সর্বশেষ আপডেট : ৪৬ মিনিট ৩৪ সেকেন্ড আগে
রবিবার, ২৩ জুলাই, ২০১৭, খ্রীষ্টাব্দ | ৮ শ্রাবণ ১৪২৪ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

পানির সঙ্গে যুদ্ধ করছেন শনির হাওরপারের ৩ হাজার কৃষক

11 April 2017_pic 014বিশেষ প্রতিবেদক ::
‘সুনামগঞ্জ জেলার একমাত্র হাওর শনির হাওর পানির সাথে যুদ্ধ করে এখনো আল্লাহর রহমতে টিকে রয়েছে। আপনারা যে যে অবস্থানে আছেন তাড়াতাড়ি উড়া কুদাল লইয়া শনির হাওরের বান্দে যাউকা।’ এভাবেই তাহিরপুর বাজার ট্রলার ঘাট থেকে মাইকিং করে বোঝাই করা নৌকায় হাওরের বাঁধে যাচ্ছেন শ্রমিক জনতা।
গতকাল সোমবার সকালে মাইকিং করার সময় বৌলাই নদীর পারে বসে ভাটি তাহিরপুর গ্রামের কৃষক লিবাস মাতব্বর এভাবেই বলছিলেন, ‘আওর পানির সাথে আর কয়দিন যুদ্ধ করা যায়।
বাঁেধর আশপাশে মাটি না থাকায় অনেকটা দূর থেকে হাঁটুজল ভেঙে বস্তায় করে মাটি এনে ফেলা হচ্ছে বেড়িবাঁধে। গতকাল সোমবার শনির হাওরে কমপক্ষে ৫ কিলোমিটার বেড়িবাঁেধর নিচুস্থানজুড়ে ও ৮ টি ক্লোজার বাঁধে কাজ করেন তিনটি উপজেলার ৫ ইউনিয়নের অর্ধশতাধিক গ্রামের ৩ সহস্রাধিক কৃষক-জনতা। গত ১৫ দিনের ব্যবধানে অতিবৃষ্টিতে পাহাড়ি ঢল ও নদীতে জোয়ারের পানি বৃদ্ধি পেয়ে তলিয়ে যায় সুনামগঞ্জ জেলার সব কটি বোরো ফসলি হাওর। কৃষকদের রাতদিন পরিশ্রম ও প্রতিদিন হাজারো মানুষ স্বেচ্ছাশ্রমে বাঁেধ কাজ করায় টিকে আছে জেলার একমাত্র শনির হাওর।
11 April 2017_pic 013এই হাওরে তিন উপজেলার কৃষকরা জমি চাষাবাদ করেন। শনি হাওরে ১৮ হাজার হেক্টর জমিতে ধান চাষাবাদ করা হয়। তাই এ বৃহৎ হাওরটির বোরো ফসল টিকিয়ে রাখতে হাজারো মানুষ স্বেচ্ছাশ্রমে কাজ করে যাচ্ছেন গত ১৫ দিন ধরে। জামালগঞ্জ উপজেলা বেহলী ইউনিয়নের রাধানগর গ্রামের কৃষক আব্দুল বাকির বলেন, ‘এখন আর কৃষকদের মনে নাই কোনটা পিআইসির কাজ আর কোনটা ঠিকাদারের কাজ। হাওরের ফসল রক্ষা করতে অইব। তাই দিনরাত বান্দে কাম কররাম।’
বালিজুরী ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান হাজি আব্দুজ জহুর তিনি বলেন, আনোয়ারপুর বাজার সংলগ্ন রক্তি নদীতে বালি, পাথর নৌকাতে লোড-আনলোড হয়, শনির হাওরের বেড়িবাঁধ উচু করে ফসল রক্ষার স্বার্থে আমরা আজ সোমবার এ কাজ বন্ধ করে দিয়েছি। হাওরের প্রয়োজনে আরও ক’দিন বন্ধ রাখা হবে।
তাহিরপুর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান কামরুজ্জামান কামরুল বলেন, শুধু কৃৃষকের স্বেচ্ছাশ্রমের কাজের ফলেই শনির হাওরটি টিকে আছে। শনি হাওর রক্ষায় কৃষকদের পাশে থেকে আমি চেষ্টা করে যাচ্ছি।
সুনামগঞ্জ-১ আসনের সংসদ সদস্য ইঞ্জিনিয়ার মোয়াজ্জেম হোসেন রতন বলেন, শনির হাওরপারের সকল নেতাকর্মীকে আমি রবিবার রাতে মোবাইলফোনে অনুরোধ করেছি, তাঁরা যেন সোমবার সারা দিন সকলেই শনির হাওরের বাঁধে গিয়ে কাজ করেন।

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭, ০১৭১৭ ৬৮ ১২ ১৪ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: