম্বার হোসনা বেগমের তালিকা থেকে বাদ দেয়া দারিদ্র ৬টি পরিবারের লোকজনের মাঝে হাহাকার দেখা দিয়েছে। ভিজিডি চাল থেকে বঞ্চিত ৭ ও ৮ নং ওয়ার্ডে কবুলেশ^র গ্রামের মৃত শায়েস্তা মিয়ার স্ত্রী জ্যো¯œা বেগম, আব্দুল হামিদের স্ত্রী আবজল বিবি, আঃ কাদিরের স্ত্রী জুলেখা বেগম ও পুর্ব দেবপাড়া গ্রামের মৃত আঃ সত্তারের স্ত্রী কমলা বিবি , দেবপাড়া গ্রামের সুফিয়া বিবি, আজিরা বেগম, সাহিদা বেগম, শুকজান বিবি, জহুরা বিবি, শান্তি বিবি জানান, মহিলা মেম্বার হোসনা বেগম আমাদের নাম তালিকা তৈরী করে পরিষদে দেয়ার পরও চেয়ারম্যান সাহেব সাবেক মহিলা মেম্বার মায়ারুন বেগমের সাথে আতাত করে আমাদের নাম বাদ দিয়েছেন। অথচ অভাব ও দারিদ্রতার কারনে পরিবার পরিজন নিয়ে অতি কষ্টে আমাদের জীবন জীবিকা নির্বাহ করতে হচ্ছে।
এ ব্যাপারে ভিজিড কার্ড থেকে বঞ্চিত লোকজন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও নির্বাহী অফিসারের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

এ বিভাগের অন্যান্য খবর

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭, ০১৭১৭ ৬৮ ১২ ১৪ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: