সর্বশেষ আপডেট : ২৬ মিনিট ৩৩ সেকেন্ড আগে
সোমবার, ২৯ মে, ২০১৭, খ্রীষ্টাব্দ | ১৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৪ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

বাংলাদেশ-ভারত সম্পর্ক এখন সুদৃঢ়: প্রধানমন্ত্রী

4O39Xa_-hasinaনিউজ ডেস্ক::বাংলাদেশ-ভারতের সম্পর্ক এখন সুদৃঢ়। ভারত সফর নিয়ে হতাশ হবার কিছু নেই। আর বিবাদের মাধ্যমে কোনোকিছু অর্জন সম্ভব নয় বলে জানিয়েছেন। ১১ এপ্রিল মঙ্গলবার ভারত সফর নিয়ে গণভবনে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি একথা বলেন।

তিনি আরো বলেন, ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সঙ্গে দ্বিপাক্ষিক বৈঠকে বিভিন্ন অমীমাংসিত ইস্যুতে আলোচনা হয়েছে। নরেন্দ্র মোদি বিমানবন্দরে এসে স্বাগত জানানোয় বাংলাদেশের মর্যাদা বৃদ্ধি পেয়েছে। প্রধানমন্ত্রী এও বলেন, সত্য কথা বলতে যখন জানতে পারলাম যে বিমানবন্দরে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি আমাকে শুভেচ্ছা জানাতে এসেছেন, তখন অনেকটাই অবাক হয়েছি। কারণ আমরা আগে থেকে জানতাম, তার বিমানবন্দরে আসার কথা নয়। তাকে দেখে রীতিমতো সারপ্রাইজড (আশ্চর্য) হই।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, সামরিক খাতে ৫০০ মিলিয়ন ডলার ঋণ দেবে ভারত। আমরা যৌথভাবে বঙ্গবন্ধুর ‘অসমাপ্ত আত্মজীবনী’র হিন্দি সংস্করণের মোড়কও উন্মোচন করেছি। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতি ভারতের গভীর শ্রদ্ধার নিদর্শনস্বরূপ দিল্লির ‘পার্ক স্ট্রিট’-এর নতুন নামকরণ ‘বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব রোড’ উদ্বোধন হয়েছে।

সফরে দ্বিপাক্ষিক বিষয়ে মোট ৩৫টি দলিল স্বাক্ষরিত হয়ে জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ১১টি চুক্তি ও ২৩টি সমঝোতা স্মারক সই হয়েছে। বাংলাদেশ-ভারতের সরকারি-বেসরকারি বিভিন্ন সংস্থার মধ্যে অর্থনৈতিক ও বিনিয়োগ সংক্রান্ত ৯ বিলিয়ন ডলারের ১৩টি চুক্তি এবং এমওইউ এগুলোর মধ্যে অন্তর্ভুক্ত।

প্রধানমন্ত্রী এও বলেন, ‘সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে আমি বাংলাদেশ যে সার্বভৌম দেশ, তা দৃঢ়ভাবে ব্যক্ত করি এবং একইসাথে বাংলাদেশ যে সম্মানের আসনে অধিষ্ঠিত, তা উল্লেখ করি।

শান্তিতে নোবেল বিজয়ী ও অর্থনীতিবিদ ড. মুহাম্মদ ইউনূসের সমালোচনা করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, মামলায় হেরে যান তিনি (ইউনূস), আর দোষ হয় আমার।

সংবাদ সম্মেলনে প্রশ্ন করা সাংবাদিককে উদ্দেশ্য করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, তাদের (হিলারী-ইউনূস) ষড়যন্ত্র বহু আগের। আপনারা এত পরে জানছেন কেন? ভারতের একটি পত্রিকায় এই ষড়যন্ত্র নিয়ে সংবাদ প্রকাশের পর আপনাদের নজরে এসেছে।

প্রধানমন্ত্রী ড. ইউনূসের সমালোচনা করে বলেন, গণমাধ্যমের সম্পাদক, মালিক এবং শান্তির দূত (ইউনূস) মিলে আমাকে উৎখাত করার ষড়যন্ত্র করেছিল। সফল হয়নি। জনগণ তাকে (ইউনূস) মেনে নেই।

তিনি বলেন, আদালতের সিদ্ধান্তে তাকে গ্রামীণ ব্যাংক থেকে সরে যেতে হয়েছে। যা হয়েছে আইনের মাধ্যমে। এখানে আর কারও হস্তক্ষেপ ছিল না। তাদের ষড়যন্ত্রের কারণেই আমাকে গ্রেফতার করা হয়। এই শক্তি এখনও ষড়যন্ত্রে লিপ্ত। আজ যারা বিবেকের কথা বলেন, তখন তাদের বিবেক কোথায় ছিল।

এ বিভাগের অন্যান্য খবর

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭, ০১৭১৭ ৬৮ ১২ ১৪ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: